সুবর্ণচরে ভোটের দিন গণধর্ষণ: আলামত মিলেছে

মদদদাতা আ’লীগ নেতাসহ আরও দু’জন গ্রেফতার

  নোয়াখালী প্রতিনিধি ০৪ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মদদদাতা আ’লীগ নেতাসহ আরও দু’জন গ্রেফতার

সুবর্ণচরে ভোটের রাতে স্বামী-সন্তানকে বেঁধে গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনায় মদদদাতা আওয়ামী লীগ নেতা রুহুল আমিনসহ আরও দু’জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এ নিয়ে এ ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হল। এর আগে তিন দিনে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। এদিকে মামলা প্রত্যাহার না করলে গৃহবধূর পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকিও দেয়া হচ্ছে। গৃহবধূকে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। এ ঘটনা তদন্তে দুটি তদন্ত দলও মাঠে রয়েছে।

ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর অভিযোগ, ভোটের সময় নৌকার সমর্থকদের সঙ্গে কথা কাটাকাটির জের ধরে রাতে তিনি গণধর্ষণের শিকার হন। সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও সাবেক ইউপি সদস্য রুহুল আমিনের ‘সাঙ্গপাঙ্গরা’ রাতে বাড়িতে গিয়ে তার স্বামী-সন্তানকে বেঁধে তাকে গণধর্ষণ করে।

বুধবার রাতে চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুকের কাছে অভিযোগ করে গৃহবধূ আরও বলেন, মামলার এজাহার থেকে রুহুল আমিনের নাম চরজব্বর থানার পুলিশ বাদ দিয়েছে।

গৃহবধূকে আশ্বস্ত করে ডিআইজি গোলাম ফারুক বলেন, রুহুলের সংশ্লিষ্টতা খতিয়ে দেখা হবে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। এরপর সদর উপজেলার চরওয়াপদা গ্রামের আওয়ামী লীগ কর্মী তাজুল ইসলামের বাড়ি থেকে সন্ত্রাসের গডফাদার রুহুল আমিন এবং সেনবাগ উপজেলার একটি ইটভাটা থেকে বেচুকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

পুলিশ সুপার মো. ইলিয়াছ শরীফ বলেন, বুধবার রাতে জেলা সদরের একটি হাঁস-মুরগির খামার থেকে রুহুল এবং সেনবাগের একটি ইটভাটা থেকে মামলার ৫নং আসামি বেচুকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে বুধবার দুপুরে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার মহেষপুরের একটি ইটভাটা থেকে মামলার ১ নম্বর আসামি সোহেল, মঙ্গলবার রাতে লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলা থেকে ৩ নম্বর আসামি স্বপন এবং সোমবার ৬ নম্বর আসামি বাসুকে গ্রেফতার করা হয়। চরজব্বর থানায় ওই গৃহবধূর স্বামীর করা মামলার এজাহারে বলা হয়, আসামিরা ঘরে ঢুকে বাদীকে পিটিয়ে আহত করে এবং সন্তানসহ তাকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে দলবেঁধে ধর্ষণ করে। আসামির তালিকায় থাকা বাকিরা হলেন মধ্যবাগ্যা গ্রামের হানিফ, চৌধুরী, আবুল, মোশারেফ ও সালাউদ্দিন।

এদিকে নোয়াখালী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গৃহবধূ ও তার স্বামী-সন্তানদের খোঁজখবর নেন জাতীয় মহিলা সংস্থার পরিচালক পর্ষদের কেন্দ্রীয় সদস্য ইয়াদিয়া জামান, বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ফোরাম (বোয়াফ) সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময় ও লুভনা মরিয়ম, জাতীয় মহিলা সংস্থার পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মমতাজ বেগম, জেলা মহিলা সংস্থার কর্মকর্তা মো. রাব্বি চৌধুরী। তারা সাংবাদিকদের বলেন, গৃহবধূর পরিবারকে তারা আইনগত সহায়তা দেবেন। তারা আরও বলেন, পুরো ঘটনা যাচাই-বাছাই করে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তা তুলে ধরা হবে।

হাসপাতালে বৃহস্পতিবার কান্নাজড়িত কণ্ঠে গৃহবধূ যুগান্তরকে জানান, তার সারা শরীরে রক্ত জমাট বেঁধে আছে। প্রচণ্ড ব্যথায় উঠতে-বসতে পারি না। তিনি আরও বলেন, রুহুল, সোহেল, বেচু, হানিফসহ আরও কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করায় তার পরিবারের সদস্যদের নানারকম হুমকি দেয়া হয়েছে। মামলা প্রত্যাহার না করলে তার স্বামী, ছেলে ও মেয়েকে হত্যা করার হুমকিও দেয়া হচ্ছে। একই অভিযোগ করেছেন গৃহবধূর স্বামী ও সন্তানরা।

চরজব্বর থানার ওসি নিজাম উদ্দিন যুগান্তরকে জানান, ঘটনার পর থেকে পাঁচ দিনে পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামিদের গ্রেফতার করতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

ধর্ষণের আলামত মিলেছে : নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মো. খলিল উল্যাহ বলেছেন, সুবর্ণচরে গৃহবধূকে গণধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন বৃহস্পতিবার বিকালে নোয়াখালী পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। ডা. খলিল আরও বলেন, নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূ হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর তার বিভিন্ন পরীক্ষা করা হয়। এতে গণধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। তিনি জানান, গৃহবধূর শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে ভালো।

বরিশালে অবস্থান কর্মসূচি : সুবর্ণচরে গৃহবধূর ধর্ষণকারীদের বিচারের দাবিতে বরিশালে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় মুখে কালো কাপড় বেঁধে প্রতিবাদী অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়। নগরীর অশ্বিনী কুমার হলের সামনে বাম গণতান্ত্রিক জোটের বরিশাল জেলা পরিচালনা পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত অবস্থান কর্মসূচিতে বাম জোটের নেতারা বলেন, ৩০ ডিসেম্বর দেশে একটি ভোট ডাকাতির নির্বাচন হয়েছে। এতে গণতন্ত্র কলঙ্কিত হয়েছে। তারা বলেন, নোয়াখালীতে এক গৃহবধূ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। যারা এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×