বিলম্বিত জয়ে সিরিজে সমতা

বাংলাদেশ ৫২২/৭ ডি. ও ২২৪/৬ ডি. * জিম্বাবুয়ে ৩০৪ ও ২২৪ * ফল : বাংলাদেশ ২১৮ রানে জয়ী।

  স্পোর্টস রিপোর্টার ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিলম্বিত জয়ে সিরিজে সমতা

প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড বা অস্ট্রেলিয়া হলে এটা হতে পারত উৎসবের উপলক্ষ। কিন্তু জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে উচ্ছ্বাসে ভাসার দিন অনেক আগেই পেছনে ফেলে এসেছে বাংলাদেশ।

কাল মিরপুরে ভরদুপুরে মাহমুদউল্লাহদের অনাড়ম্বর উদযাপনে উচ্ছ্বাসের চেয়ে বেশি ছিল স্বস্তির ছোঁয়া। বড় জয়ে মান বাঁচানোর স্বস্তি! এ সিরিজ থেকে কিছু পাওয়ার প্রত্যাশার অপমৃত্যু ঘটেছে সিলেটেই।

প্রথম টেস্টে অভাবনীয় হারের পর ঢাকা টেস্টে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে সিরিজ হার এড়াতে পারা স্বস্তির উপলক্ষ হলেও মোটা দাগে বড় কোনো প্রাপ্তি নয়। তবে ঢাকা টেস্টে জিম্বাবুয়েকে ২১৮ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে ১-১ সমতায় সিরিজ শেষ করে বাংলাদেশ অন্তত বুঝিয়ে দিতে পেরেছে সিলেটের হার নিছক অঘটন ছিল।

টেস্টে রানের হিসাবে এটি বাংলাদেশের দ্বিতীয় বড় জয়। সব মিলিয়ে টেস্টে বাংলাদেশের ১১ জয়ের ছয়টিই অবশ্য জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। স্বস্তির উপলক্ষ আছে আরেকটি। আট ম্যাচ ও প্রায় ১৫ মাস পর টেস্টে আরাধ্য জয়ের দেখা পেল টাইগাররা। গত বছর আগস্টে এই মিরপুরেই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্ট জিতেছিল বাংলাদেশ।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রত্যাশিত জয় আগেরদিনই স্বাগতিকদের দৃষ্টিসীমায় চলে এসেছিল। চতুর্থ ইনিংসে ৪৪৩ রানের অসম্ভব লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে বৃহস্পতিবার শেষ দিনে চা-বিরতির বেশ আগেই ২২৪ রানে গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। অপরাজিত সেঞ্চুরিতে জিম্বাবুয়ের হয়ে একাই লড়েছেন ব্রেন্ডন টেলর।

কিন্তু তার জোড়া শতক বাংলাদেশের জয় সামান্য বিলম্বিত করতে পেরেছে মাত্র। দুই স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলামের দারুণ বোলিংয়ে কাল দুই সেশনও টিকতে পারেনি অতিথিরা। বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে টানা চার ইনিংসে পাঁচ উইকেটের হাতছানি ছিল তাইজুলের সামনে।

কিন্তু তাকে ছাপিয়ে শেষ দিনের নায়ক মিরাজ। মাত্র ৩৮ রানে পাঁচ উইকেট নিয়ে তরুণ এই অলরাউন্ডারই দুমড়ে-মুচড়ে দেন জিম্বাবুয়েকে। টেস্টে এ নিয়ে পঞ্চমবার পাঁচ উইকেট পেলেন মিরাজ। দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র দুই উইকেট পেলেও সিরিজে ১৮ উইকেট নিয়ে তাইজুলই হয়েছেন সিরিজসেরা। প্রথম ইনিংসে রেকর্ডস্নাত ডাবল সেঞ্চুরির সুবাদে ম্যাচসেরা মুশফিকুর রহিম।

জিম্বাবুয়ের দুই ওপেনারকে ফিরিয়ে আগের দিনই কাজ অনেকটা এগিয়ে রেখেছিলেন মিরাজ ও তাইজুল। কাল দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে শন উইলিয়ামসকে বোল্ড করে দলকে দিনের প্রথম ব্রেক থ্রু এনে দেন পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। লাঞ্চের আগে ফিরতি ক্যাচে সিকান্দার রাজাকে ফেরান তাইজুল।

লাঞ্চের পর মিরাজ বনাম টেলর দ্বৈরথে দু’জনের কেউ না হারলেও জিতেছে বাংলাদেশ। এক প্রান্তে দারুণ সব শট খেলে টেলর তুলে নেন টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি, অন্যপ্রান্তে টপাটপ উইকেট তুলে নিয়ে জিম্বাবুয়েকে গুটিয়ে দেন মিরাজ। টেলর অপরাজিত থাকেন ১০৬ রানে। জিম্বাবুয়ের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে দু’বার করলেন জোড়া সেঞ্চুরি।

২০১৩ সালে টেলরের জোড়া সেঞ্চুরির প্রথম কীর্তিটাও ছিল বাংলাদেশের বিপক্ষে। সব মিলিয়ে টেস্টে তার ছয় সেঞ্চুরির পাঁচটিই বাংলাদেশের বিপক্ষে। কিন্তু দল হারলে দিন শেষে সেঞ্চুরিও বিষাদ লাগে!

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজ, ঢাকা-২০১৮

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×