‘গুজব’ ছড়াতে পারে ভয় পাবেন না: বিএনপির দুই মেয়র প্রার্থী

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৯ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

‘গুজব’ ছড়াতে পারে ভয় পাবেন না: বিএনপির দুই মেয়র প্রার্থী

ভোটারদের ভয়-ভীতিমুক্তভাবে ভোট প্রদান নিশ্চিত করতে নিরপেক্ষ ভূমিকা পালনে নির্বাচন কমিশনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণের বিএনপির মেয়র প্রার্থীরা।

মঙ্গলবার রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগকালে পথসভায় দেয়া বক্তব্যে উত্তরের মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও দক্ষিণের ইশরাক হোসেন প্রায় একই সুরে বলেন, বর্তমান সরকার আমাদের ভয় পাচ্ছে। তারা জানে, আমাদের জনসমর্থন ব্যাপক ভোটে পরিণত হবে। ধানের শীষের বিজয় ‘নিশ্চিত জেনে’ সরকার ‘গুজব’ ছড়াতে পারে। বিশৃঙ্খলা ও বিতর্ক সৃষ্টি করবে। আমরা কোনো সুযোগ দেব না।

বিএনপির এই দুই মেয়র প্রার্থী আরও বলেন, আগামী কয়েকটি দিন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ১ ফেব্রুয়ারি নির্ভয়ে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে আমরা ভোট দেব। আমরা সবচেয়ে বড় পরিবর্তন আনব। জনগণের ক্ষমতা ফিরিয়ে আনব। যে কোনো ষড়যন্ত্র ও গুজব মোকাবেলায় ভোটের দিন আপনারা সবাই কেন্দ্রে আসবেন। যে কোনো অনিয়মের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

তাবিথের প্রচার : গণসংযোগের ১৯তম দিনে উত্তরের মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল মোহাম্মদপুরের শের শাহ সুরি রোড থেকে দিনের কার্যক্রম শুরু করেন। সেখানে এক পথসভায় তিনি অভিযোগ করেন- আমরা ইসিতে ১৪০টার বেশি অভিযোগ দিয়েছি। এগুলো আমলে না নিয়ে ১০২টা নিষ্পত্তি করে দিয়েছে তারা। আশা করি, বাকি দিনগুলো তারা নিরপেক্ষ দায়িত্ব পালন করবে। নাহলে ঢাকায় যে নির্বাচনের উৎসব আছে তা বিলীন হয়ে যাবে। পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করলে বিরোধী দলের পোলিং এজেন্টদের কেউ বের করে দিতে পারবে না বলে জানান তিনি।

মোহাম্মদপুরের বাসিন্দাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমরা ওয়াদা করছি, এই এলাকার ভাগ্য আমরা অবশ্যই পরিবর্তন করব। আগামী ১ তারিখে আপনাদের ক্ষমতা আপনারা নিজেদের হাতে ফেরত নিয়ে যাবেন। আপনাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করতে দেব না কাউকে। তিনি আরও বলেন, আমরা যখনই আমাদের ভোট না দেব, তখনই অন্য কেউ ভোট চুরি করতে পারে এবং আমাদের ভোট অন্য স্থানে দিয়ে দেবে। তাই সবাই সকাল সকাল ভোট দিতে যাবেন।

গণসংযোগকালে তাবিথের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, কেন্দ্রীয় নেতা জহির উদ্দিন স্বপন, নিপুণ রায় চৌধুরী, ঢাকা মহানগর উত্তরের নেতা বজলুল বাসিদ আঞ্জু, এবিএম রাজ্জাক, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, ৩১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী সাজেদুল হক রনি, ২৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী লিটন মাহমুদ বাবু, ৩২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী আতিকুল ইসলাম মতিনসহ বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এরপর টাউন হলে আরেকটি পথসভায় নেতাকর্মী ও এলাকাবাসীর উদ্দেশে তাবিথ আউয়াল বলেন, এটি একটি ঐতিহাসিক স্থান। কিন্তু অবহেলিত হয়ে আছে। নামকরা স্কুল আছে। কিন্তু এখানকার পরিবেশ ভালো নয়। মাদকের ছড়াছড়ি। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতিও খারাপ। তাই ১ ফেব্রুয়ারি ভোটের মাধ্যমে আপনারা নিজেদের অধিকার ফিরিয়ে আনবেন।

জাকির হোসেন রোড, জেনেভা ক্যাম্প, কাজী নজরুল ইসলাম রোড ও নূরজাহান রোডের মোড়ে পথসভা করেন তাবিথ। এরপর মিরপুর এক নম্বরে পথসভা শেষে পাইকপাড়া, পূর্ব আহম্মদ নগর হয়ে পশ্চিম মনিপুর হয়ে ষাট ফুটের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন তিনি।

মিরপুরের পথসভায় তাবিথ বলেন, ১ ফেব্রুয়ারি পরিবর্তনের দিন। আপনারা নিজেদের উন্নয়নের জন্য, পরিবর্তনের জন্য ধানের শীষে ভোট দেবেন। ১২ নম্বর ওয়ার্ডে বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী মো. শাহিনুর রহমান এনা (ঠেলাগাড়ি মার্কা), সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নাছরিন খান মিতুকে (বই মার্কা) ভোট দেয়ার আহ্বান জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারপারসন মোহাম্মদ শাহজাহান, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবীবুর রহমান হাবিব, এসএ সিদ্দিকী সাজু, যুবদলের সাবেক সহসভাপতি আলী আকবর চুন্নু, ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক আবদুল্লাহ আল জুবায়ের বাবুসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী।

এদিকে মিরপুরের কালসী এলাকার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন জায়গায় তাবিথ আউয়ালের পক্ষে গণসংযোগ করেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল।

এ সময় তিনি বলেন, এক যুগ হয়ে গেছে আমরা যদি একে অন্যের অবস্থানকে বিবেচনা করি, সবাই নিজের পরিবারকে বলবেন- ‘বারোটি বছর কেঁদেছো অনেক, এবার মুছে ফেলো চোখ, আমার ঘরের প্রতিটি ভোট ধানের শীষেই হোক।’ এই শপথটা বুকে নিয়ে আল্লাহর ওপর ভরসা রেখে যদি আমরা সবাই কেন্দ্রে যেতে পারি তাহলে দেখবেন ভোট চোর, ভোট ডাকাতরা পালিয়েছে।

ইশরাকের প্রচার : ধানমণ্ডি ২৭ নম্বর থেকে দিনের গণসংযোগ শুরু করেন দক্ষিণের বিএনপির মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেন। এ সময় তিনি বলেন, ধানের শীষের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। কোনো ষড়যন্ত্রে এ জোয়ার রোধ করা যাবে না। প্রতিদিনই স্বতঃস্ফূর্তভাবে সাধারণ মানুষ ধানের শীষের কাতারে শামিল হচ্ছে।

গণজোয়ারে ভীত হয়ে ক্ষমতাসীনরা দিনে দিনে বেপরোয়া হয়ে উঠছে। দলের কর্মী-সমর্থকদের কোনো ষড়যন্ত্রের ফাঁদে পা না দেয়ার আহ্বান জানিয়ে ইশরাক বলেন, পহেলা ফেব্রুয়ারি বিজয় আমাদেরই হবে। সকলে দলবেঁধে কেন্দ্রে যাবেন এবং ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত করে আমরা ঘরে ফিরব।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, বিএনপি নেতা নুরুল ইসলাম মঞ্জু, কামরুজ্জামান রতন, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নিরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, মহিলা দলনেত্রী হেলেন জেরিন খান, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু প্রমুখ।

এরপর আবাহনী মাঠ হয়ে কলাবাগান, সায়েন্স ল্যাব হাতিরপুলের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন ইশরাক। এরপর পল্টন স্টেডিয়াম এলাকায় প্রচার চালান তিনি। সন্ধ্যায় সময় টিভির আহত ক্যামেরাপারসন আশরাফকে দেখতে উনার দিলু রোডের বাসায় যান।

আজ সকালে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির নেতাদের সঙ্গে নিয়ে গোপীবাগের বাসায় সংবাদ সম্মেলন করবেন ইশরাক হোসেন। এরপর দুপুর ২টায় বংশালে হোটের আল রাজ্জাকের সামনে থেকে গণসংযোগ শুরু করবেন তিনি।

তাবিথ ও ইশরাকের মায়ের গণসংযোগ : ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে সন্তানের জন্য ভোট চাইলেন ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেন ও তাবিথ আউয়ালে মা। উত্তরা ১৪ সেক্টর, মহাখালী কাঁচাবাজার ও গুলশান পিংক সিটিতে গণসংযোগ করেন তাবিথ আউয়ালের মা নাসরিন ফাতেমা আউয়াল। এ সময় তিনি ভোটারদের কাছে লিফলেট বিতরণ করেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমান, বিএনপি নেতা বরকত উল্লাহ বুলুর স্ত্রী শামীমা বরকত লাকী এবং বরিশালের সাবেক মেয়র মুজিবর রহমান সারোয়ার ও আহসান হাবিব কামালের স্ত্রী তার সঙ্গে ছিলেন।

এদিকে অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার সহধর্মিণী ইশমত আরা ছেলে ইশরাকের জন্য ভোট ও দোয়া চান। মঙ্গলবার রাজধানীর মৌচাক, ফরচুন শপিং মলসহ আশপাশে ধানের শীষের প্রার্থী ইশরাক হোসেনের পক্ষে গণসংযোগ করেন তিনি। এ সময় ভোটারদের হাতে লিফলেট তুলে দিয়ে ছেলের সফলতার জন্য সবার কাছে দোয়াও চান ইশরাক হোসেনের মা।

ইশমত আরা বলেন, আমার ছেলে ইশরাক হোসেন ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। সারা দেশের মানুষের মতো আমিও চাই একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও সুন্দর নির্বাচন হোক। এর মাধ্যমে যে-ই নির্বাচিত হয় তাকে জনগণ মেনে নেবে। এ সময় খালেদা জিয়ার মুক্তিও দাবি করেন তিনি। গণসংযোগে তার সঙ্গে ছোট ছেলে ইশফাক হোসেন, বিএনপির স্বনির্ভরবিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানাসহ মহিলা দলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

ঘটনাপ্রবাহ : ঢাকার দুই সিটি নির্বাচন-২০২০

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×