এসএসসি ও সমমানে বিভিন্ন স্থানে ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা
jugantor
এসএসসি ও সমমানে বিভিন্ন স্থানে ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা
৩৪ শিক্ষক ও পাঁচ শিক্ষার্থী বহিষ্কার * কারাগারে ৫ শিক্ষক * ভুল প্রবেশপত্র দেয়ায় নীলফামারীতে ছাত্রীর আত্মহত্যা * ভুয়া প্রশ্ন বিক্রির দায়ে আটক ৪

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

এসএসসি পরীক্ষা

নানা ঘটনা ও দুর্ঘটনার মধ্য দিয়ে সোমবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হয়েছে। ভুল প্রবেশপত্র সরবরাহের কারণে নীলফামারীর ডোমারে এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন, বোর্ড থেকে ভুল প্রবেশপত্র বিতরণ, নকল সরবরাহ, পুরনো প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা গ্রহণের মতো ঘটনাও ঘটেছে এদিন।

আছে ফরম পূরণ করেও প্রবেশপত্র না পাওয়ার ঘটনা। এসব কারণে সারা দেশে ৩৪ শিক্ষককে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে ৫ জনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ৫ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। নকলে সহায়তার কারণে বরিশালে ২ ছাত্রীকে জরিমানা করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, প্রশ্ন ফাঁসের কোনো ঘটনা না ঘটলেও গুজব রটিয়ে ভুয়া প্রশ্ন বিক্রি করতে গিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে ৪ জন র‌্যাবের হাতে আটক হয়েছে। তারা হল- সুনামগঞ্জে আহমেদ সালেহ তাইফ, ফেনীর দাগনভূঞায় ইমাজউদ্দিন রিয়াদ, ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে একজন এবং শেরপুরে মোশাররফ হোসেন শাওন।

নকল সরবরাহ করায় কিশোরগঞ্জের আশুগঞ্জে ৫ শিক্ষককে দুই বছর করে জেল দেয়া হয়েছে। যশোরের চৌগাছায় ২০১৮ সালের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নেয়ার অপরাধে কেন্দ্র সচিবসহ ৫ শিক্ষক এবং দায়িত্বে অবহেলার দায়ে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে ৬ ও নীলফামারীতে ১৭ শিক্ষককে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। মানিকগঞ্জের শিবালয়ে দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রে ছাত্রীকে উত্তর বলে দেয়ায় মাজহারুল ইসলাম নামে এক শিক্ষককে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বিনা অনুমতিতে কেন্দ্রে প্রবেশের দায়ে ঝালকাঠিতে এক শিক্ষককে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় পরীক্ষা কেন্দ্রে এক পুলিশ কর্মকর্তাকে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। বরিশালে শহরের হালিমা খাতুন বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জগদীশ সারস্বত বালিকা স্কুল ও কলেজের ২০ শিক্ষার্থীর নৈর্ব্যক্তিক পরীক্ষা নেয়া হয় পুরাতন সিলেবাসের প্রশ্নপত্রে। ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়ার পর কুষ্টিয়ায় ১৮ শিক্ষার্থীকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পুনরায় পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়।

সোমবার প্রথম দিন সকাল ১০টায় এসএসসিতে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথমপত্র, মাদ্রাসার দাখিলে কুরআন মজিদ ও তাজবিদ এবং কারিগরি বোর্ডে এসএসসি ভোকেশনালে বাংলা-২ বিষয়ের পরীক্ষা নেয়া হয়। সকালে রাজধানীর তেজগাঁও সরকারি বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

পরিদর্শন শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘পরীক্ষা নিয়ে কোথাও কেউ যাতে গুজব ছড়িয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তৎপর আছে। এ ব্যাপারে অভিযোগ পাওয়া গেলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। শিক্ষার্থীদের জিম্মি করে কেউ অনৈতিক কাজ করবে, তা কোনোভাবেই মেনে নেয়া হবে না।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘কেউ যেন প্রশ্ন ফাঁস করতে না পারে সেজন্য এবার ৫ হাজার ৫৮০ সেট প্রশ্ন প্রণয়ন করার কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ২ হাজার ৭৯০ সেট প্রশ্ন ছাপানো হয়েছে।’

এবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় মোট ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করার কথা। তবে প্রথম দিনে নয়টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে অনুপস্থিত ছিল ৫ হাজার ৪৪৭ জন পরীক্ষার্থী। বাংলা প্রথমপত্রের পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে পাঁচজন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

মাদ্রাসায় কোনো শিক্ষার্থী বহিষ্কার হয়নি। অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর মধ্যে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে ১ হাজার ৮২৫ জন, চট্টগ্রামে ৪০০, রাজশাহীতে ৬৫৩, বরিশালে ৩৫৪, সিলেটে ৩৫৮, দিনাজপুরে ৪৭০, কুমিল্লায় ৪৯৯, যশোরে ৫৩৬ এবং ময়মনসিংহে অনুপস্থিত ছিল ৩৫২ জন।

চট্টগ্রাম বোর্ডে দু’জন; বরিশাল, দিনাজপুর ও যশোর বোর্ডে একজন করে শিক্ষার্থী বহিষ্কৃত হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কন্ট্রোল রুম সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। আজ এসএসসির বাংলা দ্বিতীয়পত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

ছাত্রীর আত্মহত্যা : স্কুল কর্তৃপক্ষের ভুলে বাণিজ্য বিভাগের বদলে মানবিক বিভাগের প্রবেশপত্র আসায় আত্মহত্যা করেছে নীলফামারীর ডোমার উপজেলার এক এসএসসি পরীক্ষার্থী। রোববার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। ওই ছাত্রীর নাম তৃষ্ণা রায় (১৬)। সে উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের দোদিপাড়ার দিনমজুর দুলাল রায়ের মেয়ে।

সে স্থানীয় মাহিগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। এ ঘটনায় এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। রোববারের ঘটনা হলেও সোমবার পর্যন্ত এ ভুলের দায়দায়িত্ব নিরূপণে শিক্ষা বোর্ড কোনো পদক্ষেপ নেয়নি বলে জানা গেছে।

ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা : লালমনিরহাট প্রতিনিধি জানান, বড়বাড়ী শহীদ আবুল কাশেম উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে এসএসসি বাংলা প্রথমপত্রের পরীক্ষা ২০১৮ সালের পুরাতন প্রশ্নপত্রে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ ঘটনায় কেন্দ্র সচিব শফিকুল ইসলামসহ পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কমিটির ১৭ জন সদস্যের সবাইকে পরবর্তী পরীক্ষা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। লালমনিরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পরীক্ষা কমিটির সভাপতি উত্তম কুমার রায় এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি জানান, ২০১৮ সালের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দিয়েছে ১৮ শিক্ষার্থী। সোমবার সকালে কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। পরে শিক্ষার্থীদের বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পুনরায় পরীক্ষা নেয়া হয়।

ওই কেন্দ্রের সচিব ও কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হক দাবি করেন, বোর্ড থেকে সরবরাহ করা বাংলা প্রথমপত্র নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নের একটি প্যাকেটে ভুলক্রমে ২০১৮ সালের প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়েছে।

শিক্ষকরা বিষয়টি প্রথমে বুঝতে পারেননি। পরীক্ষা শেষে খাতা যাচাই-বাছাইয়ের সময় ভুলটি ধরা পড়ে। তিনি দাবি করেন ইতিমধ্যে যারা ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা দিয়েছে তাদের পুনরায় পরীক্ষা নেয়া হয়েছে।

আশুগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে দাখিল পরীক্ষার্থীদের নকল সরবরাহের দায়ে পাঁচ শিক্ষককে দুই বছর করে জেল দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আশুগঞ্জ সার কারখানা স্কুল কেন্দ্রের মাদ্রাসা পরীক্ষার্থীদের এমসিকিউ উত্তরপত্র লিখে নকল সরবরাহ করার সময় আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজিমুল হায়দার হাতেনাতে মাদ্রাসার পাঁচ শিক্ষককে ধরে ফেলেন।

তারা হলেন- চর চারতলা ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসার সহ-সুপার মাওলানা মাজহারুল ইসলাম, সহকারী শিক্ষক শফিকুল ইসলাম, খৌরাপাড়া উমেদ আলি শাহ দাখিল মাদ্রাসার সহ-সুপার মহিউদ্দিন মোল্লা, সরাইল উপজেলার পানিশ্বর মাদিনীয়া মাদ্রাসার সহ-সুপার আব্বাস আলী এবং আশুগঞ্জ উপজেলার তালশহর করিমিয়া কামিল মাদ্রাসার সহ-সুপার কবির হোসেন।

পুলিশের ওপর হামলা : আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি জানান, পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে বহিরাগতদের বের হতে বলাকে কেন্দ্র করে মো. আলমগীর হোসেন নামে এক পুলিশ অফিসারকে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, আখাউড়া পৌরসভার মেয়র ও যুবলীগের আহ্বায়ক তাকজিল খলিফার ভাতিজা হাসান খলিফা তার সাঙ্গোপাঙ্গ নিয়ে পুলিশের ওপর চড়াও হন এবং লাঞ্ছিত করেন।

এ ঘটনায় পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। পুলিশ অবশ্য বলছে, এ বিষয়ে থানায় জিডি করা হয়েছে। সোমবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে আখাউড়া রেলওয়ে উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পরীক্ষার্থীরা ভয়ে দিগ্বিদিক ছোটাছুটি শুরু করে।

এসএসসি ও সমমানে বিভিন্ন স্থানে ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা

৩৪ শিক্ষক ও পাঁচ শিক্ষার্থী বহিষ্কার * কারাগারে ৫ শিক্ষক * ভুল প্রবেশপত্র দেয়ায় নীলফামারীতে ছাত্রীর আত্মহত্যা * ভুয়া প্রশ্ন বিক্রির দায়ে আটক ৪
 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
এসএসসি পরীক্ষা
এসএসসি পরীক্ষা। ছবি: যুগান্তর

নানা ঘটনা ও দুর্ঘটনার মধ্য দিয়ে সোমবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হয়েছে। ভুল প্রবেশপত্র সরবরাহের কারণে নীলফামারীর ডোমারে এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন, বোর্ড থেকে ভুল প্রবেশপত্র বিতরণ, নকল সরবরাহ, পুরনো প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা গ্রহণের মতো ঘটনাও ঘটেছে এদিন।

আছে ফরম পূরণ করেও প্রবেশপত্র না পাওয়ার ঘটনা। এসব কারণে সারা দেশে ৩৪ শিক্ষককে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে ৫ জনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ৫ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। নকলে সহায়তার কারণে বরিশালে ২ ছাত্রীকে জরিমানা করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, প্রশ্ন ফাঁসের কোনো ঘটনা না ঘটলেও গুজব রটিয়ে ভুয়া প্রশ্ন বিক্রি করতে গিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে ৪ জন র‌্যাবের হাতে আটক হয়েছে। তারা হল- সুনামগঞ্জে আহমেদ সালেহ তাইফ, ফেনীর দাগনভূঞায় ইমাজউদ্দিন রিয়াদ, ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে একজন এবং শেরপুরে মোশাররফ হোসেন শাওন।

নকল সরবরাহ করায় কিশোরগঞ্জের আশুগঞ্জে ৫ শিক্ষককে দুই বছর করে জেল দেয়া হয়েছে। যশোরের চৌগাছায় ২০১৮ সালের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নেয়ার অপরাধে কেন্দ্র সচিবসহ ৫ শিক্ষক এবং দায়িত্বে অবহেলার দায়ে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে ৬ ও নীলফামারীতে ১৭ শিক্ষককে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। মানিকগঞ্জের শিবালয়ে দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রে ছাত্রীকে উত্তর বলে দেয়ায় মাজহারুল ইসলাম নামে এক শিক্ষককে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বিনা অনুমতিতে কেন্দ্রে প্রবেশের দায়ে ঝালকাঠিতে এক শিক্ষককে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় পরীক্ষা কেন্দ্রে এক পুলিশ কর্মকর্তাকে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। বরিশালে শহরের হালিমা খাতুন বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জগদীশ সারস্বত বালিকা স্কুল ও কলেজের ২০ শিক্ষার্থীর নৈর্ব্যক্তিক পরীক্ষা নেয়া হয় পুরাতন সিলেবাসের প্রশ্নপত্রে। ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়ার পর কুষ্টিয়ায় ১৮ শিক্ষার্থীকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পুনরায় পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়।

সোমবার প্রথম দিন সকাল ১০টায় এসএসসিতে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথমপত্র, মাদ্রাসার দাখিলে কুরআন মজিদ ও তাজবিদ এবং কারিগরি বোর্ডে এসএসসি ভোকেশনালে বাংলা-২ বিষয়ের পরীক্ষা নেয়া হয়। সকালে রাজধানীর তেজগাঁও সরকারি বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

পরিদর্শন শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘পরীক্ষা নিয়ে কোথাও কেউ যাতে গুজব ছড়িয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তৎপর আছে। এ ব্যাপারে অভিযোগ পাওয়া গেলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। শিক্ষার্থীদের জিম্মি করে কেউ অনৈতিক কাজ করবে, তা কোনোভাবেই মেনে নেয়া হবে না।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘কেউ যেন প্রশ্ন ফাঁস করতে না পারে সেজন্য এবার ৫ হাজার ৫৮০ সেট প্রশ্ন প্রণয়ন করার কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ২ হাজার ৭৯০ সেট প্রশ্ন ছাপানো হয়েছে।’

এবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় মোট ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করার কথা। তবে প্রথম দিনে নয়টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে অনুপস্থিত ছিল ৫ হাজার ৪৪৭ জন পরীক্ষার্থী। বাংলা প্রথমপত্রের পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে পাঁচজন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

মাদ্রাসায় কোনো শিক্ষার্থী বহিষ্কার হয়নি। অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর মধ্যে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে ১ হাজার ৮২৫ জন, চট্টগ্রামে ৪০০, রাজশাহীতে ৬৫৩, বরিশালে ৩৫৪, সিলেটে ৩৫৮, দিনাজপুরে ৪৭০, কুমিল্লায় ৪৯৯, যশোরে ৫৩৬ এবং ময়মনসিংহে অনুপস্থিত ছিল ৩৫২ জন।

চট্টগ্রাম বোর্ডে দু’জন; বরিশাল, দিনাজপুর ও যশোর বোর্ডে একজন করে শিক্ষার্থী বহিষ্কৃত হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কন্ট্রোল রুম সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। আজ এসএসসির বাংলা দ্বিতীয়পত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

ছাত্রীর আত্মহত্যা : স্কুল কর্তৃপক্ষের ভুলে বাণিজ্য বিভাগের বদলে মানবিক বিভাগের প্রবেশপত্র আসায় আত্মহত্যা করেছে নীলফামারীর ডোমার উপজেলার এক এসএসসি পরীক্ষার্থী। রোববার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। ওই ছাত্রীর নাম তৃষ্ণা রায় (১৬)। সে উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের দোদিপাড়ার দিনমজুর দুলাল রায়ের মেয়ে।

সে স্থানীয় মাহিগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। এ ঘটনায় এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। রোববারের ঘটনা হলেও সোমবার পর্যন্ত এ ভুলের দায়দায়িত্ব নিরূপণে শিক্ষা বোর্ড কোনো পদক্ষেপ নেয়নি বলে জানা গেছে।

ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা : লালমনিরহাট প্রতিনিধি জানান, বড়বাড়ী শহীদ আবুল কাশেম উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে এসএসসি বাংলা প্রথমপত্রের পরীক্ষা ২০১৮ সালের পুরাতন প্রশ্নপত্রে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ ঘটনায় কেন্দ্র সচিব শফিকুল ইসলামসহ পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কমিটির ১৭ জন সদস্যের সবাইকে পরবর্তী পরীক্ষা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। লালমনিরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পরীক্ষা কমিটির সভাপতি উত্তম কুমার রায় এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি জানান, ২০১৮ সালের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দিয়েছে ১৮ শিক্ষার্থী। সোমবার সকালে কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। পরে শিক্ষার্থীদের বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পুনরায় পরীক্ষা নেয়া হয়।

ওই কেন্দ্রের সচিব ও কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হক দাবি করেন, বোর্ড থেকে সরবরাহ করা বাংলা প্রথমপত্র নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নের একটি প্যাকেটে ভুলক্রমে ২০১৮ সালের প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়েছে।

শিক্ষকরা বিষয়টি প্রথমে বুঝতে পারেননি। পরীক্ষা শেষে খাতা যাচাই-বাছাইয়ের সময় ভুলটি ধরা পড়ে। তিনি দাবি করেন ইতিমধ্যে যারা ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা দিয়েছে তাদের পুনরায় পরীক্ষা নেয়া হয়েছে।

আশুগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে দাখিল পরীক্ষার্থীদের নকল সরবরাহের দায়ে পাঁচ শিক্ষককে দুই বছর করে জেল দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আশুগঞ্জ সার কারখানা স্কুল কেন্দ্রের মাদ্রাসা পরীক্ষার্থীদের এমসিকিউ উত্তরপত্র লিখে নকল সরবরাহ করার সময় আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজিমুল হায়দার হাতেনাতে মাদ্রাসার পাঁচ শিক্ষককে ধরে ফেলেন।

তারা হলেন- চর চারতলা ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসার সহ-সুপার মাওলানা মাজহারুল ইসলাম, সহকারী শিক্ষক শফিকুল ইসলাম, খৌরাপাড়া উমেদ আলি শাহ দাখিল মাদ্রাসার সহ-সুপার মহিউদ্দিন মোল্লা, সরাইল উপজেলার পানিশ্বর মাদিনীয়া মাদ্রাসার সহ-সুপার আব্বাস আলী এবং আশুগঞ্জ উপজেলার তালশহর করিমিয়া কামিল মাদ্রাসার সহ-সুপার কবির হোসেন।

পুলিশের ওপর হামলা : আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি জানান, পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে বহিরাগতদের বের হতে বলাকে কেন্দ্র করে মো. আলমগীর হোসেন নামে এক পুলিশ অফিসারকে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, আখাউড়া পৌরসভার মেয়র ও যুবলীগের আহ্বায়ক তাকজিল খলিফার ভাতিজা হাসান খলিফা তার সাঙ্গোপাঙ্গ নিয়ে পুলিশের ওপর চড়াও হন এবং লাঞ্ছিত করেন।

এ ঘটনায় পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। পুলিশ অবশ্য বলছে, এ বিষয়ে থানায় জিডি করা হয়েছে। সোমবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে আখাউড়া রেলওয়ে উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পরীক্ষার্থীরা ভয়ে দিগ্বিদিক ছোটাছুটি শুরু করে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : এসএসসি পরীক্ষা-২০২০