সংলাপ নিয়ে ভিন্ন বক্তব্য আওয়ামী লীগের

সংলাপ হবে -এইচটি ইমাম * শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য ডাকা হবে -ওবায়দুল কাদের

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৬ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সংলাপ নিয়ে ভিন্ন বক্তব্য আওয়ামী লীগের

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে রাজনৈতিক দলগুলোর সংলাপ নিয়ে ভিন্ন মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের দুই নেতা। দলটির জাতীয় নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম বলেছেন, ‘সংলাপ হবে।’

আর দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলছেন, রোববার যৌথসভায় তিনি সংলাপ শব্দটিই ‘উচ্চারণ’ করেননি। ওই বক্তব্যের অডিও-ভিডিও ক্লিপ তার কাছে আছে।

তিনি বলেন, শুধু শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য রাজনৈতিক দলগুলোকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। মঙ্গলবার একই দিন রাজধানীতে আলাদা অনুষ্ঠানে তারা এমন ভিন্ন মন্তব্য করেন। ফলে সংলাপ নিয়ে ধূম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে দেশের ৭৫টি রাজনৈতিক দলকে গণভবনে সংলাপে ডেকেছিলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই সংলাপের পর গত ৩০ ডিসেম্বর সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় লাভ করে।

এরপর দলীয় এমপিদের শপথ ও ৪৭ সদস্যের মন্ত্রিপরিষদ নিয়ে টানা তৃতীয় মেয়াদে যাত্রা শুরু করে আওয়ামী লীগ সরকার। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ দলের নেতারা বারবার আহ্বান জানালেও বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের বিজয়ী আট এমপি শপথ নেননি।

এরই মধ্যে রোববার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরই রাজনৈতিক দলগুলোকে গণভবনে নির্বাচন-পরবর্তী ‘সংলাপে ডাকার’ খবর সাংবাদিকদের দিয়েছিলেন।

কিন্তু একদিন পর সোমবার নিজের কথা উল্টে তিনি বলেন, নির্বাচন নিয়ে সংলাপের কোনো বিষয় এখন নেই। শুধু শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য রাজনৈতিক দলগুলোকে ডাকা হবে।

এদিকে ওবায়দুল কাদের তার কথা পাল্টে ফেললেও প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম মঙ্গলবার আবার সংলাপের কথাই বলেছেন। ফের নিয়োগ পাওয়ার পর মঙ্গলবার ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন পাঁচ উপদেষ্টা। এ সময় এইচটি ইমাম সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী সবার প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবার সহায়তা চান, সে কারণেই তিনি আবার একটি সংলাপ করবেন। সেই সংলাপে সব পার্টি যারা এর আগের সংলাপে অংশগ্রহণ করেছিল, তাদেরও উনি আমন্ত্রণ করেছেন।

সংলাপের কথা বললেও বিএনপির পুনর্র্নির্বাচনের দাবিকে ‘অবাস্তব এবং হাস্যকর’ বলে আখ্যায়িত করেছেন প্রধানমন্ত্রীর এ উপদেষ্টা। তিনি বলেন, বিএনপির তরফ থেকে বলা হচ্ছে, নতুন নির্বাচন, এটি তো সম্ভব না। পাঁচ বছর পরেই নির্বাচন হবে।

অতএব এখন মেনে নিয়ে, বাস্তবতা মেনে নিয়ে সবাই যদি সহায়তা করেন, আমাদের দিক থেকে বলতে পারি, আমরা পাঁচজন অথবা আমাদের মন্ত্রিসভার সদস্য, অথবা সরকারে যারা আছেন, আমরা সবাই সবার সহায়তা চাইব।

প্রধানমন্ত্রী বললে আমরা অন্যদের সঙ্গে (বিরোধী রাজনৈতিক দল) কথাও বলব- আপনারা আসুন, সহায়তা করুন। বাংলাদেশ তো সবার, দেশকে গড়ে তুলি।

এদিকে এইচটি ইমামের বক্তব্যের কিছু সময় পরই ধানমণ্ডি ২৭ নম্বর রোডের হোয়াইট হলে মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় ওবায়দুল কাদের বললেন ভিন্ন কথা। সাধারণ সম্পাদক দাবি করেন, রোববার আওয়ামী লীগের যৌথসভায় সংলাপ শব্দটি তিনি উচ্চারণই করেননি। সংলাপ নিয়ে আমরা তো কিছু বলিনি। এখানে সংলাপ নিয়ে ধূম্রজাল কোথা থেকে এলো?

আমি তো সংলাপ শব্দটি উচ্চারণ করিনি। কেউ যদি মনগড়া খবর পরিবেশন করেন তাহলে তো কিছু করার নেই। আমি যে বক্তব্য রেখেছি তার অডিও-ভিডিও ক্লিপ রয়েছে, সেখানে সংলাপের কোনো বিষয় নেই।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একাদশ জাতীয় নির্বাচনের আগে ঐক্যফ্রন্ট, যুক্তফ্রন্ট, বিএনপি, বাম গণতান্ত্রিক জোট, ইসলামী জোট সব মিলিয়ে ৭৫টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ করেছিলেন।

সেই দলগুলোর নেতাদেরকে আমাদের নেত্রী আবারও গণভবনে আমন্ত্রণ জানাতে চান, শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, নির্বাচন নিয়ে সংলাপের কোনো প্রয়োজন নেই।

বলা হয়েছে গণভবনে নেত্রী আমন্ত্রণ জানাবেন, শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। একটু আপ্যায়নের ব্যবস্থাও থাকবে। এই ছিল আমাদের কথা।

সেতুমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী একবারও সংলাপের কথা বলেননি। আমি বলেছি তিনি আমন্ত্রণ জানাবেন। আমিও তো সংলাপের কথা বলিনি। কাজেই এ শব্দটি কোথা থেকে এলো আমি জানি না। যে নির্বাচন দেশে-বিদেশে প্রশংসিত সেখানে সংলাপের প্রশ্ন আসে কীভাবে! জাতিসংঘ বলেছে শেখ হাসিনার সঙ্গে কাজ করতে তারা রাজি। এই নির্বাচনে আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনার বিপুল জয় হয়েছে। নির্বাচন নিয়ে সংলাপের কথা বলা হাস্যকর।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×