মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় আইয়ুব বাচ্চু

চট্টগ্রামে বাড়ি করে শেষজীবন কাটানোর স্বাদ পূর্ণ হল না * আবক্ষমূর্তি বসানোর ঘোষণা মেয়রের

  চট্টগ্রাম ব্যুরো ২১ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় আইয়ুব বাচ্চু
ছবি-যুগান্তর

অসংখ্য মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন প্রিয় শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু। শনিবার বিকাল সাড়ে ৫টায় নগরীর চৈতন্যগলি কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়।

এর আগে জমিয়তুল ফালাহ জামে মসজিদ মাঠে তার জানাজায় হাজারো মানুষ অংশ নেন। নামাজ পড়ান ওই মসজিদের খতিব কারি আবু তালেব মোহাম্মদ আলা উদ্দিন আল কাদেরী।

দুপর ২টা ৫৩ মিনিটে আইয়ুব বাচ্চুর লাশ মসজিদ মাঠে আনা হয়। পরে তার লাশবাহী গাড়িটি কালো কাপড়ে তৈরি প্যান্ডেলের নিচে রাখা হয়। এ সময় চট্টগ্রামের কৃতী সন্তান, অসংখ্য কালজয়ী গানের শ্রষ্টা আইয়ুব বাচ্চুকে শেষবারের মতো দেখতে ভক্তদের ঢল নামে।

সেখানে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, আইয়ুব বাচ্চুর ছোট ভাই মো. ইরফান উদ্দিন ছুট্টু, মুক্তিযোদ্ধা কমরেড শাহ আলম, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী শাহ প্রমুখ।

এ সময় চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, কিছুদিন আগে বাচ্চুর সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল। তিনি চট্টগ্রামে একটি বাড়ি করার ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, তার বাবার সঙ্গে ওই বাড়িতে জীবনের পরবর্তী সময় কাটাতে চান। কিন্তু সে ইচ্ছা তার পূরণ হল না। নগরের যে কোনো স্থানে চট্টগ্রামের কৃতী সন্তান ও দেশখ্যাত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর একটি আবক্ষ মূর্তি বসানো হবে। এ ব্যাপারে কর্পোরেশনের সাধারণ সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর নিথর দেহ প্রথমে আনা হবে মাদারবাড়ির নানা বাড়িতে- এ কথা সবাই জানতেন। তাই শনিবার সকাল ১০টার পর থেকেই নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে নানা বয়সী মানুষ মাদারবাড়ির জব্বার সওদাগরের বাড়িতে ভিড় করতে থাকেন। কয়েক প্লাটুন পুলিশ ও কয়েকশ’ স্বেচ্ছাসেবককে হিমশিম খেতে হয় সাধারণ মানুষকে সামাল দিতে।

দুপুর ১২টা ২ মিনিটে সাইরেন বাজিয়ে লাশবাহী গাড়ি যখন জব্বার সওদাগরের বাড়ির সামনে আসে তখন এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। এর আগে বেলা ১১টার দিকে আইয়ুব বাচ্চুর কফিন ইউএস-বাংলার বিএস-১০৩-এর একটি বিশেষ ফ্লাইটে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আনা হয়।

সেখানে শিল্পীর কফিন গ্রহণ করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। পরে তিনি পূর্ব মাদারবাড়িতে শিল্পীর মামা আবদুল আলিম লোহানী ও ২৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম মোহাম্মদ জোবায়েরের কাছে লাশ হস্তান্তর করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিএমপির (দক্ষিণ) ডিসি মোস্তাইন হোসাইন। সেখানে প্রিয় শিল্পীর কফিনে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানায়।

এ সময় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন সাংবাদিকদের বলেন, আইয়ুব বাচ্চু চট্টগ্রামের সম্পদ ছিলেন। দেশকে তিনি অনেক কিছু দিয়েছেন। এখন আমাদের দেয়ার পালা। চট্টগ্রামে অবস্থিত মুসলিম হল ইন্সটিটিউট আইয়ুব বাচ্চুর নামে নামকরণে মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হবে। তার লাশ গ্রহণ থেকে শুরু করে জানাজা ও দাফনসহ সবকিছু চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন সম্পন্ন করছে।

আইয়ুব বাচ্চুর জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন ছেলে আনাফ তাজোয়ার আইয়ুব। তিনি বলেন, আমার বাবা না জেনে কোনো দোষ করে থাকলে মাফ করে দেবেন। সঙ্গীত ছিল বাবার ধ্যান-জ্ঞান। সঙ্গীতের মাধ্যমেই তিনি মানুষকে ভালোবাসতেন। আমার বাবার জন্য সবাই দোয়া করবেন। বাবাকে আল্লাহ যেন জান্নাতের সর্বোচ্চ মর্যাদা দেন। এ সময় তার পাশে ছিলেন তার বোন ফাইরুজ সাফরা আইয়ুব।

বৃহস্পতিবার মাত্র ৫৬ বছর বয়সে আইয়ুব বাচ্চু শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। জনপ্রিয় এ শিল্পীর মৃত্যুতে সারা দেশে শোকের ছায়া নেমে আসে। দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যান্ড এলআরবির দলনেতা আইয়ুব বাচ্চু ছিলেন একাধারে গায়ক, গিটারবাদক, গীতিকার, সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক।

ঘটনাপ্রবাহ : আইয়ুব বাচ্চু আর নেই

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×