মরণকামড় দিতে পারে একটা শক্তি: ওবায়দুল কাদের

  ফেনী ও কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কোম্পানিগঞ্জে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের
কোম্পানিগঞ্জে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ছবি: যুগান্তর

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে সহিংসতা ও নাশকতার যতটা শঙ্কা ছিল ততটা আর নেই। সেনাবাহিনীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর অবস্থানে সব শঙ্কা কেটে গেছে।

তিনি আরও বলেন, তবে মনে হয়- একটা শক্তি মরণকামড় দিতে পারে। কারণ নির্বাচনে জিততে তারা মরিয়া হয়ে উঠেছে। শেষ চেষ্টা হিসেবে তারা মরণকামড় দিয়ে বসতে পারে।

শুক্রবার বিকালে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে সকালে ফেনীর মাইজদিতে ওবায়দুল কাদের বলেন, এবারের নির্বাচনে দুর্নীতি ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে ‘ভোট বিপ্লব’ হবে।

নির্বাচনী এলাকা কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের ছোটধলী এলাকায় সোনাপুর-জোরালগঞ্জ সড়কের কাজ পরিদর্শনকালে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বিভিন্ন জায়গা থেকে নানা ধরনের অভিযোগ পাচ্ছি। নির্বাচন কমিশন সব দিক থেকে প্রস্তুতি নিয়েছে। জনগণ যখন ভোট দেয়ার জন্য দৃঢ় সংকল্প, তখন কোনো শক্তি নির্বাচন বানচাল করতে পারবে এটা আমার বিশ্বাস হয় না। যত চক্রান্তই হোক তা জনগণ প্রতিহত করবে।

তিনি বলেন, ’৭০ সালের পর এমন গণজোয়ার কখনও আমরা দেখিনি। ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন নিয়ে সহিংসতা ও নাশকতার যতটা শঙ্কা ছিল ততটা শঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। সেনাবাহিনী, র‌্যাব, বিজিবি ও পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর অবস্থানে রয়েছে। সব ধরনের ব্যবস্থাও নেয়া হয়েছে। যত অপচেষ্টাই করা হোক না কেন, নির্বাচন স্বস্তিদায়ক হবে।

তিনি বলেন, তবে নির্বাচনকে ঘিরে কিছু কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটছে। মুখোশ পরে কিছু সন্ত্রাসী মোটরসাইকেল চালিয়ে চোরাগোপ্তা হামলা করছে। এ চোরাগোপ্তা হামলাটাই সমস্যা। তবে আমরা সচেতন আছি। আমাদের নেতাকর্মীদেরও প্রস্তুতি আছে। যত চক্রান্তই হোক নির্বাচন বানচালের অপচেষ্টা সফল হবে না।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি জানিয়ে পুনর্নির্বাচনের দাবিসহ বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে অগ্রিম আবেদনপত্র টাইপ করার সময় বসুরহাট বাজারের একটি কম্পিউটার দোকান থেকে কিছু আবেদনপত্র বিজিবি জব্দ করেছে।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, আগামী ৩০ ডিসেম্বর নৌকার পক্ষে সারা দেশে ভোট বিপ্লব হবে। এ ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি, দুর্নীতি ও সন্ত্রাসীদের প্রতিহত করা হবে। তিনি বলেন, নৌকার গণজোয়ার দেখে পাকিস্তানি ভাবধারার রাজনীতিকরা নির্বাচনে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির ষড়যন্ত্র করছে। ভোট কেন্দ্র পাহারা দেয়ার নামে কেউ সন্ত্রাস-নৈরাজ্য করার চেষ্টা করলে তাদের কঠোরভাবে প্রতিহত করা হবে। এ বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

এ সময় সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি খিজির হায়াত ও সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী, স্বাধীনতা ব্যাংকার্স পরিষদের সদস্য ফখরুল ইসলাম রাহাত, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন মুন্না, সরকারি মুজিব কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নুর এ মাওলা রাজু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ফেনীর মাইজদির আঞ্চলিক মহাসড়কের উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনকালে ওবায়দুল কাদের বলেন, রোববারের নির্বাচনে দুর্নীতি ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে ‘ভোট বিপ্লব’ হবে। যারা সন্ত্রাস-দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে চান জনগণ তাদের ভোট দেবে না।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনী প্রচার শেষ হয়েছে। তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের পোস্ট দেখা যাচ্ছে। এতে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীদের লাঠিসোটা নিয়ে কেন্দ্রে অবস্থান করার জন্য বলা হচ্ছে। তবে এ উসকানিতে আমরা পা দেব না। কারণ কেন্দ্রের শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের। ইতিমধ্যে তারা সেই ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ব্যাপারে ওবায়দুল কাদের বলেন, যারা বাংলাদেশকে পাকিস্তানি ভাবধারায় নিয়ে যেতে চান জনগণ তাদের অপচেষ্টাকে ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে রুখে দেবে। উৎসবমুখর পরিবেশে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রত্যাশা ব্যক্ত করে তিনি বলেন, ভোট কেন্দ্রে কেউ বিশৃঙ্খলা করতে চাইলে তা কঠোর হাতে মোকাবেলা করা হবে। আমরা শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চাই। তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ বিপুল ভোটে বেশির ভাগ আসনে জয়লাভ করবে।

এ সময় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে ছিলেন ফেনী সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ জাহিদ হোসেন, ফেনী পৌরসভার প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী, জায়লস্কর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ মিলন প্রমুখ।

এদিকে বৃহস্পতিবার সাউথ এশিয়ান মনিটরকে দেয়া টেলিফোন সাক্ষাৎকারে ড. কামাল হোসেনের মন্তব্য সম্পর্কে ওবায়দুল কাদের বলেন, ভারত সম্পর্কে ড. কামাল যেসব মন্তব্য করেছেন, সেসবের জবাব দেবে ভারত সরকার ও দেশের হাইকমিশন অফিস।

ঘটনাপ্রবাহ : নোয়াখালী-৫: জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আরও
আরও পড়ুন
--
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×