কুলাউড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনা: সম্ভাব্য ৬ কারণ সামনে রেখে তদন্ত শুরু

আজ ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যাচ্ছেন রেলমন্ত্রী * নিহতদের পরিবারকে লাখ টাকা করে দেয়া হচ্ছে

  যুগান্তর ডেস্ক ২৬ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কুলাউড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনা: সম্ভাব্য ৬ কারণ সামনে রেখে তদন্ত শুরু

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার বরমচালে রেল দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে কাজ শুরু করেছে দুই তদন্ত কমিটি। প্রাথমিক পর্যায়ে সম্ভাব্য ৬টি কারণকে প্রাধান্য দিয়ে কাজ শুরু করেছে কমিটি।

রেললাইনে ত্রুটি ছিল কি না এবং ট্রেনের বগির চাকার অ্যালাইনমেন্ট ঠিক ছিল কি না- এ দুটিকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। এছাড়া দুর্ঘটনাস্থলের ব্রিজে কোনো সমস্যা ছিল কি না, যাত্রীর চাপ, ট্রেনের গতি এবং মনুষ্যসৃষ্ট কোনো কারণ আছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। মঙ্গলবার কমিটির সদস্যরা দিনভর কয়েক দফা বৈঠক করেছেন। তদন্তের জন্য আজ তারা সময় চেয়ে মন্ত্রণালয়ে আবেদন করতে পারেন বলে জানা গেছে।

এদিকে আজ বুধবার রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনসহ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা রেলে চেপে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যাচ্ছেন। তারা হাসপাতল ও স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আহতদের দেখতে যাবেন। দুর্ঘটনায় নিহত ৪ জনের পরিবারকে এক লাখ টাকা করে দেয়া হবে রেল মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে। মৌলভীবাজারের ডিসি তোফায়েল ইসলাম বলেছেন, মন্ত্রী বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করবেন।

এদিকে রেল দুর্ঘটনার কারণ জানতে বরমচালের সংশ্লিষ্ট স্টেশন মাস্টার রোমান আহমদকে মঙ্গলবার ঢাকায় ডেকে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া দুর্ঘটনাস্থলে গতকালও রেললাইনের দুই পাশে ৪টি বগিকে পড়ে থাকতে দেখা গেছে। খবর স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট ব্যুরো, কুলাউড়া ও মৌলভীবাজর প্রতিনিধিদের।

রেল সচিব মোফাজ্জেল হোসেন যুগান্তরকে বলেন, দুটি তদন্ত কমিটি কাজ শুরু করেছে। সম্ভাব্য সব কারণ সামনে রেখে তারা কাজ করছে। তদন্ত শেষে প্রকৃত কারণ জানা যাবে। কারও গাফিলতির প্রমাণ পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

একটি তদন্ত কমিটির প্রধান রেলওয়ের পূর্বঞ্চলের প্রধান যান্ত্রিক প্রকৌশলী মিজানুর রহমান যুগান্তরকে জানান, তদন্ত প্রতিবেদনটি গুরুত্বপূর্র্ণ। ভালোভাবে কারণ খতিয়ে দেখতে চাই। সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে কমিটির বৈঠকে সবাই আরও সময় চাওয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন। সব কিছুকেই আমরা আমলে নেব।

সূত্র জানায়, ঢাকা-সিলেট রুটের রেললাইনে আগেও অনেক দুর্ঘটনা ঘটেছে। তবে হতাহত না হওয়ায় বিষয়গুলো খুব বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়নি। বরমচালের এ রেলসেতুটি দীর্ঘদিন ধরেই ঝুঁকিপূর্ণ। রেললাইনটিও জরাজীর্ণ। সংশ্লিষ্টরা বিষয়গুলো জানতেন কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। যদি সমস্যা জানার পরও সমাধানে সংশ্লিষ্টরা উদ্যোগ না নেন তবে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে দুর্ঘটনার পেছনে মনুষ্যসৃষ্ট কোনো কারণ থাকতে পারে। দুর্বৃত্তরা রেললাইনে কোনো ত্রুটি সৃষ্টি করে বড় ধরনের কোনো ষড়যন্ত্র করেছে কি না, এ বিষয়টিকেও গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে স্থানীয়রা ছুটে আসেন। কিছু নমুনা দেখিয়ে বলেন, এই রেললাইনে সংযোগস্থলগুলোয় ৮টি করে ক্লিপ থাকার কথা। কিন্তু কোথাও একটি, কোথাও কোনো ক্লিপই নেই। এছাড়া রেলের স্লিপারের মধ্যে পাথরও নেই, যা আছে তা ঘাসে ঢেকে গেছে।

৭০ ঊর্ধ্ব মাসুক মিয়া, জাকারিয়া আলম, সুলতান আহমদ চৌধুরী, সিপন আহমদ জানান, স্টেশনে ৩টি লাইন রয়েছে। ৩ নম্বর লাইনটি বন্ধ আগেই। দুর্ঘটনার পর থেকে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে ১ নম্বর লাইনটি। এখন ২ নম্বর লাইন দিয়ে ট্রেন চলাচল করছে। এমতাবস্থায় বরমচাল স্টেশনে কোনো ট্রেন ক্রসিং করা মোটেও সম্ভব নয়। ফলে এই ট্রেনলাইনে আরও বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। রেলমন্ত্রী পরিদর্শনে আসবে জানতে পারলাম, পুরো বিষয়টি মন্ত্রীর কাছে তুলে ধরবেন বলে জানান তারা।

সিলেটে ৩ দিনের শোক : ট্রেন দুর্ঘটনায় সিলেট নার্সিং কলেজের দুই ছাত্রীর মৃত্যুতে মঙ্গলবার থেকে ৩ দিনের শোক কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। সানজিদা ও ইভার মর্মান্তিক মৃত্যুতে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজ যৌথভাবে শোক কর্মসূচি ঘোষণা করে।

নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন ওসমানী হাসপাতাল শাখার সাধারণ সম্পাদক ইসমাঈল হোসেন সাদেক বলেন, কর্মরত নার্স, শিক্ষক ও ডাক্তাররা কালো ব্যাজ ধারণ করে শোক পালন করছেন। রোববার রাতে কুলাউড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত হন সিলেট নার্সিং কলেজের শেষ বর্ষের ছাত্রী সানজিদা আক্তার ও ফাহমিদা আক্তার ইভা।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইউনুসুর রহমান সানজিদার মায়ের কাছে লাশ হস্তান্তর করেন। সানজিদার বাড়ি খুলনা জেলার বাগেরহাটে। এ সময় ইউনুসুর রহমান জানান, ট্রেন দুর্ঘটনায় হাসপাতালে ভর্তি আহত সবাই চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এই মুহূর্তে হাসপাতালে মাত্র দু’জন রোগী ভর্তি আছেন। তারাও দুই-একদিনের মধ্য ছাড়া পাবেন। সবাইকে ফ্রি চিকিৎসা, ওষুধ দেয়া হয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : কুলাউড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনা

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×