আগুনের সূত্রপাত জুতার দোকানে

মৌলভীবাজারে আগুনে পুড়ে ৫ জনের মৃত্যু

দুটি তদন্ত কমিটি গঠন

  মৌলভীবাজার প্রতিনিধি ২৯ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নিহতদের স্বজনদের আহাজারি
নিহতদের স্বজনদের আহাজারি। ছবি: যুগান্তর

মৌলভীবাজার পৌর শহরে অগ্নিকাণ্ডে একই পরিবারের তিনজনসহ পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে শহরের সেন্ট্রাল রোডের (সাইফুর রহমান রোড) পিংকি শু স্টোরে এ ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত ঘটে।

এরপর আগুন ভবনের দোতলায় ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে মৌলভীবাজার ফায়ার স্টেশন ও শ্রীমঙ্গল ফায়ার স্টেশনসহ চারটি ইউনিট দেড় ঘণ্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

আগুনে পিংকি স্টোরের স্বত্বাধিকারী সুভাষ রায় (৬৫), তার মেয়ে প্রিয়া রায় (১৫), শ্যালক সজল রায়ের স্ত্রী দিবা রায় (৪০) ও সজল রায়ের মেয়ে দিপীকা রায় (৪) এবং সুভাষের ছোটভাই প্রণয় রায় মনার স্ত্রী দিপ্তী রায় (৪৫) মারা যান। মঙ্গলবার রাতেই পাঁচজনের শেষকৃত্য সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী আরাফাত চৌধুরী জানান, পিংকি শু স্টোরের উপরতলায় ধোঁয়া বের হতে দেখে তারা ফায়ার সার্ভিসে খবর দেন।

এরপর ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ, ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। মৌলভীবাজার মডেল থানার পরিদর্শক ওসি পরিমল দেব জানান, জুতার দোকোনের উপরে সুভাষ ও মনা তাদের পরিবার নিয়ে থাকেন। জুতার দোকানের আগুন মুহূর্তের মধ্যে তাদের ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। অগ্নিকাণ্ডের সময় জুতার দোকানের শাটার বন্ধ ছিল। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের চারটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

পরে ওই ঘর থেকে পাঁচজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় সুভাষের ছোটভাই মনা ধোঁয়ায় অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মনা জানান, যখন আগুন লাগে, তিনি তখন ঘুমিয়ে ছিলেন। তার বড় ভাইয়ের স্ত্রীর চিৎকারে তিনি জেগে উঠেন।

মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন বলেন, পাঁচজনের মৃতদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। জেলা প্রশাসক বেগম নাজিয়া শিরিন ও পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ পিপিএম (বার), পৌর মেয়র ফজলুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

মৌলভীবাজার ফায়ার স্টেশনের উপপরিচালক আবদুল্লাহ হারুন পাশা বলেন, গ্যাসের রাইজার ফেটে আগুন লেগেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে জালালাবাদ গ্যাস ফিল্ডের ম্যানেজার আওলাদ হোসেন গ্যাস থেকে আগুনের সূত্রপাতের বিষয়টি অস্বীকার করেন। মনা বলেছেন, শর্ট সার্কিট থেকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে।

এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা তদন্তে বিকালে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে সাত সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া রহমানকে কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে। পৌরসভার পক্ষ থেকেও সাত সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কাউন্সিলর জালাল আহমদকে এ কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে এক লাখ টাকা দেয়া হয়েছে।

দোকানের কর্মচারী অরবিন্দু জানান, ২২ জানুয়ারি মৌলভীবাজার পৌর শহরের কলিমাবাদ এলাকায় সুভাষের বড় মেয়ে পিংকির বিয়ে হয়। ২৭ জানুয়ারি পিংকির বউভাত উপলক্ষে আত্মীয়স্বজনের অনেকে তাদের বাড়িতেই ছিলেন। পাঁচ ভাই ও তিন বোনের মধ্যে পিংকি সবার বড়। শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ডা. প্রভাত রায়ের ছেলে সুভাষের পরিবার দোতলা ভবনের ওপর বসবাস করেন এবং নিচতলায় তার জুতা ও ব্যাগের দোকান।

আরও পড়ুন

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ১৬৪ ৩৩ ১৭
বিশ্ব ১৪,৩১,৭০৬ ৩,০২,১৫০ ৮২,০৮০
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত