ভোটারদের হুমকি দিচ্ছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা

-মির্জা ফখরুল

  ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ২৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেছেন, এখন নির্বাচনের কোনো পরিবেশ নেই। কয়েকদিন ধরে দেখছি আমাদের শীর্ষ নেতাদের ওপর হামলা করছে আওয়ামী লীগ।

আর সবচেয়ে দুঃখজনক বিষয় রাষ্ট্রের পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় আওয়ামী সন্ত্রাসীরা এসব কাজ করছে। তারা ভোটারদের কেন্দ্রে না যাওয়ার হুমকি দিচ্ছে। ঠাকুরগাঁও শহরের নিজ বাসভবনে বৃহস্পতিবার সকালে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এই অভিযোগ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ঠাকুরগাঁওয়ে কিছুদিন আগেও এসেছিলাম তখন পর্যন্ত নির্বাচনের পরিবেশ সুষ্ঠু ছিল। গতকাল (বুধবার) রাতে আসার পরে এখানে যা দেখলাম; প্রকাশ্যে বড় বড় রামদা নিয়ে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসী বাহিনী বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে না যাওয়ার জন্য হুমকি দিচ্ছে।

এই আসনটি আমার হওয়ায় তারা এখানে এমনটা করছে বলে আমার মনে হয়। এ ছাড়াও আওয়ামী লীগ আমাদের প্রচার-প্রচারণা ঠেকানোর জন্য সাম্প্রদায়িক উসকানি সৃষ্টি করছে। আমি ও আমার পরিবার সবসময় অসাম্প্রদায়িক ছিলাম। আমরা সবাই একসঙ্গে মিলেমিশে এই শহরে বসবাস করছি।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমরা শেষ পর্যন্ত নির্বাচন করব। কারণ আমরা দেখিয়ে দিতে চাই যে এই দেশে সরকারের অধীনে কখনো সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়। তিনি আরও বলেন- সরকার কি চাচ্ছে, সরকার রাষ্ট্রকে ব্যবহার করছে কেন? সরকার সমস্ত প্রতিষ্ঠানকে ভেঙে দিচ্ছে কি জন্য? এই নির্বাচনে প্রমাণিত হচ্ছে নিরপেক্ষ সরকার ছাড়া কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হতে পারে না।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, আমরা দেখতে চাই, দেখাতে চাই আওয়ামী লীগের অধীনে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হতে পারে না। তবে তিনি দৃঢ় মনোবল প্রকাশ করে বলেন, জনগণ জেগে উঠেছে। জনগণের শক্তিকে আমরা বিশ্বাস করি। জনগণ পরিবর্তন চাচ্ছে। এ জন্য আমরা চেষ্টা করছি। জনগণই সব ক্ষমতার উৎস। এটাই ইঙ্গিত করে শত প্রতিকূলতার মধ্যে আমাদের জয় হবেই। সবকিছুতে পরাজয় হয় না। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি আবদুল্লাহ আল মামুন, জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পয়গাম আলী, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবদুল হামিদ প্রমুখ।

বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, নির্বাচনে হারজিত থাকবেই। তবে শেষ পর্যন্ত আমরা লড়ে যাব। ঠাকুরগাঁওয়ে সিংগিয়া গ্রামে হিন্দুবাড়িতে যে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে, জেলা ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে, সেটি বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে হয়েছে। তবে শুরু থেকেই আওয়ামী লীগ বিএনপিকে দোষারোপ করছে। এ ব্যাপারে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান লিটনসহ ১৩ নেতাকর্মীর নামে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে মামলাও দিয়েছে আওয়ামী লীগ।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত