রাজনৈতিক নয় বিএনপির অভ্যন্তরীণ সংকট ঘনীভূত হচ্ছে

ওবায়দুল কাদের

  শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

‘খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলার রায়ের মধ্য দিয়ে রাজনৈতিক সংকট সৃষ্টি হয়েছে’- বিএনপি নেতাদের এই দাবি নাকচ করে দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ‘ওই মামলার রায়ের মধ্য দিয়ে রাজনৈতিক সংকট ঘনীভূত হয়নি, বরং বিএনপির অভ্যন্তরীণ সংকট ঘনীভূত হয়েছে। সেই লক্ষণই আমরা দেখছি। ’

শুক্রবার সকালে গাজীপুরের ভোগড়া বাইপাস মোড়ে বিআরটি ও গাজীপুর-এলেঙ্গা সড়কের চারলেন কাজ পরিদর্শন করার সময় সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমান সরকারের আমলে মামলাটি হয়নি। মামলা হয়েছে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে। দুদক মামলাটি করেছিল। সরকার এখানে কিছুই করেনি। এখানে সরকারের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। ১০ বছর ধরে একটা মামলা চলে এসেছে। তারপরও বিএনপির নেতারা বলছেন তড়িঘড়ি করে এ মামলাটির রায় দেয়া হয়েছে। আসলে মামলার রায় বিলম্ব হওয়ার কারণ খালেদা জিয়া নিজেই। এর জন্য খালেদা জিয়া এবং তার আইনজীবীরাই দায়ী। তিনি মাসের পর মাস মামলার কার্যক্রমকে ব্যাহত করেছেন। তিনি যদি ঠিকমতো হাজিরা দিতেন অনেক আগেই মামলার রায় হয়ে যেত। এখন মামলা নিয়ে তারা বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন।’

তারেক রহমান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হওয়ার সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দুর্নীতি করে দণ্ডিত, মানিলন্ডারিংয়ের জন্য দণ্ডিত ব্যক্তিকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করা হয়েছে। রায়ের আগে বিএনপি তড়িঘড়ি করে রাতের আঁধারে কলমের এক খোঁচায় বিএনপি তাদের সংবিধানের সাত ধারা নির্বাসনে পাঠায়। এর দ্বারা এটাই প্রমাণ হয়েছে যে, বিএনপিতে দুর্নীতিপরায়ণ হতে আর কোনো অসুবিধা নেই। যে কোনো দুর্নীতিবাজ বিএনপির নেতা হতে পারে। তারা সাত ধারা তুলে দিয়ে সেই স্বীকৃতি দিয়েছে। তার বড় প্রমাণ সর্বশেষ তারেক রহমানকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন করা।’

সড়কের কাজ পরিদর্শনকালে সড়ক ও জনপথের (সওজ) ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আবদুস সবুর, ঢাকা সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটি) প্রকল্প পরিচালক সানাউল হক, গাজীপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

E-mail: [email protected], [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter