মিয়ানমার জেনারেলদের ওপর নিষেধাজ্ঞায় সম্মত ইইউ

নামের তালিকা নিয়ে আরও আলোচনা হবে * একের অধিক জেনারেলের ওপর অবরোধ আরোপ হতে পারে

  যুগান্তর ডেস্ক ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাখাইনের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে হত্যা ও নির্যাতনের অভিযোগে মিয়ানমারের জ্যেষ্ঠ সেনা কর্মকর্তাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপে সম্মত হয়েছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) পররাষ্ট্র মন্ত্রীরা। দেশটির ওপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়েও একমত হয়েছেন তারা। ইইউর পররাষ্ট্র নীতিবিষয়ক প্রধান ফেডরিকা মোঘেরিনির ডাকে সোমবার বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। তবে নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা মিয়ানমার জেনারেলদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়নি। তালিকা প্রস্তুত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ইউরোপের দুই কূটনীতিক। খবর রয়টার্সের।

২৫ আগস্ট রাখাইনের কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার পর পূর্বপরিকল্পিত ও কাঠামোবদ্ধ সহিংসতা জোরালো করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। হত্যা-ধর্ষণসহ বিভিন্ন সহিংসতা ও নিপীড়ন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর প্রায় সাত লাখের মতো মানুষ। বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন এ ঘটনায় খুঁজে পেয়েছে মানবতাবিরোধী অপরাধের আলামত। এ ঘটনাকে জাতিগত নিধনযজ্ঞের ‘পাঠ্যপুস্তকীয় উদাহরণ’ আখ্যা দিয়েছে জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশন। তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী।

এক বিবৃতিতে ইইউ মন্ত্রীরা জানান, ‘রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মারাত্মক ও কৌশলগত মানবাধিকার লংঘনের ঘটনায় জড়িত মিয়ানমারের সশস্ত্রবাহিনীর জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে টার্গেটেড নিষেধাজ্ঞা আনা হবে। এছাড়া ১৯৯০-এর দশকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশটির ওপর আনা অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরও জোরালো করতে চান ইইউ পররাষ্ট্র মন্ত্রীরা। যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার পর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ওপর নিষেধাজ্ঞা আনার তালিকায় নাম লেখাতে যাচ্ছে ইইউ।

বৈঠকে বেশ কিছু ব্যক্তির ইউরোপ ভ্রমণ ও সম্পদ বাজেয়াপ্ত করার প্রস্তাবেও একমত হয়েছেন মন্ত্রীরা। তবে কাদের ওপর এসব নিষেধাজ্ঞা আনা হবে, তা নিয়ে এখনও আলোচনা চলছে বলে জানান দুই ইইউ কূটনীতিক। তারা বলেন, নিষেধাজ্ঞার আলোচনা হলেও বৈঠকে মিয়ানমারের কোনো সেনা কর্মকর্তার নাম উল্লেখ করা হয়নি। দুই কূটনীতিক বলেন, রাখাইনে রোহিঙ্গা সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর জন্য গত ডিসেম্বরে মেজর জেনারেল মং মং সোয়ের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। একজন কূটনীতিক বলেন, ইইউর নিধেষাজ্ঞার তালিকায় মিয়ানমারের একজনের বেশি জ্যেষ্ঠ সামরিক কর্মকর্তার নাম থাকতে পারে। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে একই ধরনের আরেকটি নিধেষাজ্ঞা আরোপের চেষ্টা করা হলেও ভেটো ক্ষমতার শক্তিতে চীন ও রাশিয়া তাতে বাধা দেয়। উভয় দেশ বলেছে, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে এখন পরিস্থিতি স্থিতিশীল ও নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে তারা বিশ্বাস করে। ওই বাধার প্রতিবাদেই ইইউ এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে যাচ্ছে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.