ছক্কাস্নাত জয়ে শীর্ষে ইংল্যান্ড
jugantor
ছক্কাস্নাত জয়ে শীর্ষে ইংল্যান্ড

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১৯ জুন ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গ্যালারির দর্শকরা হয়ে গেলেন ফিল্ডার। আর ফিল্ডাররা হয়ে থাকলেন দর্শক। ইয়ন মরগ্যানের যে চারে অরুচি! আফগান বোলারদের পিটিয়ে ছাতু করে বল শুধু গ্যালারিতেই পাঠাতে থাকলেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক। একসময় সেই ঝড় থামল বটে, কিন্তু ততক্ষণে আফগানিস্তানের মতো রেকর্ডের পাতাও লণ্ডভণ্ড।

মঙ্গলবার ওল্ড ট্রাফোর্ডে মরগ্যানের (১৪৮) খুনে সেঞ্চুরিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ছয় উইকেটে ৩৯৭ রানের পাহাড় গড়ে ইংল্যান্ড। মরগ্যানের ১৭ ও দলীয় ২৫ ছক্কার রেকর্ডে ম্যাচের প্রথমভাগ শেষেই ইংল্যান্ডের জয় একরকম নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। ব্যাটিংয়ে পুরো ৫০ ওভার টিকে থাকাই আফগানিস্তানের একমাত্র প্রাপ্তি।

চারশ’ ছুঁই ছুঁই লক্ষ্য তাড়ায় হাশমতউল্লাহ শাহিদির (৭৬) ফিফটিতে আট উইকেটে ২৪৭ রানে থামে আফগানরা। ১৫০ রানের বিশাল জয়ে পাঁচ ম্যাচে আট পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে এলো ইংল্যান্ড। নেট রানরেটে পিছিয়ে থাকায় সমান আট পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নেমে গেছে অস্ট্রেলিয়া।

অন্যদিকে টানা পঞ্চম হারে সেমিফাইনালের সম্ভাবনাও শেষ হয়ে গেল আফগানিস্তানের। ইংল্যান্ডের ২৫ ছক্কার জবাবে আফগানরা হাঁকিয়েছে আটটি ছক্কা। শাহিদির ফিফটির পাশাপাশি রান পেয়েছেন অধিনায়ক গুলবাদিন নাইব (৩৭), রহমত শাহ (৪৬) ও আসগর আফগান (৪৪)। কিন্তু ম্যাচে তাতে প্রাণ ফেরেনি। ইংল্যান্ডের পক্ষে জফরা আর্চার ও আদিল রশিদ নেন তিনটি করে উইকেট। ছক্কাস্নাত জয়ে বিশ্বকাপে আবারও নিজেদের হট ফেভারিট প্রমাণ করল স্বাগতিকরা।

৩৯৭ রান বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ সংগ্রহ। এবারের আসরে সব দল মিলিয়েও সর্বোচ্চ। দলকে রান পাহাড়ের চূড়ায় তোলার পথে ওয়ানডেতে এক ইনিংসে কোনো ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ড গড়েছেন ম্যাচসেরা মরগ্যান। তাতে ভেঙেছে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ দলীয় ছক্কার রেকর্ডও।

৩৬ বলে ফিফটি ও ৫৭ বলে সেঞ্চুরি ছোঁয়া মরগ্যান রেকর্ড ১৭ ছক্কা ও চার চারে মাত্র ৭১ বলে ১৪৮ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন। এর আগে ওয়ানডেতে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ১৬ ছক্কার রেকর্ড ছিল রোহিত শর্মা, এবি ডি ভিলিয়ার্স ও ক্রিস গেইলের। সবমিলিয়ে ২৫ ছক্কায় রেকর্ড গড়েছে ইংল্যান্ডও।

২৪ ছক্কার আগের রেকর্ডটিও অবশ্য তাদেরই ছিল। লজ্জায় মুখ লুকানোর মতো একটি রেকর্ড গড়েছেন আফগানিস্তানের তারকা বোলার রশিদ খানও। বিশ্বকাপে সবচেয়ে খরুচে বোলিংয়ের রেকর্ড এখন এই লেগ-স্পিনারের। কাল নয় ওভারে ১১০ রান দিয়ে উইকেটশূন্য ছিলেন রশিদ।

এক মুজিব উর রহমান ছাড়া আফগানিস্তানের সব বোলারের ওপর দিয়েই ঝড় বয়ে গেছে। অধিনায়ক গুলবাদিন নাইব ও দৌলত জাদরান নেন তিনটি করে উইকেট। দৌলত ১০ ওভারে গুনেছেন ৮৫ রান।

ইংল্যান্ডের ইনিংসে সেঞ্চুরি হতে পারত তিনটি। জনি বেয়ারস্টো ৯৯ বলে ৯০ ও জো রুট ৮২ বলে ৮৮ রানে আউট হন। কিন্তু মরগ্যানের তাণ্ডবে বাকি সবাই চলে গেছেন আড়ালে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আগের ম্যাচে পিঠে চোট পাওয়ায় মরগ্যানের খেলা নিয়ে ছিল অনিশ্চয়তা।

সেই মরগ্যানই বইয়ে দিলেন ঝড়। খেললেন ক্যারিয়ারসেরা ইনিংস। ক্যারিয়ারের ১৩তম ওয়ানডে সেঞ্চুরি পেয়ে গেলেন মাত্র ৫৭ বলে। বিশ্বকাপ ইতিহাসের চতুর্থ দ্রুততম সেঞ্চুরি এটি। তৃতীয় উইকেটে রুটের সঙ্গে মরগ্যানের ১৮৯ রানের যুগলবন্দি বিশ্বকাপে যে কোনো উইকেটে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ জুটি। যে জুটিতে রুটের অবদান মাত্র ৩৩ রান!

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা ইংল্যান্ডের শুরুটা দেখে বোঝা যায়নি এমন দুর্ভোগ অপেক্ষা করছে আফগানদের জন্য। চোট পাওয়া জেসন রয়ের জায়গায় ওপেনিংয়ে নামা জেমস ভিন্স থামেন ২৬ রানে। এরপর বেয়ারস্টো ও রুটের ১২০ রানের জুটিতেও ছিল না ঝড়ের পূর্বাভাস।

প্রথম ৩৫ ওভারে ইংল্যান্ড তুলেছিল ১৯৯ রান। এরপরই রুদ্ররূপে হাজির হন মরগ্যান। ৪৭তম ওভারে মরগ্যান-ঝড় থামার পর চার ছক্কায় মাত্র নয় বলে ৩১* রানের বিস্ফোরক ইনিংসে ইংল্যান্ডকে চারশ’র কাছাকাছি নিয়ে যান মঈন আলী।
ইংল্যান্ড ৩৯৭/৬, ৫০ ওভারে
আফগানিস্তান ২৪৭/৮, ৫০ ওভারে
ফল : ইংল্যান্ড ১৫০ রানে জয়ী

ছক্কাস্নাত জয়ে শীর্ষে ইংল্যান্ড

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১৯ জুন ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গ্যালারির দর্শকরা হয়ে গেলেন ফিল্ডার। আর ফিল্ডাররা হয়ে থাকলেন দর্শক। ইয়ন মরগ্যানের যে চারে অরুচি! আফগান বোলারদের পিটিয়ে ছাতু করে বল শুধু গ্যালারিতেই পাঠাতে থাকলেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক। একসময় সেই ঝড় থামল বটে, কিন্তু ততক্ষণে আফগানিস্তানের মতো রেকর্ডের পাতাও লণ্ডভণ্ড।

মঙ্গলবার ওল্ড ট্রাফোর্ডে মরগ্যানের (১৪৮) খুনে সেঞ্চুরিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ছয় উইকেটে ৩৯৭ রানের পাহাড় গড়ে ইংল্যান্ড। মরগ্যানের ১৭ ও দলীয় ২৫ ছক্কার রেকর্ডে ম্যাচের প্রথমভাগ শেষেই ইংল্যান্ডের জয় একরকম নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। ব্যাটিংয়ে পুরো ৫০ ওভার টিকে থাকাই আফগানিস্তানের একমাত্র প্রাপ্তি।

চারশ’ ছুঁই ছুঁই লক্ষ্য তাড়ায় হাশমতউল্লাহ শাহিদির (৭৬) ফিফটিতে আট উইকেটে ২৪৭ রানে থামে আফগানরা। ১৫০ রানের বিশাল জয়ে পাঁচ ম্যাচে আট পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে এলো ইংল্যান্ড। নেট রানরেটে পিছিয়ে থাকায় সমান আট পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নেমে গেছে অস্ট্রেলিয়া।

অন্যদিকে টানা পঞ্চম হারে সেমিফাইনালের সম্ভাবনাও শেষ হয়ে গেল আফগানিস্তানের। ইংল্যান্ডের ২৫ ছক্কার জবাবে আফগানরা হাঁকিয়েছে আটটি ছক্কা। শাহিদির ফিফটির পাশাপাশি রান পেয়েছেন অধিনায়ক গুলবাদিন নাইব (৩৭), রহমত শাহ (৪৬) ও আসগর আফগান (৪৪)। কিন্তু ম্যাচে তাতে প্রাণ ফেরেনি। ইংল্যান্ডের পক্ষে জফরা আর্চার ও আদিল রশিদ নেন তিনটি করে উইকেট। ছক্কাস্নাত জয়ে বিশ্বকাপে আবারও নিজেদের হট ফেভারিট প্রমাণ করল স্বাগতিকরা।

৩৯৭ রান বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ সংগ্রহ। এবারের আসরে সব দল মিলিয়েও সর্বোচ্চ। দলকে রান পাহাড়ের চূড়ায় তোলার পথে ওয়ানডেতে এক ইনিংসে কোনো ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ড গড়েছেন ম্যাচসেরা মরগ্যান। তাতে ভেঙেছে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ দলীয় ছক্কার রেকর্ডও।

৩৬ বলে ফিফটি ও ৫৭ বলে সেঞ্চুরি ছোঁয়া মরগ্যান রেকর্ড ১৭ ছক্কা ও চার চারে মাত্র ৭১ বলে ১৪৮ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন। এর আগে ওয়ানডেতে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ১৬ ছক্কার রেকর্ড ছিল রোহিত শর্মা, এবি ডি ভিলিয়ার্স ও ক্রিস গেইলের। সবমিলিয়ে ২৫ ছক্কায় রেকর্ড গড়েছে ইংল্যান্ডও।

২৪ ছক্কার আগের রেকর্ডটিও অবশ্য তাদেরই ছিল। লজ্জায় মুখ লুকানোর মতো একটি রেকর্ড গড়েছেন আফগানিস্তানের তারকা বোলার রশিদ খানও। বিশ্বকাপে সবচেয়ে খরুচে বোলিংয়ের রেকর্ড এখন এই লেগ-স্পিনারের। কাল নয় ওভারে ১১০ রান দিয়ে উইকেটশূন্য ছিলেন রশিদ।

এক মুজিব উর রহমান ছাড়া আফগানিস্তানের সব বোলারের ওপর দিয়েই ঝড় বয়ে গেছে। অধিনায়ক গুলবাদিন নাইব ও দৌলত জাদরান নেন তিনটি করে উইকেট। দৌলত ১০ ওভারে গুনেছেন ৮৫ রান।

ইংল্যান্ডের ইনিংসে সেঞ্চুরি হতে পারত তিনটি। জনি বেয়ারস্টো ৯৯ বলে ৯০ ও জো রুট ৮২ বলে ৮৮ রানে আউট হন। কিন্তু মরগ্যানের তাণ্ডবে বাকি সবাই চলে গেছেন আড়ালে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আগের ম্যাচে পিঠে চোট পাওয়ায় মরগ্যানের খেলা নিয়ে ছিল অনিশ্চয়তা।

সেই মরগ্যানই বইয়ে দিলেন ঝড়। খেললেন ক্যারিয়ারসেরা ইনিংস। ক্যারিয়ারের ১৩তম ওয়ানডে সেঞ্চুরি পেয়ে গেলেন মাত্র ৫৭ বলে। বিশ্বকাপ ইতিহাসের চতুর্থ দ্রুততম সেঞ্চুরি এটি। তৃতীয় উইকেটে রুটের সঙ্গে মরগ্যানের ১৮৯ রানের যুগলবন্দি বিশ্বকাপে যে কোনো উইকেটে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ জুটি। যে জুটিতে রুটের অবদান মাত্র ৩৩ রান!

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা ইংল্যান্ডের শুরুটা দেখে বোঝা যায়নি এমন দুর্ভোগ অপেক্ষা করছে আফগানদের জন্য। চোট পাওয়া জেসন রয়ের জায়গায় ওপেনিংয়ে নামা জেমস ভিন্স থামেন ২৬ রানে। এরপর বেয়ারস্টো ও রুটের ১২০ রানের জুটিতেও ছিল না ঝড়ের পূর্বাভাস।

প্রথম ৩৫ ওভারে ইংল্যান্ড তুলেছিল ১৯৯ রান। এরপরই রুদ্ররূপে হাজির হন মরগ্যান। ৪৭তম ওভারে মরগ্যান-ঝড় থামার পর চার ছক্কায় মাত্র নয় বলে ৩১* রানের বিস্ফোরক ইনিংসে ইংল্যান্ডকে চারশ’র কাছাকাছি নিয়ে যান মঈন আলী।
ইংল্যান্ড ৩৯৭/৬, ৫০ ওভারে
আফগানিস্তান ২৪৭/৮, ৫০ ওভারে
ফল : ইংল্যান্ড ১৫০ রানে জয়ী