ঐক্যফ্রন্ট না টেকারই কথা : সেতুমন্ত্রী

উপজেলা নির্বাচনে বিএনপিকে ডেকে আনা হবে না

প্রকাশ : ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের বিজয় সমাবেশের প্রস্তুতি পরিদর্শনে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের

বিএনপি-জামায়াত জোটসহ আরও বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক দল নিয়ে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট শেষ পর্যন্ত টিকবে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, আমাদের রাজনীতির অভিজ্ঞতা থেকে দেখেছি, ঐক্যফ্রন্ট গঠনের মধ্যেই ভাঙনের উপাদান ছিল। সেই ঐক্যফ্রন্ট না টেকারই কথা। তা ছাড়া যেখানে বিএনপিতে ভাঙনের সুর ধরেছে সেখানে ঐক্যফ্রন্ট তো ভাঙবেই।

ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের বিজয় সমাবেশের প্রস্তুতি পরিদর্শনকালে শুক্রবার সকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ভাঙার উপাদান কোনটি’- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, সাম্প্রদায়িক শক্তির সঙ্গে অসাম্প্রদায়িক শক্তির ঐক্য টেকসই হয় না।

জাতীয় নির্বাচনে বিএনপির ভরাডুবির পর উপজেলা নির্বাচনে বিএনপিকে অংশ নেয়াতে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কোনো উদ্যোগ নেয়া হবে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, গণতন্ত্রকে গুরুত্ব দিলে বিএনপি উপজেলা নির্বাচনে নিজেদের থেকেই আসবে। জাতীয় নির্বাচনেও যেমন তারা এসেছেন, তেমনিই উপজেলা নির্বাচনেও আসবেন। জাতীয় নির্বাচনে বিএনপিকে ডেকে আনা হয়নি, উপজেলা নির্বাচনেও হবে না।

মহাসমাবেশ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, নির্বাচনের গণজোয়ারের মতো সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মহাসমাবেশও গণজোয়ার সৃষ্টি করে স্মরণকালের বিশাল সমাবেশে রূপ নেবে। এটা আওয়ামী লীগের ও শেখ হাসিনার সততার ফসল। সারা দেশ থেকে মানুষের ঢল নামবে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের বিশাল বিজয়ের পর সরকার তিনটি বিষয়ে খুব কঠোর। এবার বিজয়ের মহাসমাবেশে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও দুর্নীতি- এই তিনটি বিষয়ের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী আরও কঠোর হতে বলবেন।

সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রসঙ্গে সেতুমন্ত্রী বলেন, যারা যোগ্য, যারা দলের জন্য নিবেদিতপ্রাণ, তাদেরই মনোনয়ন দেয়া হবে।

এবার মনোনয়ন প্রত্যাশীর সংখ্যা বাড়ার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা বেড়েছে। তাই মনোনয়নপ্রত্যাশী নারীর সংখ্যা এবার অনেক বেড়েছে।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায়, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এসএম কামাল হোসেন, মির্জা আজম প্রমুখ।