ভাষার মাস শুরু গ্রন্থমেলার দ্বার খুলছে কাল
jugantor
ভাষার মাস শুরু গ্রন্থমেলার দ্বার খুলছে কাল

  সাংস্কৃতিক রিপোর্টার  

০১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি।’ রক্তেরাঙা ফেব্রুয়ারি, ভাষা আন্দোলনের মাস শুরু হল। আজ থেকে দিকে দিকে ছড়িয়ে পড়বে ভাষা আন্দোলনের স্মৃতিময় দিনের কথাগুলো।

বাঙালি জাতি মাসজুড়েই নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে স্মরণ করবে ভাষার জন্য প্রাণ দেয়া শহীদদের। আগামীকাল শুরু হচ্ছে মাসব্যাপী প্রাণের মেলা ‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা’।

পাকিস্তানিরা প্রথম আক্রমণ করে আমাদের এই ভাষার ওপর। ভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে তাই ফেব্রুয়ারি মাস ছিল ঔপনিবেশিক প্রভুত্ব ও শাসন- শোষণের বিরুদ্ধে বাঙালির প্রথম প্রতিরোধ।

এটি জাতীয় চেতনার প্রথম উন্মেষ। ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে আন্দোলনে সালাম, জব্বার, শফিক, বরকত ও রফিকের রক্তের বিনিময়ে বাঙালি জাতি পায় মাতৃভাষার মর্যাদা।

তারই পথ ধরে শুরু হয় বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন। যার ফলাফল ১৯৭১ সালে ৯ মাস পাকিস্তানি বাহিনীর বিরুদ্ধে সশস্ত্র যুদ্ধের মধ্য দিয়ে অর্জিত হয় স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ।

তবে ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি এখন শুধু শোকের নয় বরং শক্তিরও। কারণ আমরাই সেই বাঙালি জাতি যারা ভাষার জন্য এ মাসে জীবন দিয়েছিল। আর তাই ২১ ফেব্রুয়ারি দিবসটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবেও স্বীকৃত।

ভাষার জন্য বাংলার দামাল সন্তানদের আত্মত্যাগ এ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায় ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর। এদিন ইউনেস্কো ২১ ফেব্রুয়ারি দিনটিকে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ ঘোষণা করে। এর মধ্য দিয়ে একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে এখন বিশ্বের দেশে দেশে পালিত হয়।

ফেব্রুয়ারি মাসের সবচেয়ে বড় কর্মযজ্ঞ মাসব্যাপী গ্রন্থমেলা শুরু হচ্ছে কাল থেকে। বাংলা একাডেমিতে বিকাল ৩টায় এ মেলার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ইতিমধ্যেই মেলার প্রস্তুতিমূলক কাজ প্রায় শেষ। ভাষার এ মাসে বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন আয়োজন করেছে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের। রোববার শুরু হচ্ছে ৩৪তম জাতীয় কবিতা উৎসব।

এবারের উৎসবে প্রতিপাদ্য ‘মুজিব আমার স্বাধীনতার অমর কাব্যের কবি’। প্রতি বছর ১ ফেব্রুয়ারি শুরু হলেও এবার ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের কারণে একদিন পিছিয়ে শুরু হচ্ছে এ উৎসব।

ভাষার মাস শুরু গ্রন্থমেলার দ্বার খুলছে কাল

 সাংস্কৃতিক রিপোর্টার 
০১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি।’ রক্তেরাঙা ফেব্রুয়ারি, ভাষা আন্দোলনের মাস শুরু হল। আজ থেকে দিকে দিকে ছড়িয়ে পড়বে ভাষা আন্দোলনের স্মৃতিময় দিনের কথাগুলো।

বাঙালি জাতি মাসজুড়েই নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে স্মরণ করবে ভাষার জন্য প্রাণ দেয়া শহীদদের। আগামীকাল শুরু হচ্ছে মাসব্যাপী প্রাণের মেলা ‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা’।

পাকিস্তানিরা প্রথম আক্রমণ করে আমাদের এই ভাষার ওপর। ভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে তাই ফেব্রুয়ারি মাস ছিল ঔপনিবেশিক প্রভুত্ব ও শাসন- শোষণের বিরুদ্ধে বাঙালির প্রথম প্রতিরোধ।

এটি জাতীয় চেতনার প্রথম উন্মেষ। ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে আন্দোলনে সালাম, জব্বার, শফিক, বরকত ও রফিকের রক্তের বিনিময়ে বাঙালি জাতি পায় মাতৃভাষার মর্যাদা।

তারই পথ ধরে শুরু হয় বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন। যার ফলাফল ১৯৭১ সালে ৯ মাস পাকিস্তানি বাহিনীর বিরুদ্ধে সশস্ত্র যুদ্ধের মধ্য দিয়ে অর্জিত হয় স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ।

তবে ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি এখন শুধু শোকের নয় বরং শক্তিরও। কারণ আমরাই সেই বাঙালি জাতি যারা ভাষার জন্য এ মাসে জীবন দিয়েছিল। আর তাই ২১ ফেব্রুয়ারি দিবসটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবেও স্বীকৃত।

ভাষার জন্য বাংলার দামাল সন্তানদের আত্মত্যাগ এ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায় ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর। এদিন ইউনেস্কো ২১ ফেব্রুয়ারি দিনটিকে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ ঘোষণা করে। এর মধ্য দিয়ে একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে এখন বিশ্বের দেশে দেশে পালিত হয়।

ফেব্রুয়ারি মাসের সবচেয়ে বড় কর্মযজ্ঞ মাসব্যাপী গ্রন্থমেলা শুরু হচ্ছে কাল থেকে। বাংলা একাডেমিতে বিকাল ৩টায় এ মেলার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ইতিমধ্যেই মেলার প্রস্তুতিমূলক কাজ প্রায় শেষ। ভাষার এ মাসে বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন আয়োজন করেছে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের। রোববার শুরু হচ্ছে ৩৪তম জাতীয় কবিতা উৎসব।

এবারের উৎসবে প্রতিপাদ্য ‘মুজিব আমার স্বাধীনতার অমর কাব্যের কবি’। প্রতি বছর ১ ফেব্রুয়ারি শুরু হলেও এবার ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের কারণে একদিন পিছিয়ে শুরু হচ্ছে এ উৎসব।