করোনাভাইরাস: শাহজালাল বিমানবন্দরে নানা দুর্বলতা

থার্মাল স্ক্যানার অকেজো, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নেই স্বাস্থ্যকর্মীদের * সারা বিশ্বে মৃত্যু ১,৭১৬, আক্রান্ত ৬৩ হাজার ৮৫১

  রাশেদ রাব্বি ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাস
করোনাভাইরাস। ফাইল ছবি

হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় রয়েছে নানা দুর্বলতা। সেখানকার পরীক্ষা যন্ত্রগুলো সঠিকভাবে কাজ করছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। স্বাস্থ্য কর্মীদেরও নেই যথেষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা। চীনসহ বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৭১৬ জন। আক্রান্তের সংখ্যা ৬৩ হাজার ছাড়িয়েছে।

দেশটির হুবেই প্রদেশে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা কমলেও তাতে এখনই আশাবাদী হওয়ার কারণ নেই বলে মন্তব্য করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এদিকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে থাকা উহান ফেরত ৩১২ বাংলাদেশি আজ বাড়ি ফিরতে পারবেন। চীনে নতুন করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর বাংলাদেশে বিমান, সমুদ্র ও স্থলবন্দরে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

কিন্তু হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেয়া পদক্ষেপ পর্যাপ্ত ও যথাযথ হয়নি বলে তথ্য পাওয়া গেছে। সেখানে পরীক্ষা যন্ত্রগুলো সঠিকভাবে কাজ করছে না। স্বাস্থ্য কর্মীদেরও যথেষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেই। এর ফলে নতুন করোনাভাইরাস প্রতিরোধ এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের ব্যক্তিগত নিরাপত্তা দুই-ই বিঘ্নিত হচ্ছে।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কর্মরত চিকিৎসকসহ একাধিক স্বাস্থ্য কর্মী যুগান্তরকে জানান, বিমানবন্দরের দুটি টার্মিনালের থার্মাল স্ক্যানারই অকেজো। ভিআইপি স্ক্যানারটি একেবারেই নষ্ট। আর অ্যারাইভাল স্ক্যানারটি বেশিরভাগ সময় কাজ করে না।

এক্ষেত্রে স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা অনুসারে স্বাস্থ্যকর্মীরা ইনফায়ার থার্মোমিটার দিয়ে যাত্রীদের তাপমাত্রা পরীক্ষা করেন। কিন্তু এক্ষেত্রে দেখা গেছে মেশিনগুলো সব যাত্রীর শরীরের তাপমাত্রা একই প্রদর্শন করেছে। এমন পরিস্থিতি চলতে থাকলে যে কোনো সময় দেশে এ ভাইরাসের বাহক সবার সামনে দিয়েই প্রবেশ করতে পারে। যেখানে কারও কিছুই করার থাকবে না।

তারা আরও জানান, যাত্রীদের পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর্মীদের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও নাজুক। তাদের একটি গাউন দেয়া হয় এক সপ্তাহের জন্য। নেই কোনো হ্যান্ড গ্লাভস। পর্যাপ্তসংখ্যক মাস্ক থাকলেও সেগুলো সার্জিক্যাল মাস্ক, এন্টি ভাইরাল মাস্ক নয়। সম্প্রতি একজন স্বাস্থ্যকর্মী এসব অসঙ্গতির বিষয়ে বলতে চাইলে বিমানবন্দরে দায়িত্বরত স্বাস্থ্য কর্র্মকর্তা তার সঙ্গে রুঢ় আচরণ করেন।

তারা জানান, যখন স্বাস্থ্য অধিদফতরের কোনো পরিচালক বিমানবন্দর পরিদর্শনে যান, তখন আগে থেকেই স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রস্তুত করে রাখা হয়। বাকি সময় এসবের কোনো বালাই থাকে না। তাছাড়া সবাইকে কঠোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে, এসব অসঙ্গতির কথা পদস্থ কাউকে বললে বরখাস্ত করা হবে। সেই ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পান না তারা।

এসব বিষয়ে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা যুগান্তরকে বলেন, বিমানবন্দরের স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য সার্জিক্যাল মাস্ক ব্যবহার মোটেও ঝুঁকিপূর্ণ নয়। তবে থার্মাল স্ক্যানার ও ইনফায়ার থার্মোমিটারসহ অন্যান্য বিষয়গুলোর খোঁজ নেয়া হবে।

চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান শহর থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৭১৬ জন। আক্রান্তের সংখ্যা ৫ হাজার ৯০ থেকে বেড়ে ৬৩ হাজার ৮৫১ জনে দাঁড়িয়েছে। দেশটির সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ার পর আরও ২৪টি দেশে সংক্রমণ ঘটেছে করোনাভাইরাসের।

করোনাভাইরাসে রেকর্ড মৃত্যুর পরদিনই পরিস্থিতির উন্নতি দেখা গেল চীনের হুবেই প্রদেশে। সেখানে মৃত্যুর সংখ্যা আগের দিনের চেয়ে অর্ধেকে নেমে এসেছে। ডিসেম্বরের শেষ দিকে করোনা সংক্রমণের পর বুধবার ভয়ংকর দিন এসেছিল চীনের হুবেইয়ে; একদিনে ২৪২ জনের মৃত্যু এবং প্রায় ১৫ হাজার নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে।

গুজব ছড়ানো ব্যক্তিরা দেশের মঙ্গল চায় না : বাংলাদেশে করোনাভাইরাস নিয়ে যারা গুজব ছড়ায়, তারা দেশের মঙ্গয় চায় না, বরং তারা দেশের ভেতর আতঙ্ক ছড়িয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

শুক্রবার বিকালে মাদারীপুরে ‘আচমত আলী খান সেন্ট্রাল হাসপাতাল’ উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি একথা বলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিমানে প্রতিদিন প্রায় ১২ হাজার যাত্রী বাংলাদেশে আসেন। তাদের প্রত্যেককেই স্ক্যানারের ভেতর দিয়ে আসতে হয়। স্ক্যানারের ভেতর ছাড়া কেউ দেশে ঢুকতে পারেন না। সেই স্ক্যানার দিয়ে আমরা দেখতে পাই কারও জ্বর আছে কিনা, কেউ অসুস্থ কিনা। জ্বর হলেই তাকে আলাদা করে ফেলি। এর জন্য আমরা ভিন্ন জায়গাও তৈরি করে রেখেছি।

তিনি বলেন, আমাদের সজাগ থাকতে হবে, যাতে এ দেশে কোনো করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী না আসে। যাদের আগে আনা হয়েছিল, তাদের কোনো করোনাভাইরাসের সিম্পটম পাওয়া যায়নি। তারা শনিবার (আজ) নিজ নিজ বাড়িতে যেতে পারবেন।

হজ ক্যাম্পে চীন ফেরতদের মুক্তি আজ : আশকোনার হজ ক্যাম্পে থাকা উহান ফেরত বাংলাদেশিদের কোয়ারেন্টাইনের ১৪ দিন পূর্ণ হবে আজ। আইইডিসিআরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরার নেতৃত্বে আইইডিসিআর ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে একটি দল শুক্রবার আশকোনা অস্থায়ী কোয়ারেন্টাইন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এ সময় তারা কোয়ারেন্টাইন সমাপ্তি শেষে করণীয় নিয়ে বৈঠক করেন। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, আজ বিকালে সবার সর্বশেষ স্ক্রিনিং করা হবে। কোয়ারেন্টাইন পরবর্তী সময়ে তাদের আইইডিসিআরের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখার পরামর্শ দেয়া হবে।

শুক্রবার বেলা ১১টায় আইইডিসিআর মিলনায়তনে অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে আইসোলেশন ইউনিটে রাখা ১১ জন এবং আশাকোনা অস্থায়ী কোয়ারেন্টাইন কেন্দ্রে উহান ফেরত ৩০১ জন বাংলাদেশি নাগরিক সুস্থ আছেন।

সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে প্রেরিত সর্বশেষ খবরে আমরা জানতে পেরেছি, ৪ জন বাংলাদেশের নাগরিক COVID-19 সংক্রমিত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে ১ জন আইসিইউতে আছেন। এছাড়া কোয়ারেন্টাইনে আছেন আরও ৬ বাংলাদেশি। এ পর্যন্ত আইইডিসিআরে ৬২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। সেখানে কোনো সংক্রমণের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।

এখনই আশাবাদী নয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা : চীনের হুবেইয়ে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা কমলেও তাতে এখনই আশাবাদী হওয়ার কারণ দেখছে না বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংস্থার জরুরি স্বাস্থ্য কর্মসূচির প্রধান মাইক রায়ান বিবিসিকে বলেন, চীনে রোগ পরীক্ষার পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনার ফলে এক দিনে বড় পরিবর্তন দেখা দিয়েছিল।

এটা এ ইঙ্গিত দেয় না যে পরিস্থিতির গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন হয়েছে। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, নতুন করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শেষ হয়ে আসছে এমন কথা বলার সময় এখনও আসেনি। এখনও পরিস্থিতি যে কোনো দিকে যেতে পারে। বিভিন্ন দেশে মানুষ থেকে মানুষে নভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার খবর আসতে থাকায় ৩০ জানুয়ারি এ ভাইরাস নিয়ে বৈশ্বিক জরুরি অবস্থা জারি করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

সিঙ্গাপুরে স্বাস্থ্যকর্মীদের ভ্যালেন্টাইনস বার্তা : সিঙ্গাপুরের মানুষেরা করোনাভাইরাস ঠেকাতে ও আক্রান্তদের সেবায় নিয়োজিত চিকিৎসাকর্মীদের প্রতি ধন্যবাদ জানাতে ভ্যালেন্টাইনস ডেতে হাতে লেখা বিভিন্ন বার্তা প্রকাশ করছেন। দেশটিতে এ ভাইরাসে আক্রান্ত ৫০ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। সরকার ভাইরাস ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, শিশুসহ অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ-মাধ্যমে চিকিৎসাসেবায় নিয়োজিতদের প্রতি ভালোবাসা ও সমর্থন জানাচ্ছেন। সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সেইন লুং তার ফেসবুক পেজে লিখেছেন, একে অন্যকে সহযোগিতা ও উৎসাহ দিতে আমরা নিজেদের দায়িত্ব পালন করি। এই কঠিন সময় আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে অতিক্রম করব।

এদিকে নতুন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বৃহস্পতিবার জাপানে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়েছে। মারা যাওয়া নারীর বয়স ছিল ৮০ বছর। তিনি টোকিওর দক্ষিণ-পশ্চিমে কানাগাওয়াতে থাকতেন। জাপানের গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, ওই নারীর চীনের হুবেই প্রদেশের সঙ্গে কোনো ধরনের যোগাযোগ ছিল না। ভিয়েতনামের একটি গ্রামে ছয়জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার পর ১০ হাজার লোককে আলাদা করে রাখা হয়েছে।

জাপানের ইয়োকোহামায় পৃথক করে রাখা ডায়মন্ড প্রিন্সেস নামের জাহাজটিতে ৩ হাজার ৭০০ যাত্রী ও ক্রু রয়েছেন। সবাইকে এখনও পরীক্ষা করা হয়নি। যারা আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের নামিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×