বিশ্ব কাঁপে বিশ্বকাপে ভারত ও পাকিস্তান আগুন-খেলা

  ইশতিয়াক সজীব ১৬ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আগুন-খেলা

রাউন্ড রবিন ফরম্যাটের কারণে বিশ্বকাপের ম্যারাথন লিগ পর্বে এবার ১০টি দলই একে অপরের মুখোমুখি হবে। সেই হিসেবে প্রতিটি ম্যাচই সমান গুরুত্বপূর্ণ।

বিশেষ কোনো ম্যাচ নিয়ে মাতামাতির সুযোগ নেই। একটু ভুল হল। অন্তত একটি ম্যাচকে এই কাতারে রাখা যাবে না। ভারত-পাকিস্তান মহারণ কোনোকালেই শুধু দুই পয়েন্টের ম্যাচ ছিল না।

ক্রিকেট মাঠে চিরবৈরী দুই পড়শি মুখোমুখি হলে পয়েন্টের হিসাব চলে যায় পেছনের পাতায়। এই গ্রহের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ মানুষের রক্তকণিকায় জ্বলে ওঠে আগুন। বিশ্বকাপে আজ সেই আগুন-আগুন খেলা! ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে আসরের সবচেয়ে কাঙ্ক্ষিত ব্লকবাস্টার ম্যাচে আজ মুখোমুখি ভারত-পাকিস্তান। ইংলিশ ফুটবলের দুই পরাশক্তি ম্যানইউ ও ম্যানসিটির শহরে মঞ্চায়িত হতে যাচ্ছে ক্রিকেটের সবচেয়ে অগ্নিগর্ভ দ্বৈরথ। আগুনে ঘি ঢালার মতো চরিত্র ও অনুষঙ্গের কোনো কমতি নেই। কিন্তু সব উত্তেজনা ও আগুনে জল ঢেলে দিতে পারে ইংল্যান্ডের বেরসিক বৃষ্টি!

এই বিশ্বকাপের সবচেয়ে দাপুটে চরিত্র হয়ে ওঠা বৃষ্টি এরই মধ্যে ভাসিয়ে দিয়েছে চারটি ম্যাচ। আজ ভারত-পাকিস্তান ম্যাচেও হানা দিতে পারে বৃষ্টি। ব্রিটেনের আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, আজ সারা দিনই মেঘলা থাকবে ম্যানচেস্টারের আকাশ। সকালে এক পশলা ও দুপুরের পর রয়েছে ঝুম বৃষ্টির শঙ্কা। ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংস পড়তে পারে বৃষ্টির কবলে। তবে ইংল্যান্ডের আবহাওয়ার কোনো ঠিকঠিকানা নেই। ক্রিকেটপ্রেমীদের প্রত্যাশা, দৈর্ঘ্য কমলেও ম্যাচটি যেন হয়। জিভে জল আনা এই ম্যাচ বৃষ্টিতে পণ্ড হলে বিশ্বকাপেরই টিআরপি কমে যাবে। বিশ্বকাপ মঞ্চে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াইয়ের ইতিহাস অবশ্য বড়ই একপেশে। বিশ্বকাপে ছয়বারের মুখোমুখিতে একবারও ভারতকে হারাতে পারেনি পাকিস্তান। তাতে অবশ্য এই দ্বৈরথের আবেদনে এতটুকু ভাটার টান লাগেনি। রাজনৈতিক বৈরিতার কারণে দু’দলের দ্বিপাক্ষিক সিরিজ অনেক দিন ধরেই বন্ধ। আইসিসি ও এসিসির বহুজাতিক টুর্নামেন্ট ছাড়া এই মহারণ দেখার সুযোগ নেই। এতে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে মানুষের আগ্রহ বরং আরও বেড়েছে।

বিশ্বকাপে ব্যাপারটা একপেশে হলেও ওয়ানডে মুখোমুখি লড়াইয়ে পাকিস্তানই এগিয়ে। ফল হওয়া ১২৭ ম্যাচে পাকিস্তানের ৭৩ জয়ের বিপরীতে ভারতের জয় ৫৪টি। গত বছর এশিয়া কাপে সর্বশেষ দেখায় ভারত হেসেখেলে জিতলেও ইংল্যান্ডের মাটিতে শেষ দেখায় জয়ের হাসি হেসেছিল পাকিস্তান। ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে ভারতকে ১৮০ রানে হারিয়ে শিরোপা উৎসব করেছিল সরফরাজ আহমেদের দল। সেই জয়ের দুই নায়ক ওপেনার ফখর জামান ও পেসার মোহাম্মদ আমির এবারও পাকিস্তানের তুরুপের তাস। ফর্মের বিচারে অবশ্য পাকিস্তানের চেয়ে ঢের এগিয়ে ভারত। বিশ্বকাপে এখনও অপরাজিত বিরাট কোহলির দল। দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দাপুটে জয়ের পর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ভারতের শেষ ম্যাচটা বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়। ওপেনার শিখর ধাওয়ান চোটের থাবায় দুই সপ্তাহের জন্য দর্শক হয়ে গেলেও ভারতের ব্যাটিং লাইনআপ এখনও বিশ্বসেরা। বোলিং আক্রমণও বৈচিত্র্যময়। অন্যদিকে চার ম্যাচে পাকিস্তানের প্রাপ্তি মোটে তিন পয়েন্ট। ব্যাটিংয়ে কোনো ধারাবাহিকতা নেই। বোলিংয়ে ধারাবাহিক শুধু আমির। তারপরও পাকিস্তানকে নিয়ে কখনও শেষ কথা বলা যায় না। আসরে তাদের একমাত্র জয় হট ফেভারিট ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। শেষ ম্যাচে আরেক ফেভারিট অস্ট্রেলিয়াকেও কাঁপিয়ে দিয়েছিল পাকিস্তান। ফল হওয়া তিন ম্যাচে ১০ উইকেট নেয়া আমির তাই বিশ্বকাপ মঞ্চে ভারতের বিপক্ষে প্রথম জয়ের ছবি আঁকছেন মনের ক্যানভাসে, ‘অবশ্যই আমরা ভারতকে হারাতে পারি। মানসিকভাবে আরেকটু শক্তিশালী হতে পারলেই আমরা জিতব। ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে মাঠে নামতে হবে আমাদের।’ ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে মানসিক ব্যাপারটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। অবুঝ সমর্থকদের সীমাহীন প্রত্যাশার চাপ যারা ভালোভাবে সামলাতে পারবে তাদের গলাতেই উঠবে বরমাল্য। এই চাপকেই অবশ্য প্রেরণা মানছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি, ‘এই ম্যাচের আবেদন সব সময়ই অন্যরকম। এ ধরনের বড় ম্যাচ আমাদের সেরাটা বের করে আনে। চাপ থাকে মাঠের বাইরে। একবার মাঠে নামলে কোনো কিছুই আর স্পর্শ করে না।’

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×