পাবনায় ১৪ জেলার ৫৯৫ চরমপন্থীর আত্মসমর্পণ

যারা আত্মসমর্পণ না করে সন্ত্রাস চালাবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  পাবনা প্রতিনিধি ১০ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পাবনায় ১৪ জেলার ৫৯৫ চরমপন্থীর আত্মসমর্পণ

‘সন্ত্রাসী পেশা ছাড়ি, আলোকিত জীবন গড়ি’- এ প্রত্যয় নিয়ে পাবনায় ১৪ জেলার ৫৯৫ চরমপন্থী আত্মসমর্পণ করেছেন। মঙ্গলবার পাবনা শহীদ অ্যাডভোকেট আমিন উদ্দিন স্টেডিয়ামে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপির কাছে তারা আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ করেন।

এ উপলক্ষে পুলিশের কাছে ৬৮টি আগ্নেয়াস্ত্র এবং ৫৭৫টি দেশীয় অস্ত্র জমা দেন বিভিন্ন গ্রুপের সদস্যরা। এদের অনেকের বিরুদ্ধে হত্যা, ডাকাতি, বিস্ফোরক ও অস্ত্র মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে। অনুষ্ঠান শুরুর আগে পাবনা পুলিশের বিশেষ শাখার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামিমা আক্তার প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, ১৯৯১ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত এ অঞ্চলে চরমপন্থীদের হাতে ২৮৭ জন নিহত হন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পুলিশ প্রশাসনের মাধ্যমে এই আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে পূর্ব বাংলা কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল লাল পতাকা), সর্বহারা, নিউ বিপ্লবী ও কাদামাটির অনুসারী ৫৯৫ জন চরমপন্থী স্বাভাবিক জীবনে ফেরার ঘোষণা দেন। এদের মধ্যে নওগাঁ জেলার ৭০, জয়পুরহাটের ৮৩, রাজশাহীর ৬১, সিরাজগঞ্জের ৬৯, নাটোরের ২৭, বগুড়ার ১৫, ফরিদপুরের ২৭, রাজবাড়ীর ৩৪, খুলনার ৩৫, সাতক্ষীরার ৬, নড়াইলের ২, যশোরের ২, টাঙ্গাইলের ৩১ ও পাবনা জেলার ১৩২ জন আছেন। বিভিন্ন জেলার ও গ্রুপের এসব সদস্য ১৭ নেতার নেতৃত্বে আত্মসমর্পণ করেন। নেতারা হলেন : আনোয়ার হোসেন, ইউসুফ আলী ফকির ওরফে মিন্টু ফকির, সিরাজ শিকদার, মনসুর আলী, আবু তালেব, আবদুল আলিম, বাবলু ব্যাপারী, ইকবাল হোসেন, আবদুর রাজ্জাক বাবু ওরফে আর্ট বাবু, আতাউর রহমান, মহসিন আলী, মোবারক হোসেন, মহসিন মল্লিক, ফারুক মোল্লা, আবদুল্লাহ আল মামুন, লিপু মোল্লা ও রমজান আলী। এ সময় সরকারের পক্ষ থেকে তাদের আর্থিক সুবিধা ও উপহার দেয়া হয়। এদের মধ্যে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি আছেন ৩৪ জন।

এদিকে অনুষ্ঠান সফল করতে এক সপ্তাহ ধরে পাবনা শহরের মোড়ে মোড়ে ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বিলবোর্ড স্থাপনসহ জেলাজুড়ে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালানো হয়।

স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকেও ব্যাপক নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, সন্ত্রাসের পথ থেকে আলোর পথে এসে চরমপন্থীরা যেন ভালো কিছু করে স্বাভাবিক মানুষের মতো জীবনযাপন করতে পারেন, সে জন্য প্রধানমন্ত্রী তাদের এ সুযোগ দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে ইতিমধ্যে জলদস্যু, বনদস্যু এবং মাদক ব্যবসায়ীরা আত্মসমর্পণ করে আলোর পথে ফিরে এসেছেন। এখানে যারা আত্মসমর্পণ করল তাদের যোগ্যতা অনুযায়ী স্বাভাবিক জীবনযাপনের জন্য পুনর্বাসন করা হবে। তাদের আইনি সহায়তাও দেয়া হবে।

তিনি বলেন, ১৯৯৯ সালেও ২ হাজার চরমপন্থী এ ধরনের সুযোগ গ্রহণ করে আলোর পথে ফিরে আসেন। এবার যারা এখনও এ সুযোগ নিলেন না, তাদের আহ্বান জানাচ্ছি অবিলম্বে আলোর পথে ফিরে আসুন। তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এখন খুবই তৎপর। আপনারা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী চুপ করে বসে থাকবে না। জানা গেছে, দীর্ঘ ২০ বছর পর দ্বিতীয় দফায় দেশের উত্তর-দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলের ১৪ জেলার চরমপন্থী বিভিন্ন গ্রুপের নেতাকর্মী এ আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে যোগ দিলেন। এর মধ্য দিয়ে তারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার স্বপ্ন দেখছেন। পাবনা জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে অনুষ্ঠানের সব প্রস্তুতি নেয়া হয়।

সোমবার রাতেই চরমপন্থীদের নিজ নিজ জেলা থেকে পাবনায় নিয়ে আসা হয়। মঙ্গলবার দুপুরের মধ্যে তাদের পাবনা শহীদ অ্যাডভোকেট আমিন উদ্দিন স্টেডিয়ামে নির্ধারিত জায়গায় বসানো হয়।

বিকাল সাড়ে ৩টায় পাবনা শহীদ অ্যাডভোকেট আমিন উদ্দিন স্টেডিয়ামে আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, প্রধান আলোচক পুলিশের আইজি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বিপিএম (বার)সহ অতিথিরা। পাবনার পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম বিপিএম, পিপিএমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামসুর রহমান শরীফ ডিলু, পাবনা-১ আসনের সংসদ সদস্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, পাবনা-৫ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক প্রিন্স, পাবনা-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ মকবুল হোসেন, পাবনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবীর, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াছমিন জলি, পাবনার জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি এম খুরশীদ হোসেন বিপিএম (বার), পিপিএম। চরমপন্থীদের পক্ষ থেকে রাজশাহীর বাগমারার আবদুর রাজ্জাক বাবু ওরফে আর্ট বাবু এবং চরমপন্থীদের পরিবারের পক্ষ থেকে শেখ ইকবালের স্ত্রী মিসেস রত্না বক্তব্য দেন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু বলেন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ ফেলে যে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চায় সরকার তার জন্য সুযোগ সৃষ্টি করেছে। এরপরও অন্যায় কাজে জড়িত থাকলে তার আর রেহাই নেই।

তিনি বলেন, ‘আত্মসমর্পণের পর আত্মনির্ভরশীল করতে সরকারিভাবে তাদের আর্থিক প্রণোদনাসহ পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হবে। তারা ফের অপরাধে যুক্ত হচ্ছে কিনা, সে ব্যাপারেও নজরদারি থাকবে। সক্ষমতা অনুযায়ী স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চাওয়া মানুষদের সহযোগিতা করা হবে।

পুলিশের আইজি ড. মো. জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, পাবনার আজকের এই দিনটি স্মরণীয় হয়ে থাকবে। ১৯৯৯ সালে অন্ধকার পথ ছেড়ে আলোর পথে আসার এমন একটি সুযোগ হয়েছিল। দীর্ঘ ২০ বছর পর প্রধানমন্ত্রী আবার এ ধরনের সুযোগ দিলেন। এ সুযোগ যারা গ্রহণ করলেন তারা ভাগ্যবান।

এখন থেকে তারা স্বাভাবিকভাবে জীবনযাপন করতে পারবেন। যাদের আইনগত সমস্যা রয়েছে তাদের আইনগত সহায়তা দেয়া হবে। এখনও যারা ফিরে আসেননি, তাদের ফিরে আসার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

প্রসঙ্গত, ২০ বছর আগে ১৯৯৯ সালে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে ২ হাজার চরমপস্থী নেতাকর্মী সে সময়ের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের উদ্যোগে আত্মসমর্পণ করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসেন। সূত্রমতে, ৩ দশক আগে পাবনাসহ উত্তর-দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে চরমপন্থীদের দৌরাত্ম্য দেখা দেয়।

ওই সময় তাদের হাতে কয়েকশ’ মানুষ খুন হন। পাবনার দুর্গম ঢালার চরে চরমপন্থীদের ব্রাশফায়ারে এসআই কফিলসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য নিহত হন। এর কয়েক বছর আগে নিহত হন এসআই হেদায়েত। রাজশাহীর বাগমারায় পুলিশ ক্যাম্প লুটসহ ৫ পুলিশ নিহত হয়। রাজবাড়ীর জৌকুড়া পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা এবং অস্ত্র লুট করা হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সাম্প্রতিককালে চরমপন্থীরা আবার মাথাচাড়া দিয়ে ওঠায় সরকার তাদের আত্মসমর্পণের মাধ্যমে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার সুযোগ দেয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×