এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু ১ ফেব্রুয়ারি, দু’বছরে ঝরে পড়েছে ৩,৯২,৩০০ শিক্ষার্থী

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৭ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

মাধ্যমিকে মাত্র দু’বছরে ঝরে পড়েছে তিন লাখ ৯২ হাজার ৩শ’ শিক্ষার্থী। এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা দেয়ার লক্ষ্যে দু’বছর আগে নবম শ্রেণিতে ১১টি শিক্ষা বোর্ডে রেজিস্ট্রেশন করেছিল মোট ২০ লাখ ৭৩ হাজার ৯৮৮ জন। তাদের মধ্যে শেষ পর্যন্ত ১৬ লাখ ৮১ হাজার ৬৮৮ জন পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে।

আগামী ১ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে এই পরীক্ষা। এতে গত বছর ফেল করা এবং ফল উন্নয়ন প্রার্থীসহ মোট ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন অংশ নিচ্ছে। এতে ফেল করা প্রার্থী তিন লাখ ৬১ হাজার ৩২৫ এবং ফল উন্নয়ন প্রার্থী ৪ হাজার ৭৬৬ জন।

এদিকে পরীক্ষা সামনে রেখে এবারও সব ধরনের কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই সিদ্ধান্ত প্রকাশ করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সে অনুযায়ী ২৫ জানুয়ারি থেকে ২৫ ফেব্রুয়ারি এক মাস বন্ধ থাকবে সব ধরনের কোচিং সেন্টার।

১২ জানুয়ারি এক সংবাদ সম্মেলনে কোচিং পরিচালনাকারীদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব শ্যাডো এডুকেশন, বাংলাদেশ

(অ্যাসেব) পাবলিক পরীক্ষা চলাকালে সব ধরনের শ্যাডো এডুকেশন প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার ব্যবস্থা নিতে দাবি তুলেছিল। এতে তারা বলেছে, ২০১৮ সালে কোচিং বন্ধের আদেশ কার্যকরের পর প্রমাণিত হয়েছে, প্রশ্নফাঁসে তাদের কোনো পর্যায়ের কেউ কখনই জড়িত ছিল না।

‘কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকলে শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়’- বুধবার সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পরীক্ষার আগে কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখা কোনো স্থায়ী সমাধান নয়। কোচিং সেন্টারের কিছু অসাধু ব্যক্তির পরীক্ষার আগে প্রশ্নফাঁস, জালিয়াতি ও অনিয়ম করার প্রমাণ মিলেছে।

এ কারণে বাধ্য হয়ে পাবলিক পরীক্ষার আগে কোচিং সেন্টার বন্ধের নির্দেশ দেয়া হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, ক্লাসে কোনো কোনো শিক্ষক মনোযোগ সহকারে পড়ান না বলেই শিক্ষার্থীরা কোচিংয়ের দিকে মনোযোগী হয়ে থাকে। তাই দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অনলাইনের আওতায় আনা হবে।

এবার ১ ফেব্রুয়ারি শুরু ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তত্ত্বীয় পরীক্ষা চলবে। পরে ব্যবহারিক পরীক্ষা চলবে ৯ মার্চ পর্যন্ত। নিয়মিত-অনিয়মিত মিলে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন অংশ নেবে। এর মধ্যে ১০ লাখ ২২ হাজার ৩৩৬ ছাত্র ও ১০ লাখ ২৩ হাজার ৪১৬ ছাত্রী।

গতবারের তুলনায় এবার পরীক্ষার্থী কমেছে। গত বছর মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৩৩ জন। সেই হিসাবে এবার মোট ৮৭ হাজার ৫৫৪ পরীক্ষার্থী কমে গেছে। এবার সারা দেশে ৩ হাজার ৫১২টি কেন্দ্রে মোট ২৮ হাজার ৮৮৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ নেবে। তবে গত বছরের তুলনায় এবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ২০২টি ও কেন্দ্র ১৫টি বেড়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেন, অন্যান্য বারের মতো এবারও পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে শিক্ষার্থীদের। অনিবার্য কারণে কোনো পরীক্ষার্থীর দেরি হলে তার বিস্তারিত তথ্য পরীক্ষা শেষে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ডে পাঠাতে হবে। ট্রেজারি থেকে নির্দিষ্ট তারিখের পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের সব সেট কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হবে। পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে এসএমএসের মাধ্যমে প্রশ্নপত্রের সেট কোড জানিয়ে দেয়া হবে। কেন্দ্র সচিব ছাড়া অন্য কেউ পরীক্ষা কেন্দ্র মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না।

তিনি বলেন, এবার এসএসসি পরীক্ষায় বাংলা ২য় পত্র ও ইংরেজি ২য় পত্র ছাড়া সব বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়া হবে। নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে শারীরিক শিক্ষা, স্বাস্থ্য বিজ্ঞান ও খেলাধুলা এবং ক্যারিয়ার শিক্ষা বিষয়ে ধারাবাহিক মূল্যায়নে প্রাপ্ত নম্বর অনলাইনে বোর্ডে পাঠাতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনের আগে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার নিরাপত্তা সংক্রান্ত আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব মুনশী শাহাবুদ্দীন আহমেদ, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক জিয়াউল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×