সিরাজগঞ্জে মাইক্রোবাসকে ট্রেনের ধাক্কা, বর-কনেসহ নিহত ৯
jugantor
সিরাজগঞ্জে মাইক্রোবাসকে ট্রেনের ধাক্কা, বর-কনেসহ নিহত ৯

  উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি  

১৬ জুলাই ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মাইক্রোবাসকে ট্রেনের ধাক্কা

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ট্রেনের ধাক্কায় একটি মাইক্রোবাসের ৯ যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন তিনজন। সোমবার সন্ধ্যায় সলপ রেলস্টেশনের আধা কিলোমিটার উত্তরে অরক্ষিত একটি লেভেল ক্রসিংয়ে মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনা ঘটে। মাইক্রোবাসটি একটি বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে বর-কনে নিয়ে ফিরছিল।

দুর্ঘটনায় বর রাজন আহমেদ, নববধূ সুমাইয়া খাতুন ছাড়াও বরের স্বজন মমতাজ বেগম, শরিফ শেখ, আজম খান ও মাইক্রোবাস চালক স্বাধীন নিহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে অন্যদের পরিচয় জানা যায়নি।

এলাকাবাসী, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী পদ্মা ট্রেনটি দ্রুতগতিতে সলপ রেলস্টেশন হয়ে যাচ্ছিল। ঠিক এ সময় রেলস্টেশনের আধা কিলোমিটার উত্তরে অরক্ষিত লেভেল ক্রসিং দিয়ে মাইক্রোবাসটি রেললাইন পার হচ্ছিল। রেললাইন পার হওয়ার আগেই ট্রেনটি মাইক্রোবাসটিকে সজোরে ধাক্কা দেয়।

ট্রেনটি মাইক্রোবাসটিকে প্রায় আধা কিলোমিটার দূরে ঠেলে সাহিকোলা গ্রামের কাছে নিয়ে যায়। এ সময় গ্রামের লোকজন ট্রেনটিকে অবরোধ করে রাখে। পুলিশ গিয়ে এক ঘণ্টা পর ট্রেনটি গন্তব্যস্থলে পৌঁছার ব্যবস্থা করে।

উল্লাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেয়ান কউসিক আহমেদ ও উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন মাস্টার নাজির হোসেন জানান, সিরাজগঞ্জ উপজেলার কালিয়াকান্দাপাড়া গ্রামের আলতাব হোসেনের ছেলে রাজন আহমেদ দুপুরে উল্লাপাড়ার চরঘাটিনা গুচ্ছগ্রামের আবদুল গফুর শেখের মেয়ে সুমাইয়াকে বিয়ে করতে আসেন।

বিয়ে শেষে নববধূকে নিয়ে রাজনসহ ১২ জন মাইক্রোবাসে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে তারা দুর্ঘটনার শিকার হন। ঘটনাস্থলেই ৯ জন নিহত হন। কয়েকজনের দেহ ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছে। তাদের চেনার উপায় নেই। দুর্ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছেন। তাদের সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আর লাশগুলো ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিস, থানা পুলিশ ও স্থানীয়রা উদ্ধার কাজে এগিয়ে আসেন। তারা আহত তিনজনকে দ্রুত হাসপাতালে পাঠান।

উলিপুরে ট্রেন লাইনচ্যুত, আহত ১০ : উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি জানান, উলিপুরে রমনা থেকে তিস্তাগামী একটি ট্রেন লাইনচ্যুত হয়ে ১০ জন আহত হয়েছেন। অতি বৃষ্টির কারণে মাটি নরম হয়ে লাইন দেবে যাওয়ায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এতে উলিপুর-চিলমারী সড়কে ১ ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সোমবার বিকাল ৫টার দিকে উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নের রেলঘুণ্টি নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, রমনা থেকে ট্রেনটি রেলঘুণ্টি পৌঁছলে উলিপুর-চিলমারী সড়কের ওপর ৩টি বগি লাইনচ্যুত হয়। এ সময় আতঙ্কে ট্রেন থেকে লাফিয়ে পড়ে ১০ যাত্রী আহত হন। আহতদের অনেকেই পার্শ্ববর্তী চিলমারী উপজেলার বাসিন্দা।

সিরাজগঞ্জে মাইক্রোবাসকে ট্রেনের ধাক্কা, বর-কনেসহ নিহত ৯

 উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি 
১৬ জুলাই ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
মাইক্রোবাসকে ট্রেনের ধাক্কা
মাইক্রোবাসকে ট্রেনের ধাক্কা। ছবি: যুগান্তর

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ট্রেনের ধাক্কায় একটি মাইক্রোবাসের ৯ যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন তিনজন। সোমবার সন্ধ্যায় সলপ রেলস্টেশনের আধা কিলোমিটার উত্তরে অরক্ষিত একটি লেভেল ক্রসিংয়ে মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনা ঘটে। মাইক্রোবাসটি একটি বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে বর-কনে নিয়ে ফিরছিল।

দুর্ঘটনায় বর রাজন আহমেদ, নববধূ সুমাইয়া খাতুন ছাড়াও বরের স্বজন মমতাজ বেগম, শরিফ শেখ, আজম খান ও মাইক্রোবাস চালক স্বাধীন নিহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে অন্যদের পরিচয় জানা যায়নি।

এলাকাবাসী, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী পদ্মা ট্রেনটি দ্রুতগতিতে সলপ রেলস্টেশন হয়ে যাচ্ছিল। ঠিক এ সময় রেলস্টেশনের আধা কিলোমিটার উত্তরে অরক্ষিত লেভেল ক্রসিং দিয়ে মাইক্রোবাসটি রেললাইন পার হচ্ছিল। রেললাইন পার হওয়ার আগেই ট্রেনটি মাইক্রোবাসটিকে সজোরে ধাক্কা দেয়।

ট্রেনটি মাইক্রোবাসটিকে প্রায় আধা কিলোমিটার দূরে ঠেলে সাহিকোলা গ্রামের কাছে নিয়ে যায়। এ সময় গ্রামের লোকজন ট্রেনটিকে অবরোধ করে রাখে। পুলিশ গিয়ে এক ঘণ্টা পর ট্রেনটি গন্তব্যস্থলে পৌঁছার ব্যবস্থা করে।

উল্লাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেয়ান কউসিক আহমেদ ও উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন মাস্টার নাজির হোসেন জানান, সিরাজগঞ্জ উপজেলার কালিয়াকান্দাপাড়া গ্রামের আলতাব হোসেনের ছেলে রাজন আহমেদ দুপুরে উল্লাপাড়ার চরঘাটিনা গুচ্ছগ্রামের আবদুল গফুর শেখের মেয়ে সুমাইয়াকে বিয়ে করতে আসেন।

বিয়ে শেষে নববধূকে নিয়ে রাজনসহ ১২ জন মাইক্রোবাসে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে তারা দুর্ঘটনার শিকার হন। ঘটনাস্থলেই ৯ জন নিহত হন। কয়েকজনের দেহ ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছে। তাদের চেনার উপায় নেই। দুর্ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছেন। তাদের সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আর লাশগুলো ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিস, থানা পুলিশ ও স্থানীয়রা উদ্ধার কাজে এগিয়ে আসেন। তারা আহত তিনজনকে দ্রুত হাসপাতালে পাঠান।

উলিপুরে ট্রেন লাইনচ্যুত, আহত ১০ : উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি জানান, উলিপুরে রমনা থেকে তিস্তাগামী একটি ট্রেন লাইনচ্যুত হয়ে ১০ জন আহত হয়েছেন। অতি বৃষ্টির কারণে মাটি নরম হয়ে লাইন দেবে যাওয়ায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এতে উলিপুর-চিলমারী সড়কে ১ ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সোমবার বিকাল ৫টার দিকে উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নের রেলঘুণ্টি নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, রমনা থেকে ট্রেনটি রেলঘুণ্টি পৌঁছলে উলিপুর-চিলমারী সড়কের ওপর ৩টি বগি লাইনচ্যুত হয়। এ সময় আতঙ্কে ট্রেন থেকে লাফিয়ে পড়ে ১০ যাত্রী আহত হন। আহতদের অনেকেই পার্শ্ববর্তী চিলমারী উপজেলার বাসিন্দা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন