চীনবিরোধী বিক্ষোভ: হংকংয়ের রাজপথে হাজার হাজার শিক্ষার্থী

ঝড়বৃষ্টি উপেক্ষা, আজও বিক্ষোভের প্রস্তুতি

  যুগান্তর ডেস্ক ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ঝড়বৃষ্টি উপেক্ষা করে হাজার হাজার শিক্ষক-শিক্ষার্থী হংকংয়ের রাজপথে চীনবিরোধী বিক্ষোভ করেছে। গণতন্ত্রের দাবিতে টানা ১১ সপ্তাহ চলা বিক্ষোভ কর্মসূচিতে শনিবার রাজপথে নামেন তারা।
ছবি: সংগৃহীত

ঝড়বৃষ্টি উপেক্ষা করে হাজার হাজার শিক্ষক-শিক্ষার্থী হংকংয়ের রাজপথে চীনবিরোধী বিক্ষোভ করেছে। গণতন্ত্রের দাবিতে টানা ১১ সপ্তাহ চলা বিক্ষোভ কর্মসূচিতে শনিবার রাজপথে নামেন তারা।

এদিকে এ বিক্ষোভ নিয়ে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছে চীন। হংকং সীমান্তবর্তী শেনঝেনে সামরিক মহড়াও চালিয়েছে বেইজিং। খবর বিবিসি ও রয়টার্সের।

পুলিশ বলছে, এদিন শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে সাড়ে আট হাজার বিক্ষোভকারী অংশ নেয়। তবে আন্দোলনকারীরা বলছেন, এ সংখ্যা ২২ হাজার ছাড়িয়ে যাবে। রোববার ফের বড় ধরনের বিক্ষোভের প্রস্তুতি চলছে। বিতর্কিত প্রত্যর্পণ আইনের বিরোধিতায় টানা ১১ সপ্তাহ চলা এ বিক্ষোভ ক্রমেই সহিংস হয়ে উঠছে।

অব্যাহত আন্দোলন-বিক্ষোভ জনজীবনে বড় ধরনের ব্যাঘাত তৈরি করছে। বিক্ষোভকারীদের প্রতি চীন সরকার কঠোর ভাষায় সমালোচনা করছে। বিক্ষোভে অংশ নেয়া গণিতের শিক্ষক সিএস চান বলেন, কয়েক মাস ধরে সরকার আমাদের উপেক্ষা করছে। আমরা বিক্ষোভ অব্যাহত রাখব। ১৯৯৭ সালে যুক্তরাজ্যের কাছ থেকে হংকংকে পায় চীন।

এরপর অঞ্চলটির সংক্ষিপ্ত নতুন সংবিধান তৈরি করা হয়। এ অনুযায়ী হংকং সরকার চাইলে চীন সামরিক হস্তক্ষেপ করতে পারবে।

এছাড়া ‘জনশৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে এবং দুর্যোগের সময় ত্রাণকাজে’ চীন হংকংয়ে সামরিক বাহিনী পাঠাতে পারবে। তবে বেশির ভাগ বিশ্লেষক বলছেন, এ পর্যায়ে পিএলএ বা পিপলস লিবারেশন আর্মির সেনাদের হংকংয়ের রাস্তায় নামানোর বিষয়টি অনেকটা অকল্পনীয়। হস্তান্তরের পর থেকে হংকংয়ে পিএলএ’র প্রায় পাঁচ হাজার সেনা রয়েছে।

ম্যাককোয়ারি ইউনিভার্সিটির গবেষক অ্যাডাম নাই বলেন, এটা মূলত চীনা সার্বভৌমত্বের একটা প্রতীকী উপস্থিতি। তবে ৩১ জুলাই সেনানিবাস তাদের নীরব ও পরোক্ষ ভূমিকা ভঙ্গ করেছে। প্রতিবাদ নিয়ে একটি ভিডিও প্রকাশ পেয়েছে।

এতে দেখা যায়, সেনারা ক্যান্টনিজ ভাষায় চিৎকার করছে, এর পরিণতির জন্য আপনারা দায়ী থাকবেন! সেনারা বিক্ষোভকারীদের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে এবং ফুটেজের একটি দৃশ্যে দেখা যায়, পুলিশ একটি ব্যানার ধরে রয়েছে।

এতে লেখা, অগ্রসর হওয়া বন্ধ কর, অন্যথায় আমরা শক্তি ব্যবহার করব। সাধারণত অসন্তোষের সময় হংকং পুলিশ এ ধরনের ভাষা ব্যবহার করে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×