বাংলাদেশের আরেকটি সোনালি দিন

  স্পোর্টস রিপোর্টার, নেপাল থেকে ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মাবিয়া

তিনদিন আগে পাঁচ ঘণ্টার মধ্যে এসেছিল তিনটি স্বর্ণপদক। হতাশার চাদর সরিয়ে শনিবার নেপালে আরেকটি সোনাঝরা দিনের দেখা পেল বাংলাদেশ। সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসের সপ্তমদিনে মাত্র দেড় ঘণ্টার ব্যবধানে লাল-সবুজের ক্রীড়াবিদরা জিতে নিলেন আরও তিনটি স্বর্ণপদক। তিনদিনের স্বর্ণখরা কাটিয়ে যেন এক পশলা স্বস্তির বৃষ্টি ভিজিয়ে দিয়ে গেল বাংলাদেশ শিবিরকে। ফের পদকমঞ্চ রঙিন হল লাল-সবুজের আলপনায়। একই দিনে তিনবার বেজে উঠল বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত।

তিনদিন ধরে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ) কর্মকর্তারা ছুটছিলেন কাঠমান্ডুর এ ভেন্যু থেকে সে ভেন্যুতে। কোথাও থেকে যদি আসে সোনা জয়ের খবর। কিন্তু তাদের সেই পরিশ্রম সফলতার মুখ দেখছিল না। শনিবার দুপুরে মাবিয়া আক্তার সীমান্তের ৭৬ কেজি ওজনের খেলা হবে- আগেই জানা ছিল। তিন দেশের তিন প্রতিযোগীর মধ্যে তার সোনা জয় একরকম নিশ্চিতই ছিল। তাই সকালেই কাঠমান্ডু থেকে বিওএ’র মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা, সেফ দ্য মিশন আসাদুজ্জামান কোহিনুরসহ বিওএ’র কর্মকর্তারা ছুটে যান পোখারায়।

দুপুর দেড়টায় সুসংবাদটি দিলেন ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত। গৌহাটিতে গত আসরে সোনা জিতে আলোড়ন তুলেছিলেন। এবার গড়লেন ইতিহাস। এসএ গেমসের ইতিহাসে টানা দুটি আসরে ব্যক্তিগত ইভেন্টে মাবিয়াই বাংলাদেশের প্রথম ক্রীড়াবিদ হিসেবে স্বর্ণপদক জিতলেন। ৭৬ কেজি ওজন শ্রেণিতে স্ন্যাচে ৮০ কেজি এবং ক্লিন অ্যান্ড জার্কে ১০৫ কেজি (মোট ১৮৫ কেজি) ভার তুলে নিজেকে নিয়ে যান সবার ওপরে। মাবিয়া পেছনে ফেলেন শ্রীলংকার বিসি প্রিয়ান্থি (স্ন্যাচে ৮৩ কেজি ও ক্লিন অ্যান্ড জার্কে ১০১ কেজিসহ মোট ১৮৪ কেজি) এবং নেপালের তারা দেবীকে (স্ন্যাচে ৭৫ কেজি ও ক্লিন অ্যান্ড জার্কে ৯৭ কেজিসহ ১৭২ কেজি)।

আধঘণ্টা পর দ্বিতীয় সোনার খবর আসে ভারোত্তোলন থেকেই। পুরুষদের ৯৬ কেজি ওজন শ্রেণিতে গেমসে বাংলাদেশকে ষষ্ঠ স্বর্ণপদক এনে দেন দিনাজপুরের ছেলে জিয়ারুল ইসলাম। তিনি হারিয়েছেন স্বাগতিক নেপালের বিশাল সিং বিস্টকে। স্ন্যাচে তিন লিফটে জিয়ারুল তোলেন ১৩৫ কেজি। এরপর ক্লিন অ্যান্ড জার্কের তিন লিফটে তোলেন ২৬২ কেজি। বেলা পৌনে ৩টায় আরেকটি স্বর্ণপদক জয়ের খবর আসে এসএ গেমসে প্রথম অন্তর্ভুক্ত হওয়া ফেন্সিং থেকে। নারীদের সাবের ফাইনালে স্বর্ণপদক জেতেন ফাতেমা মুজিব। স্বর্ণের লড়াইয়ে তিনি নেপালের রাবিনা থাপাকে ১৫-১০ পয়েন্টে হারিয়েছেন। এবারই এসএ গেমসে প্রথম অন্তর্ভুক্ত হয়েছে ফেন্সিং ডিসিপ্লিনটি। আর প্রথম আসরেই সোনা জিতে বাজিমাত করেন ফাতেমা।

সোনালি দিনে রুপার খবরও আছে। শুটিংয়ের ১০ মিটার এয়ার রাইফেলের মিশ্র দলগতের ফাইনালে উঠেও হতাশ করেছেন আবদুল্লাহেল বাকি ও সৈয়দা আতকিয়া হাসান দিশা। ফাইনালে ভারতের মেহুলি ঘোষ এবং ভারদানের সঙ্গে সমানতালে লড়াই করেও পেরে ওঠেননি বাংলাদেশের দুই শুটার। হেরে যান ১৭-৯ পয়েন্টে। ফলে রুপা নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাদের। এছাড়া কুস্তিতে ৫৫ কেজি ওজন শ্রেণিতে রুপা জেতেন রিনি সরকার। ছেলেদের ক্রিকেটে এদিন নেপালকে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ।

ঘটনাপ্রবাহ : এসএ গেমস-২০১৯

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

 
×