কৃষ্ণা রায়কে চাপা: অনুমতি ছাড়াই বাসটি রুট পরিবর্তন করে চলছিল

হেলপার গ্রেফতার মালিক জামিনে

  ইকবাল হাসান ফরিদ ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রুট পরিবর্তন

রাজধানীর বাংলামোটরে ফুটপাতে দাঁড়িয়ে থাকা বিআইডব্লিউটিসির কর্মকর্তা কৃষ্ণা রায় চৌধুরীকে চাপা দেয়া বাসটি বিআরটিএর অনুমতি ছাড়াই রুট পরিবর্তন করে চলছিল। বাসটি ‘পরিস্থান পরিবহন’র ব্যানারে মোহাম্মদপুরের বছিলা থেকে মিরপুর হয়ে আবদুল্লাহপুর ধওর পর্যন্ত চলার কথা। অথচ অনুমতি ছাড়াই শুধু রংবদল করে বাসটি ট্রাস্ট ট্রান্সপোর্ট সার্ভিসেস লিমিটেডের অধীনে ক্যান্টনমেন্ট থেকে মতিঝিল রুটে চলছিল।

২৭ আগস্ট বাংলামোটরে ফুটপাতে ওঠে গিয়ে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন সংস্থার হিসাব বিভাগের সহকারী ব্যবস্থাপক কৃষ্ণা রায়কে চাপা দেয় বেপরোয়া বাসটি। এতে তার বাম পা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে বাসটির হেলপার বাচ্চু মিয়াকে (১৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। পিবিআই ঢাকা মেট্রো উত্তর বিভাগের বিশেষ পুলিশ সুপার বশির আহমেদ যুগান্তরকে বলেন, এসআই আল-আমিন শেখের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টিম শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টায় ময়মনসিংহের গৌরীপুরে অভিযান চালিয়ে হেলপার বাচ্চু মিয়াকে গ্রেফতার করে।

এর আগে ১ সেপ্টেম্বর বাসের চালক মোরশেদকে গ্রেফতার করা হয়। তার ভারি যান চালানোর লাইসেন্স ছিল না। তবে বাসটির মালিক শফিকুর রহমান উচ্চ আদালত থেকে জামিনে রয়েছেন।

বিআরটিএ সূত্রে জানা গেছে, কৃষ্ণা রায়কে চাপা দেয়া বাসটিকে (ঢাকা মেট্রো ব-১১-৯১৪৫) পরিস্থান পরিবহন প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যানারে ঢাকা মেট্রো আরসিটি অনুমোদিত এ-৩৬৬নং রুটে বসিলা হতে ইপিজেড পর্যন্ত চলাচলের পারমিট দেয়া হয়। এ পারমিট ইস্যু করা হয় ২০১৬ সালের ২৯ ডিসেম্বর। মেয়াদোত্তীর্ণ হয় চলতি বছরের ২৯ আগস্ট। তবে পরিস্থান পরিবহনের চেয়ারম্যানের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ১ আগস্ট ঢাকা মেট্রো আরটিসির সভায় রুটটি সংশোধন করা হয়। এরপর বাসটিকে বসিলা, মোহাম্মদপুর, মিরপুর, কালশী, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, এয়ারপোর্ট, আবদুল্লাহপুর হয়ে ধউর পর্যন্ত চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়। অথচ বাসটির রং পরিবর্তন করে ট্রাস্ট ট্রান্সপোর্ট সার্ভিসেস লিমিটেডের অধীনে ক্যান্টনমেন্ট থেকে মতিঝিল রুটে চালানো হতো।

অন্য রুটের গাড়ি কিভাবে ট্রাস্ট ট্রান্সপোর্টের অধীনে ক্যান্টনমেন্ট-মতিঝিল রুটে চলাচল করছিল জানতে চাইলে ট্রাস্ট ট্রান্সপোর্ট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কর্নেল (অব.) শহীদ মোসাদ্দেক যুগান্তরকে বলেন, আপনি যে তথ্য পেয়েছেন তা সঠিক নয়।

গাড়িটির রুট পারমিটের কপি যুগান্তরের হাতে রয়েছে জানালে তিনি বলেন, বিষয়টি আইনি প্রক্রিয়াধীন আছে। এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না। আপনারা কোনো কিছু জানতে চাইলে আদালত থেকে জানতে পারেন। তিনি আরও বলেন, আমরা বিষয়টি মিউচ্যুয়াল করার চেষ্টা করছি, আর আপনারা অন্যভাবে উপস্থাপন করতে যাচ্ছেন, এটা ঠিক না।

এদিকে কৃষ্ণা রায়ের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে তার রাধে শ্যাম চৌধুরী যুগান্তরকে বলেন, কৃষ্ণা রায়কে পঙ্গু হাসপাতাল থেকে বাসায় নেয়া হয়েছে। তার সুস্থ হতে আরও সময় লাগবে। ডিসেম্বরে তার কৃত্রিম পা লাগানোর কথা রয়েছে। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমাদের সঙ্গে কেউ কোনো যোগাযোগ করেনি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×