বাড়ি পাবেন ১৪ হাজার অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা

  সংসদ রিপোর্টার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মুজিববর্ষে অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য গৃহনির্মাণ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।
ফাইল ছবি

মুজিববর্ষে অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য গৃহনির্মাণ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

তিনি বলেছেন, মুজিববর্ষে ১৪ হাজার অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাকে ১৬ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি করে বাড়ি দিয়ে সম্মানিত করা হবে। জাতীয় সংসদে কার্যপ্রণালি বিধির ৭১ বিধিতে জরুরি জনগুরুত্বসম্পন্ন বিষয়ে শাজাহান খানের আনা নোটিশের জবাব দিতে গিয়ে রোববার মন্ত্রী এ কথা বলেন।

মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা পর্যায়ক্রমে বাড়িয়ে ১২ হাজার টাকায় উন্নীত এবং শতভাগ মুক্তিযোদ্ধারা ভাতার আওতাভুক্ত হয়েছেন জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ভাতা বৃদ্ধির বিষয়ে আগামী বাজেটে সক্রিয় বিবেচনাধীন আছে। এছাড়া স্বাধীনতার ৫০ বছরেও মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য অনেক উপহার থাকবে।

তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসার জন্য প্রত্যেক হাসপাতাল ও বিশেষায়িত হাসপাতালকে ৫০ লাখ থেকে ১ কোটি টাকা আগাম দিয়েছি, যাতে কোনো মুক্তিযোদ্ধা টাকার অভাবে চিকিৎসা না করে ফিরে না যান।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। সেই অনুযায়ী ৫০ শতাংশ টাকা খরচ করার পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ যখন দাবি করবে তখনই তাদের টাকা বরাদ্দ হয়ে যায়।

গত ৩ বছরে ঢাকার বায়ু বেশি খারাপ হয়েছে : শুষ্ক মৌসুমে অর্থাৎ সেপ্টেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত বায়ু দূষণের মাত্রা ক্রমান্বয়ে বেড়ে যায় বলে সংসদে জানিয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী শাহাব উদ্দিন।

তিনি বলেন, ২০০২ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত বায়ুমানের ডাটা পর্যালোচনা করে দেখা যায়, ২০১৬ থেকে ২০১৯- এই তিন বছর বায়ুমান বেশি খারাপ হয়েছে। এ সময় বিভিন্ন বড় অবকাঠামো নির্মাণ কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি পাওয়ায় এমনটি ঘটেছে।

মনজুর হোসেনের প্রশ্নের লিখিত জবাবে এ তথ্য জানান পরিবেশমন্ত্রী। তিনি জানান, পরিবেশ অধিদফতর দেশে বিদ্যমান ইটভাটাগুলোকে জ্বালানি সাশ্রয়ী ও পরিবেশবান্ধব উন্নত প্রযুক্তিতে রূপান্তরের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।

অবৈধ পরিবেশ দূষণকারী ইটভাটার বিরুদ্ধে ২০১৫ সাল থেকে অভিযান পরিচালনা করে ২০১৯ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ১৭ কোটি ৯৯ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। ইতিমধ্যে সারা দেশে প্রায় ৬শ’ অবৈধ ইটভাটা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সব অবৈধ ইটভাটা বন্ধ করা হবে।

পরিবেশমন্ত্রী জানান, মাটি ব্যবহার করে পোড়ানো ইট উৎপাদন ও ব্যবহার শূন্যতে নামিয়ে আনার লক্ষ্যে ২০১৫ সালের মধ্যে শতভাগ ব্লক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। পরবর্তীতে সব বেসরকারি কাজে ইটের বিকল্প ব্লক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করার পরিকল্পনা রয়েছে।

শাহে আলমের প্রশ্নের লিখিত জবাবে মন্ত্রী জানান, পরিবেশের জন্য চরম ক্ষতিকর নিষিদ্ধঘোষিত পলিথিন বন্ধে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে নিষিদ্ধ ঘোষিত পলিথিন তৈরির কারখানায় অভিযান চালিয়ে পলিথিন জব্দ, জরিমানা ধার্য ও আদায় করা হচ্ছে।

প্রচলিত পলিথিনের বিকল্প হিসেবে বায়োডিগ্রেডেবল পলিথিন বাজারজাতকরণ এবং ব্যবহৃত পলিথিন রিসাইক্লিংয়ের মাধ্যমে পূর্ণ ব্যবহার করার উদ্যোগ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও তিনি জানান।

ইঁদুরে নষ্ট হয়েছে পৌনে ৫ লাখ টন ফসল : গত ৫ বছরে ইঁদুরে ৪ লাখ ৭৪ হাজার ৮০৫ টন ফসল নষ্ট করেছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক। প্রতি বছর ইঁদুরের আক্রমণে আমন ধানের ৫-৭ শতাংশ, গমের ৪-১২ শতাংশ, আলু ৫-৭ শতাংশ, আনারস ৬-৯ শতাংশ নষ্ট হয়।

ইঁদুরের কারণে গড়ে মাঠে ফসলের ৫-৭ শতাংশ এবং গুদামজাত শস্যের ৩-৫ শতাংশ ক্ষতি করে থাকে। এর মধ্যে ২০১৮ সালে ইঁদুরের আক্রমণে প্রায় ১ লাখ টন ফসলের ক্ষতি হয় বলে জানান কৃষিমন্ত্রী। হাবিবা রহমান খানের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।

নুরুন্নবী চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে কৃষিমন্ত্রী জানান, রেজিস্ট্রেশনবিহীন অবৈধ ও নিুমানের কীটনাশক বিক্রি বন্ধের লক্ষ্যে সরকার বালাইনাশক আইন ২০১৮ প্রণয়ন করেছে। নতুন বালাইনাশক বিধিমালা প্রণয়নের কাজ চলছে। মাঠপর্যায়ে প্রত্যেক উপজেলায় বালাইনাশক পরিদর্শক রয়েছেন। নিুমানের বালাইনাশক পাওয়া গেলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়ার সুযোগ রয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : মুজিববর্ষ

আরও

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৪৮ ১৫
বিশ্ব ৬,২২,১৫৭১,৩৭,৩৬৪২৮,৭৯৯
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×