ঈদের নাটকে প্রশংসিত

সময় এখন তানজিন তিশার

  যুগান্তর ডেস্ক    ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সময় এখন তানজিন তিশার
অভিনেত্রী তানজিন তিশা

তানজিন তিশা, এ সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী। অভিনয়ে তার পথচলায় পাঁচ বছর পার হয়েছে ইতিমধ্যে। মাঝে এক বছর বিরতি নিয়েছিলেন। চলতি বছরের ভালোবাসা দিবস থেকে অভিনয়ে আবারও নিয়মিত হয়েছেন।

রোজার ঈদের মতো কোরবানি ঈদের নাটকেও দর্শকদের মনোযোগ কেড়েছেন এ মডেল-অভিনেত্রী। তার অভিনীত বেশিরভাগ নাটকই ছিল আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। বিস্তারিত লিখেছেন অভি মঈনুদ্দীন

অভিনেত্রী হিসেবে যাত্রা শুরুর প্রহর থেকে সহশিল্পী এবং দর্শকের কাছ থেকে টুকটাক প্রশংসা বাক্য শুনতেন তানজিন তিশা। অবশ্য অভিনয়ে তখন খুব বেশি সিরিয়াস ছিলেন না তিনি।

কিন্তু চরিত্রের জন্য নিবেদিত হয়ে অভিনয়কে উপভোগ করে তানজিন তিশা কাজ শুরু করেছেন চলতি বছরের ভালোবাসা দিবস থেকে। মন দিয়ে অভিনয় করলে যে তার ফলাফল শুভ হয়, তার প্রমাণ পেয়েছেন তানজিন তিশা গেল ভালোবাসা দিবস থেকেই।

তবে গেল দুই ঈদে তার অভিনীত নাটকের জন্য একটু বেশি বেশিই সাড়া পাচ্ছেন। বিশেষ করে গত ঈদে তানজিন তিশা অভিনীত বেশ কয়েকটি নাটক দর্শকের কাছে অনেক গ্রহণযোগ্যতা পায়।

শুধু দর্শকের কাছেই যে তার অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে এমনটি নয়। অনেক প্রযোজক, পরিচালক এবং সহশিল্পীও তার অভিনয়ের প্রশংসা করেছেন। কোরবানি ঈদে মাবরুর রশীদ বান্নাহর ‘বেড সিন’ ও ‘আমার পক্ষে তোমাকে রাখা সম্ভব না’, মাহমুদুর রহমান হিমির ‘বাড়ি ফেরা’, রুবেল হাসানের ‘বৃষ্টি হয়ে এলে তুমি’ ও ‘প্রেম ছবি’ নাটকগুলোর জন্য তিনি বেশি প্রশংসিত হয়েছেন।

এসব নাটক প্রসঙ্গে তানজিন তিশা বলেন, ‘বলা যায় আমি তিন বছর ধরে নিয়মিত অভিনয় করছি। কিন্তু গত ভালোবাসা দিবসের আগ পর্যন্ত অভিনয়ে সিরিয়াস ছিলাম না। কারণ, কখনও ভাবিনি যে সিরিয়াসলি অভিনয় করলে দর্শকের কাছ থেকে ভালো সাড়া পাওয়া যায়। কিন্তু যখন থেকে আমি সিরিয়াস হয়ে উঠলাম, তখন থেকেই আমার অভিনীত নাটক-টেলিফিল্মের জন্য সাড়া পেতে শুরু করি।

অভিনেত্রী হিসেবে আমার ভালোলাগাটা আমি উপলব্ধি করতে শুরু করি। তখন কাজে আরও বেশি সিরিয়াস হয়ে উঠি।’ বিষয়টি ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তানজিন তিশা বলেন, ‘যেমন গত ঈদের কাজগুলোর সময় আমি বেশ অসুস্থই ছিলাম।

পরিবারকেও সময় দিতে পারিনি। শুধু দর্শকের কথা ভেবেই এমন পরিস্থিতির মধ্যেও কাজ করার চেষ্টা করেছি। মন দিয়ে অভিনয় করেছি। যার ফলে কিন্তু উল্লেখিত নাটকগুলোতে অভিনয়ের জন্য সাড়া পাচ্ছি। সত্যিই একজন অভিনেত্রী হিসেবে এটা যে কত ভালোলাগার, তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না। ভালোলাগার এ ধারাবাহিকতাটা আমার কাজ দিয়ে ধরে রাখতে চাই।’

তাহলে আগামী দিনগুলোতে আপনাকে নিয়মিতই অভিনয়ে পাওয়া যাবে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিশা বলেন, ‘যতদিন দর্শকের প্রিয় হয়ে থাকব ততদিনই অভিনয় করব।

যদি আমার কাজের প্রতি দর্শকের আর ভালোলাগা বা ভালোবাসা না থাকে, আমিও কাজে থাকব না।’ হঠাৎ করে যদি এখন আপনার বিয়ে হয়ে যায়, তাহলেও কী নিয়মিত থাকবেন? হেসে উত্তর দিলেন তিশা। বললেন, ‘জন্ম, মৃত্যু, বিয়ে আল্লাহর হাতে। আল্লাহ যখন চাইবেন তখনই তো বিয়ে হবে। এক্ষেত্রে আমারও তো একটা পরিকল্পনা আছে।’

কিন্তু বিয়ের পর যদি আপনার স্বামী আপনাকে অভিনয় করতে না দেন? ‘আমি তেমন কাউকেই বিয়ে করব যিনি আমার কাজকে, আমাকে মূল্যায়ন করবেন যথাযথভাবে। তবে এটাও ঠিক, বিয়ের পর মেয়েদের সংসারও একটা মুখ্য বিষয়। পেশা এবং সংসার দুটিই যদি ঠিক রেখে চলতে পারি সেটাই হবে আমার জন্য সুখের পৃথিবী।’- বললেন তিশা।

অনেকেই বলছেন আপনার এ মুহূর্তে চলচ্চিত্রে আসা উচিত। আপনি কী ভাবছেন এ বিষয়ে? তিশা বলেন, ‘চলচ্চিত্রে অবশ্যই অভিনয় করতে চাই। তবে আমার মনে হয় চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য আমার কাছে এখনও মনের মতো গল্প এবং চরিত্র আসেনি। তবে হলে হবে, না হলে নেই।

এ বিষয়টি নিয়ে আমি খুব বেশি সিরিয়াসলি চিন্তা করছি না।’ নির্মাতা হওয়ার স্বপ্ন কী উঁকি দেয় মনে? এবার একটু বেশিই ভাবলেন তানজিন তিশা। তারপর বললেন, ‘নির্মাতাকে মাথা অনেক ঠাণ্ডা রেখে কাজ করতে হয়। একটি জায়গায় থেকে তাকে পুরো ইউনিটের কথা ভাবতে হয়। মূল কথা নির্মাতা হওয়া অনেক কঠিন একটি কাজ। এ মুহূর্তে এ বিষয়টি নিয়ে ভাবা আমার জন্য কঠিনই বৈকি।’

নিজেকে অভিনয়ের দুনিয়ায় কোথায় দেখার স্বপ্ন দেখেন আপনি? ‘আমি আগে অনেক আবেগী ছিলাম, বাস্তবতা কম বুঝতাম। কিন্তু এখন আমি অনেক বেশি বাস্তববাদী। আবেগীও বটে, তবে আবেগটা আগের চেয়ে একটু কম। আমার মনে হয় আমি এখন সঠিক পথেই এগিয়ে যাচ্ছি।

যদি তাই হয় তাহলে সবার সহযোগিতায়, সবার দোয়ায় আমি ইনশাল্লাহ আগামীতে আরও ভালো অবস্থানে পৌঁছাব। আমি একজন সত্যিকারের অভিনেত্রী হতে চাই। হতে চাই বাবা-মায়ের একজন ভালো সন্তান, একজন ভালো স্ত্রী, একজন ভালো মা, সর্বোপরি একজন ভালো মানুষ।’

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter