অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল

  হাসান আজিজুল হক ১৫ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশে মানুষের মতো মানুষ উল্লেখ করার মতো বেশি আর নেই। সেখানে দু-চারজন মানুষ আছেন, যাদের কৃতি, কর্ম, কথা, ভাবনা, ভাবচরিত্র, সমাজভাবনা- এসবই আমাদের সবার আন্দাজকে ছাড়িয়ে অনেক উপরে চলে গেছে।

তারমধ্যে যিনি একজন তিনি হচ্ছেন অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

এমন মহৎপ্রাণ ব্যক্তি আমাদের এই সমাজে আর থাকল ক’জন। তিনি নিজের নামের আগে কখনোই বিশেষণ ব্যবহার করতেন না, করতে পছন্দ করতেন না। অতি প্রাকৃতজন হিসেবে কেউ তাকে প্রকাশ করলে তিনি উৎসাহিত করতেন না। এমনই একজন মানুষ অধ্যাপক আনিসুজ্জামান আমাদের ছেড়ে গেলেন।

নিরহংকার, একেবারেই সাদাসিধে একটা প্রকৃত জ্ঞানী মানুষ, একজন সজ্জন, অপার আপনজন আমাদের মাঝে ছিলেন- এটা বিশ্বাস করা কঠিন হয়ে যাচ্ছে। আমাদের মধ্যেই ছিলেন, আজ আমাদের ফেলে চলে গেলেন। আমরা হারালাম একটি মূল্যবান জাতীয় সম্পদ। দেশ হারাল তার একজন সুসন্তানকে। জাতি হারাল একজন মহান অভিভাবককে।

কিছু মানুষ নিজের কর্ম ও পরিচয়ের গুণে ধীরে ধীরে একটি জাতির জন্য মহিরুহসম আকার ধারণ করেন। জাতির বাতিঘর জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান তেমনই একজন ছিলেন। কয়েক প্রজন্মের প্রিয় শিক্ষক এই বাতিঘর সর্বজনমান্য ‘স্যার’ হিসেবেই পরিচিত ও গণ্য ছিলেন সর্বমহলে।

দেশ ও মানুষের যে কোনো ক্রান্তিকালে, সংকটকালে তিনি অতন্দ্র বাতিঘরের মতো যুক্তিনিষ্ঠ, গণতান্ত্রিক ও অসাম্প্রদায়িকতার পক্ষে নিরাবেগ, নির্মোহ সমতার মতামত ও দিকনির্দেশ প্রদান করতেন। জাতির এই ক্ষতি পূরণীয় নয়।

বাঙালি ও মানুষের বয়সের হিসাবে তিনি অল্প বয়সে চলে গেছেন সেটা বলা যাবে না; কেননা আগের মানুষরা এ বয়স পেতেন না। তিনি অকালে চলে গেলেন, তাও নয়। তবে তিনি আমাদের জন্য বিরাট শূন্যতা রেখে গেলেন। এ শূন্যতা আর কিছু দিয়ে পূরণ হওয়ার নয়। অন্য শূন্যতা পূরণ করা গেলেও এই বিশেষ মানুষটির শূন্যতা শিগগির পূরণ হওয়ার উপায়ও নেই।

বাঙালি জাতির এবং বাংলাভাষীদের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল। জাতি চিরকাল অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের কথাই মনে করবে।

বলতেই হয়, কালের নিয়মে কোনো শূন্যস্থান চিরকাল শূন্য হয়ে থাকে না। যেভাবেই হোক সেটা পরিপূর্ণ হয়ে যায়। এভাবে কত শূন্যতা পূরণ হয়েছে। কিন্তু এ মুহূর্তে অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের শূন্যতা আর পূরণ হওয়া সম্ভব নয়।

তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করি। বাঙালির মানসপটে অধ্যাপক আনিসুজ্জামান চির জাগরূক থাকবে-শুরু আর শেষ প্রজন্মও এই মহান ব্যক্তিত্বকে ভুলে যাবে না, তেমন আশাই করি।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত