অনন্য আয়োজনে সরব মঞ্চাঙ্গন

প্রকাশ : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  আখন্দ জাহিদ

পরিবারের সঙ্গে আনন্দমাখা ঈদের ছুটি উৎযাপনের পর ব্যস্ত নগরীর মানুষজন ফিরছেন নিজ কর্মস্থলে। নগরবাসীর আগমনে ঈদের ছুটিতে ফাঁকা নগরী ফিরে পেয়েছে তার হারানো আগের সৌন্দর্য। ঈদ আয়োজনকে কেন্দ্র করে মঞ্চাঙ্গনে কোনো ধরনের আয়োজন না থাকলেও ঈদপরবর্তীতে কর্মব্যস্ত নগরীর সঙ্গে তাল মিলিয়ে সরব হয়ে উঠেছে ঢাকার মঞ্চ। নগরবাসীর ঈদের আনন্দে ভাসিয়ে তুলতে ঈদ আয়োজন কেন্দ্র করে ২৬ আগস্ট বাতিঘর প্রযোজিত ‘অলিখিত উপাখ্যান’, আরশিনগর থিয়েটারের ‘রপু চান্ডের হাড়’ এবং থিয়েটারওয়ালা রেপাটরি প্রযোজিত নাটক ‘জবর আজব ভালোবাসা’- এ তিনটি নাটক মঞ্চস্থ করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। পাশাপাশি গত মাসে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও বেইলি রোডের নাটক সরণির মহিলা সমিতি মিলনায়তনে দুই ডজনের মতো নাটক মঞ্চস্থ হয়েছে।

এদিকে মঞ্চাঙ্গনের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ঢাকার মঞ্চে শুরু হয়েছে অনন্য এক আয়োজন। মঞ্চনাটক শুধু বিনোদনের মাধ্যম নয়, বরং চিরতরুণ মনের নানা রঙে সাজানো সমাজ ও সভ্যতার এক বাস্তব প্রতিচ্ছবি। ‘তাই নাট্যমঞ্চ হোক আনন্দ-উৎস’- এ স্লোগানকে সামনে রেখে বাংলাদেশের মঞ্চনাটকে তরুণদের সম্পৃক্ত করে নতুন প্রাণসঞ্চার ও দেশের নাট্যশিল্পের জনপ্রিয় ও অন্যতম সৃজনশীল মাধ্যম মঞ্চনাটকের অগ্রযাত্রাকে আরও বিকশিত করার লক্ষে ৪ সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে শুরু হয়েছে পাঁচ দিনব্যাপী নাট্য উৎসব। মঞ্চনাটককে নতুন করে দর্শকদের ভালোবাসার বন্ধনে আবদ্ধ করার প্রয়াসে আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের আয়োজনে শুরু হয়েছে পাঁচ দিনব্যাপী ‘আইডিএলসি নাট্যোৎসব-২০১৮’। দেশের প্রশংসিত ও আলোচিত দশটি দলের প্রযোজনা নিয়ে সাজানো হয়েছে এ উৎসব। প্রাঙ্গণেমোরের ‘হাছনজানের রাজা’, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের ‘দ্য লোয়ার ডেপথ্স’, পদাতিক নাট্য সংসদের ‘ট্রায়াল অব সূর্যসেন’, পালাকারের ‘বাংলার মাটি বাংলার জল’, বটতলার ‘ক্রাচের কর্নেল’ ঢাকা থিয়েটারের ‘পঞ্চনারী আখ্যান’, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের ‘দ্য অ্যালকেমিস্ট’, থিয়েটারের ‘মুক্তি’, প্রাচ্যনাটের ‘সার্কাস সার্কাস’ ও নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের ‘ওপেন কাপল’ নিয়ে সাজানো হয়েছে এবারের ভিন্নধর্মী এই উৎসব। উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের নাট্যপ্রকৃতি ও দেশীয় সংস্কৃতি বিকাশে শক্তিমান এবং উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখার জন্য চার দম্পতিকে সম্মানসূচক পদক প্রদানের উদ্যোগ নিয়েছে আইডিএলসি। উৎসব প্রসঙ্গে আইডিএলসির সিইও ও এমডি আরিফ খান বলেন, ‘দায়িত্বশীল ও অগ্রগামী প্রতিষ্ঠান হিসেবে আইডিএলসি সব সময়ই দেশের সমৃদ্ধ শিল্প, সংস্কৃতি আর ঐতিহ্যের পৃষ্ঠপোষকতায় সচেষ্ট। সেই দায়িত্ববোধ এবং দেশের প্রতিভাবান শিল্পীদের প্রতি যথাযথ সম্মান জানাতে আমরা এ আয়োজন করেছি।’

পাশাপাশি এমন সাহসী উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন নাট্যজন ও সব নাট্যপ্রেমী নাট্যকর্মীরা। এ নাট্যোৎসবে উৎসাহী দর্শকদের জন্য ৩০ আগস্ট থেকে অনলাইনে বিনামূল্যে টিকিট সংগ্রহ করে নাটকগুলো উপভোগ করার ব্যবস্থা থাকলেও দর্শক চাহিদার কাছে উৎসব শুরুর আগেই শেষ হয়ে গিয়েছে প্রায় সব ক’টি নাটকের টিকিট।