ইন্দোর টেস্ট: তিনদিনেই ইনিংস হারের গ্লানি

বাংলাদেশ ১৫০ ও ২১৩ * ভারত ৪৯৩/৬ ডিক্লেয়ার * ফল : ইনিংস ও ১৩০ রানে জয়ী ভারত

  স্পোর্টস ডেস্ক ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

গ্লানি

দ্বিতীয়দিন শেষেই ইন্দোর টেস্টের ফল নিয়ে সব অনিশ্চয়তা কেটে গিয়েছিল। শুধু দেখার ছিল কতটা লড়াই করতে পারে বাংলাদেশ। কিন্তু লড়াই দূরে থাক, লড়াইয়ের মানসিকতা দেখাতেও নিদারুণ ব্যর্থ মুমিনুল হকের দল।

বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশের যাত্রা শুরু হল বিব্রতকর এক হার দিয়ে। ভুলে ভরা ম্যাচে তিনদিনেই পেতে হল ইনিংস হারের গ্লানি। ইনিংস ও ১৩০ রানের বিশাল জয়ে দুই ম্যাচের সিরিজে ১-০তে এগিয়ে গেল ভারত।

ইন্দোরে সিরিজের প্রথম টেস্টে টস জয়ের পর আর কিছুই ঠিকঠাক হয়নি বাংলাদেশের। ব্যাটিং বিপর্যয় দিয়ে শুরু এবং শেষ। প্রথমদিন ১৫০ রানে গুটিয়ে গিয়েই ম্যাচ থেকে অনেকটা ছিটকে যায় বাংলাদেশ। এরপর ম্যাচসেরা মায়াংক আগরওয়ালের ডাবল সেঞ্চুরিতে ছয় উইকেটে ৪৯৩ রানের পাহাড় গড়ে আগের দিনের স্কোরেই শনিবার ইনিংস ঘোষণা করে দেয় ভারত। ৩৪৩ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে দেখা যায়নি কোনো উন্নতির ছাপ। খানিকটা লড়েছেন শুধু মুশফিকুর রহিম। কিন্তু মুশফিকের লড়াকু ফিফটিও পারেনি ম্যাচ চতুর্থদিনে টেনে নিতে। কাল বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংস যখন ২১৩ রানে থামে, তখনও তৃতীয়দিনের খেলা বাকি ১৯.৪ ওভার। ভারতের দুর্দান্ত বোলিং ইউনিটের সামনে কার্যত দাঁড়াতে পারেনি বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসে তিন উইকেট নেয়া মোহাম্মদ সামি দ্বিতীয় ইনিংসেও আগুন ঝরিয়েছেন। এবার ৩১ রানে নিয়েছেন চার উইকেট। অশ্বিনের ঝুলিতে গেছে তিন উইকেট।

বাংলাদেশের ব্যাটিং ছিল অনেকটা ‘অ্যাকশন রিপ্লে’ ধাঁচের। প্রথম ইনিংসে দুই ওপেনার করেছিলেন ছয় রান করে। এবারও ইমরুল কায়েস ও সাদমান ইসলাম ফিরলেন ঠিক ছয় রানে। দু’জনই বোল্ড। অধিনায়ক মুমিনুল হক দেশের বাইরে ব্যর্থতার ধারাবাহিকতা অক্ষুণ্ণ রেখে আউট হলেন সাত রানে। সামির পরের ওভারে আত্মঘাতী শট খেলে মিঠুনও (১৮) ধরলেন সাজঘরের পথ। ৪৪ রানেই নেই চার উইকেট। চার রানে মুশফিক জীবন না পেলে পরিস্থিতি আরও সঙ্গিন হতে পারত। দ্বিতীয় সেশনের শুরুতে সামির বলে খোঁচা মেরে মাহমুদউল্লাহও (১৫) নিজের মৃত্যু ডেকে আনেন।

এরপর সস্তা বিনোদনদায়ী ঝড়ো ব্যাটিংয়ে মুশফিককে খানিকটা সঙ্গ দিয়েছেন লিটন দাস (৩৫) ও মেহেদী হাসান মিরাজ (৩৮)। কিন্তু ৫০ ছাড়ানো দুটি জুটিতে ছিল না ম্যাচ বাঁচানোর প্রচেষ্টা। তৃতীয় সেশনের শুরুতে মিরাজের বিদায়ের পর মুশফিকও আর লড়াই চালিয়ে যেতে পারেননি। ১৫০ বলে ৬৪ রান করে অশ্বিনের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন মুশফিক। প্রথম ইনিংসেও সর্বোচ্চ ৪৩ রান এসেছিল তার ব্যাট থেকে।

নিজের পরের ওভারে ইবাদতকে ফিরিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতকে টানা ষষ্ঠ জয় এনে দেন অশ্বিন। কলকাতার ইডেন গার্ডেনে আগামী শুক্রবার শুরু হবে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট। দু’দলের জন্যই সেটি হবে গোলাপি বলে দিবা-রাত্রির প্রথম টেস্ট।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×