উপজেলায় পদ চাইতে এমপিদের নিরুৎসাহিত করছে আ’লীগ : ওবায়দুল কাদের

পেঁয়াজ সিন্ডিকেট চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

দলীয় সংসদ সদস্যদের উপজেলা পর্যায়ে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হতে আওয়ামী লীগ নিরুৎসাহিত করছে বলে জানিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, উপজেলা পর্যায়ে আমরা একটা নির্দেশনা দিচ্ছি। আমাদের নেত্রী বৃহস্পতিবার নির্দেশ দিয়েছেন। উপজেলা পর্যায়ে দেখা যাচ্ছে নিজ নির্বাচনী এলাকায় সংসদ সদস্যরা সভাপতি পদপ্রার্থী হন।আমরা এটা নিরুৎসাহিত করছি। উপজেলা পর্যায়ে সংসদ সদস্যদের আমরা অনুরোধ করছি, তারা যেন সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে না এসে, ত্যাগী ও দুঃসময়ের নেতাকর্মীদের একটা সুযোগ করে দেন। কারণ তাদেরও অধিকার আছে। তারা এমপি হতে পারেননি, দলের নেতৃত্বও পাবেন না, এটা তো হয় না।

আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে শুক্রবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের আগামী জাতীয় সম্মেলনে নতুন মুখ কারা আসছেন এমন প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ সিদ্ধান্ত নেয়ার মালিক আমাদের সভাপতি, এ ক্ষমতা আমাদের গঠনতন্ত্রে দেয়া আছে। আমাদের নেত্রী, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা নির্ধারণ করবেন, কে আসবে দলে। আমাদের দলে শেখ হাসিনা ছাড়া আর কেউ অপরিহার্য ব্যক্তি নন। পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, আমরা কেউই অপরিহার্য নই।

সাধারণ সম্পাদক পদে পরিবর্তন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নেত্রী চাইলে পরিবর্তন হবে। এখানে কোনো প্রতিযোগিতা নেই। কারও কারও ইচ্ছা-আকাক্সক্ষা থাকতে পারে। সাধারণ সম্পাদক পদেও প্রার্থী থাকতে পারে। সেখানে কোনো অসুবিধা নেই। আমি যদি মনে করি- আমার প্রতিদ্বন্দ্বী আর কেউ হতে পারবে না, এটাতো ঠিক না। প্রার্থী হওয়ার অধিকার সবার আছে।

আগামী জাতীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে এখন পর্যন্ত দলের কমিটির কলেবর বাড়ানোর চিন্তা-ভাবনা নেই জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, কমিটিতে ৮১ জনই থাকবে। আমাদের নেত্রী যেটা মনে করছেন- আপাতত কমিটিতে সংখ্যা বাড়ানোর কোনো ইচ্ছে নেই। কোনো পদও বাড়ার সম্ভাবনা নেই। আমাদের বর্তমান কমিটিতেই একজন সদস্য ও দু’জন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যের পদ খালি আছে। সেগুলো এ মুহূর্তে পূরণ হবে না। সম্মেলনের মধ্য দিয়েই আমরা পুরো কমিটি করে ফেলব, এটাই আমাদের সিদ্ধান্ত।

আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলনে বিএনপিসহ দেশের সব নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ জানানো হবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, সব নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলকেই আমন্ত্রণ জানানো হবে। প্রতিবারই যাদের আমন্ত্রণ করি এবারও তাদের আমন্ত্রণ জানানো হবে। জোট নেতাদেরও আমন্ত্রণ জানানো হবে। বিএনপিকেও দাওয়াত দেব। বিদেশি প্রতিনিধি যেহেতু মুজিববর্ষে আসবে, সেজন্য জাতীয় সম্মেলনে আমরা তাদের দাওয়াত দিচ্ছি না। কূটনীতিকদের আমন্ত্রণ জানানো হবে।

জাতীয় সম্মেলনের প্রস্তুতি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের বর্তমান মঞ্চে জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। নৌকার আদলে মঞ্চ হচ্ছে। সম্মেলন জাঁকজমকপূর্ণ হবে না। তবে মুজিববর্ষ জাঁকজমকপূর্ণ হবে। বর্ণিল না হলেও সমাগম বেশি হবে। সম্মেলনে দেশের প্রবীণ রাজনীতিকদের সংবর্ধনা দেয়া হবে।

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের উত্তরে সেতুমন্ত্রী বলেন, সিন্ডিকেটের কারণে পেঁয়াজের বাজারে এ অবস্থা হয়েছে। যাদের কারণে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে তাদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে। শিগগিরই পেঁয়াজের দাম কমে যাবে। বিভিন্ন দেশ থেকে প্রচুর পরিমাণে পেঁয়াজ আমদানি করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন- পেঁয়াজ, চাল, ধানসহ বিভিন্ন সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয় বলেই পরে তা আবার স্বাভাবিক হয়ে আসে।পেঁয়াজের সিন্ডিকেট চিহ্নিত হলে অবশ্যই সাজা পাবে তারা।

বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার জামিন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি তো আইনের শাসনে বিশ্বাসী না। তারা আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে চান না। বিএনপি নেতারা নিজেরাই বারবার বলছেন, তারা দুর্বার আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে জেল থেকে বের করে আনতে চান। আমরা তাদের দুর্বার আন্দোলন দেখার অপেক্ষায় আছি।

সহযোগী সংগঠনগুলোর সম্মেলনে বিশৃঙ্খলা প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, সম্মেলনকে কেন্দ্র করে খুব বেশি সংঘর্ষ চোখে পড়েনি। স্বেচ্ছাসেবক লীগ উত্তরের সম্মেলনে যে পরিমাণ লোক হয়েছে জাতীয় সম্মেলনেও তত লোক হয় না। এখানে বসাবসি নিয়ে তরুণদের মধ্যে একটু চেয়ার ছোড়াছুড়ি হয়েছে, এটা সত্য কথা। এ বিষয়ে জড়িতদের খুঁজে বের করতে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাদের সিরিয়াসলি নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এসএম কামাল হোসেন প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×