উৎসবমুখর পরিবেশে শান্তিপূর্ণ ভোট: এইচটি ইমাম

আনন্দ মিছিল না করার নির্দেশ শেখ হাসিনার

  যুগান্তর রিপোর্ট ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

উৎসবমুখর পরিবেশে শান্তিপূর্ণ ভোট: এইচটি ইমাম
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম। ছবি: যুগান্তর

দলীয় সরকারের অধীনে অবাধ, সুষ্ঠু এবং পরিচ্ছন্ন নির্বাচন যে সম্ভব, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে তা প্রমাণ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এবং আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারমান এইচটি ইমাম।

তিনি বলেন, আনন্দ ও উৎসবমুখর পরিবেশে অবাধ ও শান্তিপূর্ণভাবে এই নির্বাচনে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শেষে রোববার রাতে ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

এইচটি ইমাম বলেন, আপনারা নিশ্চিয় লক্ষ করেছেন- অতীতের যেকোনো নির্বাচনের তুলনায় এবারের নির্বাচনে সহিংসতার মাত্রা উল্লযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়েছে। ৪০ হাজার ভোট কেন্দ্রের মধ্যে মাত্র ১২টি আসনের ১৬টি কেন্দ্রে ভোট স্থগিত করা হয়েছে। নির্বাচনে সব শ্রেণীর মানুষের অংশগ্রহণ আশা জাগানিয়া। আমরা দেখতে পেয়েছি, অনেক কেন্দ্রে মা শিশু কোলে নিয়ে ভোট দিতে গেছেন। প্রতিবন্ধীরাও তাদের ভোট দিয়েছেন। উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট হয়েছে। জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ প্রমাণ করে এই নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বরাত দিয়ে এইচটি ইমাম বলেন, আমাদের নেত্রী (শেখ হাসিনা) বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এখন আনন্দ মিছিলের সময় নয়। দেশ গড়ার সময়। কাজেই কোনোভাবেই কেউ আনন্দ মিছিল বের করবেন না।

এইচটি ইমাম বলেন, তফসিল ঘোষণার পর থেকে বিএনপি-জামায়াত-ঐক্যফ্রন্টের অব্যাহত অপপ্রচার, মিথ্যাচার, ষড়যন্ত্র, উসকানি উপেক্ষা করে ভোট উৎসবে অংশ নেয়ায় গণতন্ত্রকামী জনগণকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

তিনি বলেন, এই নির্বাচন শন্তিপূর্ণ অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক করা একটি চ্যালেঞ্জ ছিল। জনগণের নিরঙ্কুশ সমর্থনে স্বাধীন সার্বভৌম্য নির্বাচন কমিশনের অধীনে তা সুচারুভাবে সফল হয়েছে। যার সব কৃতিত্বের দাবিদার বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। যিনি সরকারপ্রধান হয়েও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের অধীনে সংবিধানের বিধান অনুযায়ী সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দিয়ে অনন্য নজির স্থাপন করেছেন। মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে দেশের সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে অর্থবহ সংলাপ করে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের মাইলফলক স্থাপন করেছেন। আমরা নির্বাচন কমিশনসহ নির্বাচনী কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানাই।

এইচটি ইমাম বলেন, যে মানদণ্ডে এই নির্বাচন ঐতিহাসিক। তবে কিছু অপ্রত্যাশিত বিছিন্ন ঘটনাও ঘটেছে। ১৩ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের প্রায় সবাই আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী। বিএনপি-জামায়াত আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের লক্ষ করে আক্রমণ করেছে, তাণ্ডব চালিয়েছে। ১০ জনকে হত্যা করেছে। দু’জন আনসার সদস্য নিহত হয়েছেন। আমি আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এসব হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও অপরাধীদের শাস্তি প্রত্যাশা করছি।

দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচনের ফলাফল শেষ না হওয়া পর্যন্ত আপনারা নিজ ভোট কেন্দ্রে থাকবেন। দলীয় সূত্রের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, বিভিন্ন এলাকা থেকে তথ্য আসতে শুরু করেছে। এখন পর্যন্ত আমরা যে খবর পাচ্ছি তাতে নিশ্চিতভাবেই বলা যায়, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং মহাজোট বিপুল ভোটের ব্যবধানে অধিকাংশ আসনে জয়লাভ করবে ইনশা আল্লাহ।

‘এই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে প্রমাণ হল দলীয় নির্বাচিত সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়’- বিএনপির এমন অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন যে সম্ভব, এই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে তা প্রমাণ হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থ উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, আওয়ামী লীগের উপ-দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, সাংবাদিক কাশেম হুমায়ুন, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, ছাত্রলীগ সভাপতি রেজোয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ, চিত্রনায়ক ফেরদৌস, নাট্য অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী, শমী কাওসার, নাট্য অভিনেতা মাজনুন মিজান প্রমুখ।

ঘটনাপ্রবাহ : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×