খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও বিভাগীয় শহরে সমাবেশ করবে ২০ দল

  যুগান্তর রিপোর্ট ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপি

কারাবন্দি খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির কর্মসূচির প্রতি একাত্মতা ঘোষণার পাশাপাশি তাতে সক্রিয়ভাবে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ২০ দলীয় জোট। বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তির দাবিতে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানসহ বিভাগীয় শহরে সমাবেশের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জোট। একই সঙ্গে খালেদা জিয়ার নির্দেশনা অনুযায়ী, জাতীয় ঐক্য গড়তে সরকারের বাইরে থাকা রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা, প্রয়োজনে জোট সম্প্রসারণ করে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন এবং জোটে জামায়াত থাকার কারণে যেসব দল না আসবে ওইসব গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুগপৎ আন্দোলনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ বিষয়ে জোটের পক্ষে বিএনপিকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিকাল ৫টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক হয় গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে। এ বৈঠকেও টেলিফোনে জোট নেতাদের উদ্দেশে বক্তব্য দিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। তিনি ঐক্যবদ্ধভাবে অহিংস আন্দোলন চালিয়ে যেতে জোট নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর দল, জোট ও বিশিষ্টজনের সঙ্গে মতবিনিময় করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। শনিবার রাতে দলের সিনিয়র নেতারা বৈঠক করেন। সে অনুযায়ী শিগগিরই সম্পাদক, শিক্ষকসহ পেশাজীবীদের সঙ্গে মতবিনিময় করা হবে।

এদিকে, বিএনপি চেয়ারপারসনের সাজার প্রতিবাদ ও মুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আজ সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত মানববন্ধন করা হবে। ঢাকার স্থান ঠিক না হলেও মঙ্গলবার ১ ঘণ্টা অবস্থান এবং বুধবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ৮ ঘণ্টার অনশন করবে বিএনপি। এসব কর্মসূচিতে ২০ দলীয় জোটের সক্রিয়ভাবে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। বৈঠকের পর ব্রিফিংয়ে জোটের সমন্বয়ক বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ২০ দলীয় জোটের সভায় দেশনেত্রীর মুক্তির দাবিতে বিএনপি যে কর্মসূচিগুলো গ্রহণ করেছে, সেই কর্মসূচির প্রতি তারা একাত্মতা ঘোষণা করেছেন। এসব কর্মসূচিতে তারা সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করবেন। একই সঙ্গে অদূর ভবিষ্যতে ২০ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে কর্মসূচি গ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, জোটের সভায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যে সাজা দেয়া হয়েছে এবং তাকে কারাগারে নেয়া হয়েছে তার তীব্র নিন্দা, ক্ষোভ ও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। অবিলম্বে এ মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানিয়েছেন তারা। এছাড়া বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোটের গ্রেফতার নেতাকর্মীর মুক্তির দাবিও জানানো হয়েছে।

খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর জোটের নেত্রী কে জানতে চাইলে ফখরুল বলেন, ‘আমি বলতে চাই, দেশনেত্রীই হচ্ছেন ২০ দলীয় জোটের নেত্রী। এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ থাকার অবকাশ নেই। আমি জোটের সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করছি।’

মির্জা ফখরুল জানান, বৈঠকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডন থেকে টেলিফোনে জোট নেতাদের উদ্দেশে বক্তব্য রেখেছেন। তার (তারেক রহমান) বক্তব্যে যেটা এসেছে, তিনি জনগণের একটি জোট বা প্ল্যাটফর্ম তৈরির কথা বলেছেন। দেশনেত্রী সর্বশেষ যে সংবাদ সম্মেলন করেছিলেন তাতে জাতীয় ঐক্যের আহ্বান জানিয়েছেন। সেটা ২০ দলীয় জোটের নেতারা সমর্থন করেছেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, জোটের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে, বর্তমান জোটের ঐক্যকে আরও প্রসারিত করতে অন্য রাজনৈতিক দলের সঙ্গে কথা বলা হবে।

২০ দলীয় জোটের বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন জোটের সমন্বয়ক বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এনামুল হক চৌধুরী।

শরিকদের মধ্যে বিজেপির আন্দালিব রহমান পার্থ, জামায়াতে ইসলামীর আবদুল হালিম, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, ইসলামী ঐক্যজোটের অ্যাডভোকেট এমএ রকীব, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) রেদোয়ান আহমেদ, শাহাদত হোসেন সেলিম, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা) অধ্যাপিকা রেহানা প্রধান, খেলাফত মজলিশের আহমেদ আবদুল কাদের, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এনডিপি) খন্দকার গোলাম মূর্তজা, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, ন্যাপ-ভাসানী আজহারুল ইসলাম, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের এএইচএম কামরুজ্জামান খান, বাংলাদেশ ন্যাপের জেবেল রহমান গানি, পিপলস লীগের গরীবে নেওয়াজ, লেবার পার্টির একাংশের মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, অপর অংশের হামদুল্লাহ আল মেহেদি, জমিয়তে উলামা ইসলামের মুফতি মহিউদ্দিন ইকরাম, মাওলানা শাহিনুর পাশা, মাওলানা রেজাউল করীম, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ, ইসলামিক পার্টির সাখাওয়াত হোসেন চৌধুরী, ডেমোক্রেটিক লীগ (ডিএল) সাইফুদ্দিন মনি প্রমুখ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। সর্বশেষ ২০ দলীয় জোটের বৈঠক হয় ২৮ জানুয়ারি সেখানে খালেদা জিয়া সভাপতিত্ব করেন।

ঘটনাপ্রবাহ : কারাগারে খালেদা জিয়া

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.