বিশ্বে মৃত্যু কমছে করোনায়

  যুগান্তর ডেস্ক ০৭ জুলাই ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বে করোনায় প্রাণহানি কমছে। কোনো কোনো দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু আগের দিনের চেয়ে অর্ধেকে নেমে এসেছে। যুক্তরাষ্ট্রে তিন দিন ধরে মৃত্যু ৩শ’র নিচে। স্পেনে দু’দিন ধরে কোনো মৃত্যুই নেই। তবে দেশটির গালিসিয়া অঞ্চলে ফের করোনা সংক্রমণ দেখা দেয়ায় সেখানে লকডাউন জারি করা হয়েছে।

এদিকে আক্রান্তের সংখ্যায় রাশিয়াকে পেছনে ফেলে তিনে উঠে এসেছে ভারত। দেশটির বিজ্ঞান মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ২০২১ সালের আগে করোনাভাইরাসের কোনো ভ্যাকসিন বাজারে আসছে না। করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন পাকিস্তানের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাফর মির্জা ও বলিভিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মারিয়া ইদি রোকা। করোনার কারণে জর্ডানের ডেপুটেশন সেন্টারে আটকা পড়েছেন ১০৩ বাংলাদেশি নারীকর্মী।

খবর বিবিসি, গার্ডিয়ান ও এএফপিসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের। বাংলাদেশ সময় সোমবার রাত ১টা পর্যন্ত ওয়ার্ল্ডওমিটারসের তথ্যানুযায়ী, বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ১৬ লাখ ৬০ হাজার ৯০১ জন। মারা গেছেন ৫ লাখ ৩৮ হাজার ৬০০ জন। অবস্থা আশঙ্কাজনক ৫৮ হাজার ৭৩৫ জনের।

সুস্থ হয়েছেন ৬৬ লাখ ৮২৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৭৫ হাজার ৪৯৯ জন, যা আগের দিন ছিল ১ লাখ ৮৯ হাজার ৬২৬ জন। অন্যদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩ হাজার ৫৭২ জন, যা আগের দিন ছিল ৪ হাজার ৪৯২ জন। এ হিসাবে বিশ্বে দৈনিক মৃত্যু কমেছে ৯২০ জন।

বিশ্ব তালিকায় শীর্ষে থাকা যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২৫১ জনের, যা আগের দিন ছিল ২৫৪ জন। দেশটিতে মোট রোগীর সংখ্যা ৩০ লাখ ১০ হাজার ৩২৯ জন, মারা গেছেন ১ লাখ ৩২ হাজার ৭২৯ জন। মৃত্যু কিছুটা কমলেও কয়েক সপ্তাহ ধরে দেশটির দক্ষিণ-পূর্ব ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকাগুলোয় সংক্রমণ বেড়েছে।

করোনায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের অন্তত ৩৭টি অঙ্গরাজ্য। টেক্সাসে করোনায় সবচেয়ে বেশি ভুক্তভোগী এলাকাগুলোর মধ্যে অন্যতম হিউস্টন। যুক্তরাষ্ট্রের চতুর্থ সর্বোচ্চ জনবহুল শহরটিতে হুহু করে বাড়ছে সংক্রমণ। এ অবস্থা চলতে থাকলে আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যেই সেখানকার হাসপাতালগুলোর ধারণক্ষমতা পূর্ণ হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন মেয়র সিলভেস্টার টার্নার। তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৫৩৫ জনের, যা আগের ২৪ ঘণ্টায় ছিল ১ হাজার ১১১ জন। দেশটিতে মোট রোগীর সংখ্যা ১৬ লাখ ১৩ হাজার ৩৫১ জন, মৃত্যু হয়েছে ৬৫ হাজার ১২০ জনের।

রাশিয়াকে টপকে আক্রান্তের সংখ্যায় বিশ্বে তিন নম্বরে উঠে এসেছে ভারত। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৪২১ জন, যা আগের দিন ছিল ৬১০ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৭ লাখ ২০ হাজার ৩৪৬ জন, মৃত্যু হয়েছে ২০ হাজার ১৭৪ জনের। চতুর্থ স্থানে রাশিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১৩৪ জন, যা আগের দিন ছিল ১৬৮ জন।

দেশটিতে মোট রোগীর সংখ্যা ৬ লাখ ৮৭ হাজার ৮৬২ জন, মৃত্যু হয়েছে ১০ হাজার ২৯৬ জনের। এদিকে আক্রান্তের সংখ্যায় বিশ্ব তালিকায় যুক্তরাজ্য ও স্পেনকে পেছনে ফেলে পঞ্চম স্থানে উঠে আসা পেরুতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১৭৭ জন, যা আগের ২৪ ঘণ্টায় ছিল ১৮৬ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৩ লাখ ২ হাজার ৭১৮ জন, মারা গেছেন ১০ হাজার ৫৮৯ জন।

স্পেনের গালিসিয়া অঞ্চল লকডাউন : স্পেনের জনপ্রিয় উপকূলবর্তী এলাকা গালিসিয়াকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এর ফলে সেখানকার ৭০ হাজার মানুষ গৃহবন্দি হয়ে পড়েছেন। গালিসিয়ায় হঠাৎ করে আক্রান্তের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়েছে। সেখানে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ প্রবেশ করতে বা বের হতে পারবেন না। লকডাউন চলবে পাঁচ দিন।

পাকিস্তান ও বলিভিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী আক্রান্ত : এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেন পাকিস্তানের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাফর মির্জা। দু’দিন আগে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মুহাম্মদ কুরেশীর করোনা ধরা পড়ে। সোমবার টুইটারে স্বাস্থ্যমন্ত্রী তার পরীক্ষার ফল পজিটিভ হওয়ার কথা জানান।

মন্ত্রী লেখেন: স্বাস্থ্য পরামর্শ অনুযায়ী আমি নিজেকে ঘরে আইসোলেশনে রেখেছি এবং সব ধরনের পূর্বসতর্কতা মেনে চলছি। এদিকে করোনাভাইরাস পরীক্ষার ফল পজিটিভ হয়েছে বলিভিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মারিয়া ইদি রোকার। তবে তার অবস্থা স্থিতিশীল বলে নিশ্চিত করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

২০২১ সালের আগে ভারতীয় ভ্যাকসিন আসছে না : ২০২১ সালের আগে করোনাভাইরাসের কোনো ভ্যাকসিন বাজারে আসছে না বলে জানিয়েছে ভারতের বিজ্ঞান মন্ত্রণালয়। একদিন আগে বায়োটেক ইন্ডিয়ার তৈরি করোনার সম্ভাব্য টিকা কো-ভ্যাকসিন ১৫ আগস্টের মধ্যে মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শেষ হবে-এমন ঘোষণা দেয়ার পর ব্যাপক সমালোচনা আসে বিশেষজ্ঞ মহল থেকে।

স্প্যানিশ ফ্লুর পর করোনাকে হারালেন বৃদ্ধ : ১৯১৮ সালে যখন স্প্যানিশ ফ্লু মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছিল, তখন তার বয়স চার বছর। স্প্যানিশ ফ্লুর মহামারী থেকে প্রাণে বেঁচে যাওয়া ওই ব্যক্তি ১০৬ বছর বয়সে আরেক মহামারী কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হন।

তবে ভারতের রাজধানী দিল্লির একটি হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে তিনি এখন সুস্থ। তিনি একা নন, তার স্ত্রী, ছেলে ও পরিবারের আরও কয়েকজন সদস্যও করোনায় আক্রান্ত হয়ে সম্প্রতি দিল্লির রাজীব গান্ধী সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি হন। এরপর ৭০ বছর বয়সী ছেলের আগেই সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন তিনি।

জর্ডানে আটকা ১০৩ বাংলাদেশি নারীকর্মী : করোনার কারণে জর্ডানের ডেপুটেশন সেন্টারে আটকা পড়ে আছেন ১০৩ বাংলাদেশি নারীকর্মী। চার মাস ধরে দেশে ফেরার অপেক্ষায় তারা। দেশে ফেরার যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন হলেও শুধু ফ্লাইট জটিলতায় তা বিলম্ব হচ্ছে।
আম্মানের বাংলাদেশ দূতাবাস জানিয়েছে, আটকে পড়া ৮৭ জন প্রশাসনিক কারণে, দু’জন বিচারিক কারণে এবং ১৪ জন বিভিন্ন ফৌজদারি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত। তবে তাদের এখন দেশে ফিরতে কোনো বাধা নেই।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত