রাশিয়ার করোনা ভ্যাকসিন ‘কার্যকর ও নিরাপদ’
jugantor
রাশিয়ার করোনা ভ্যাকসিন ‘কার্যকর ও নিরাপদ’
টিকা আসবে এ বছরই -ফাউসি * ভারতে টিকার মানব পরীক্ষা শুরু

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৭ জুলাই ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাশিয়ার সেনাবাহিনীর দাবি, তাদের দেশে তৈরি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে ‘কার্যকর ও নিরাপদ’ বলে প্রমাণিত হয়েছে।

প্রথম পর্যায়ে যে ১৮ জন স্বেচ্ছাসেবকের দেহে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছিল, তারা সবাই এখন করোনা থেকে সুরক্ষিত।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. অ্যান্থনি ফাউচি বলেছেন, এ বছরই করোনাভাইরাসের একটি টিকা আনতে সক্ষম হবেন দেশটির বিজ্ঞানীরা। ভারতেও করোনার টিকার মানব পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

১২ জুলাই রাশিয়ার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, গামালেই ইনস্টিটিউট অব এপিডেমোলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজির উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সফলভাবে শেষ করেছে তারা।

বুধবার রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ই-মেইল বিবৃতিকে উদ্ধৃত করে সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, একটি সামরিক হাসপাতালে প্রথম ধাপের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে অংশ নেয়া ১৮ জন স্বেচ্ছাসেবীকে ২৮ দিন পর্যবেক্ষণে রাখার পর ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ভ্যাকসিন প্রয়োগের ২৮ দিন পরে ওই স্বেচ্ছাসেবকদের শরীরে গুরুত্বপূর্ণ সব লক্ষণই স্বাভাবিক সীমার মধ্যেই ছিল। তাদের শরীরে মারাত্মক ক্ষতিকর কোনো প্রভাব বা স্বাস্থ্য সংক্রান্ত জটিলতা তৈরি হয়নি। কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও দেখা যায়নি।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, এখন ‘আমরা জোর দিয়ে এটা বলতে পারছি, এই ভ্যাকসিনটি নিরাপদ।’

করোনার টিকা আসবে এ বছরই : রয়টার্সকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ফাউচি বলেন, আশা করছি এ বছরই করোনাভাইরাসের একটি টিকা আনতে সক্ষম হবেন বিজ্ঞানীরা। মার্কিন বায়োটেক প্রতিষ্ঠান মডার্নার তৈরি করোনার টিকা প্রথম ট্রায়ালে আশা জাগানোর পর ফাউচি এমন মন্তব্য করলেন।

তিনি বলেন, মডার্নার টিকার ফলাফল খুব আশা জাগিয়েছে। কারণ প্রাকৃতিক একটি সংক্রমণের ক্ষেত্রে শরীরে যে ধরনের সুরক্ষা ব্যবস্থা তৈরি হয়, এই টিকা তেমনই প্রতীয়মান হয়েছে। ২৭ জুলাই শেষ ধাপের ট্রায়াল শুরু হবে মডার্নার টিকার।

এদিকে অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীরা বলেছেন, সেপ্টেম্বরের মধ্যে তাদের টিকা বাজারে আনতে ’৮০ শতাংশ আত্মবিশ্বাসী তারা। তাদের পরীক্ষামূলক টিকা প্রয়োগে মানুষের দেহে অ্যান্টিবডি বেড়েছে এবং ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সক্ষম টি সেল নামের শ্বেত রক্তকণিকার হারও দেখা গেছে উল্লেখযোগ্য হারে।

ভারতে টিকার মানব পরীক্ষা শুরু : ভারতে করোনার সম্ভাব্য টিকার মানব পরীক্ষা শুরু করেছে ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট আহমেদাবাদের জাইদাস ক্যাডিলা। প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে ভ্যাকসিনের ট্রায়ালের জন্য ড্রাগ কন্ট্রোলের অনুমতি মিলেছিল আগেই।

জাইদাস জানিয়েছে, দুই পর্যায়ে ১০৪৮ জনকে টিকা দেয়া হবে। ভারতে ভ্যাকসিনের দৌড়ে এগিয়ে জাইদাস ক্যাডিলার তৈরি জাইকভ-ডি ভ্যাকসিন ক্যানডিডেট এবং ভারত বায়োটেক ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের তৈরি কোভ্যাক্সিন।

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চের (আইসিএমআর)-এরডিরেক্টর জেনারেল ডক্টর বলরাম ভার্গব বুধবার জানিয়েছিলেন, দেশটির বিভিন্ন জায়গায় এই দুই ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হবে। প্রতিটির জন্য প্রায় হাজার জন করে স্বেচ্ছাসেবক বেছে নেয়া হয়েছে।

রাশিয়ার করোনা ভ্যাকসিন ‘কার্যকর ও নিরাপদ’

টিকা আসবে এ বছরই -ফাউসি * ভারতে টিকার মানব পরীক্ষা শুরু
 যুগান্তর ডেস্ক 
১৭ জুলাই ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাশিয়ার সেনাবাহিনীর দাবি, তাদের দেশে তৈরি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে ‘কার্যকর ও নিরাপদ’ বলে প্রমাণিত হয়েছে।

প্রথম পর্যায়ে যে ১৮ জন স্বেচ্ছাসেবকের দেহে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছিল, তারা সবাই এখন করোনা থেকে সুরক্ষিত।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. অ্যান্থনি ফাউচি বলেছেন, এ বছরই করোনাভাইরাসের একটি টিকা আনতে সক্ষম হবেন দেশটির বিজ্ঞানীরা। ভারতেও করোনার টিকার মানব পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

১২ জুলাই রাশিয়ার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, গামালেই ইনস্টিটিউট অব এপিডেমোলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজির উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সফলভাবে শেষ করেছে তারা।

বুধবার রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ই-মেইল বিবৃতিকে উদ্ধৃত করে সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, একটি সামরিক হাসপাতালে প্রথম ধাপের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে অংশ নেয়া ১৮ জন স্বেচ্ছাসেবীকে ২৮ দিন পর্যবেক্ষণে রাখার পর ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ভ্যাকসিন প্রয়োগের ২৮ দিন পরে ওই স্বেচ্ছাসেবকদের শরীরে গুরুত্বপূর্ণ সব লক্ষণই স্বাভাবিক সীমার মধ্যেই ছিল। তাদের শরীরে মারাত্মক ক্ষতিকর কোনো প্রভাব বা স্বাস্থ্য সংক্রান্ত জটিলতা তৈরি হয়নি। কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও দেখা যায়নি।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, এখন ‘আমরা জোর দিয়ে এটা বলতে পারছি, এই ভ্যাকসিনটি নিরাপদ।’

করোনার টিকা আসবে এ বছরই : রয়টার্সকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ফাউচি বলেন, আশা করছি এ বছরই করোনাভাইরাসের একটি টিকা আনতে সক্ষম হবেন বিজ্ঞানীরা। মার্কিন বায়োটেক প্রতিষ্ঠান মডার্নার তৈরি করোনার টিকা প্রথম ট্রায়ালে আশা জাগানোর পর ফাউচি এমন মন্তব্য করলেন।

তিনি বলেন, মডার্নার টিকার ফলাফল খুব আশা জাগিয়েছে। কারণ প্রাকৃতিক একটি সংক্রমণের ক্ষেত্রে শরীরে যে ধরনের সুরক্ষা ব্যবস্থা তৈরি হয়, এই টিকা তেমনই প্রতীয়মান হয়েছে। ২৭ জুলাই শেষ ধাপের ট্রায়াল শুরু হবে মডার্নার টিকার।

এদিকে অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীরা বলেছেন, সেপ্টেম্বরের মধ্যে তাদের টিকা বাজারে আনতে ’৮০ শতাংশ আত্মবিশ্বাসী তারা। তাদের পরীক্ষামূলক টিকা প্রয়োগে মানুষের দেহে অ্যান্টিবডি বেড়েছে এবং ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সক্ষম টি সেল নামের শ্বেত রক্তকণিকার হারও দেখা গেছে উল্লেখযোগ্য হারে।

ভারতে টিকার মানব পরীক্ষা শুরু : ভারতে করোনার সম্ভাব্য টিকার মানব পরীক্ষা শুরু করেছে ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট আহমেদাবাদের জাইদাস ক্যাডিলা। প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে ভ্যাকসিনের ট্রায়ালের জন্য ড্রাগ কন্ট্রোলের অনুমতি মিলেছিল আগেই।

জাইদাস জানিয়েছে, দুই পর্যায়ে ১০৪৮ জনকে টিকা দেয়া হবে। ভারতে ভ্যাকসিনের দৌড়ে এগিয়ে জাইদাস ক্যাডিলার তৈরি জাইকভ-ডি ভ্যাকসিন ক্যানডিডেট এবং ভারত বায়োটেক ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের তৈরি কোভ্যাক্সিন।

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চের (আইসিএমআর)-এরডিরেক্টর জেনারেল ডক্টর বলরাম ভার্গব বুধবার জানিয়েছিলেন, দেশটির বিভিন্ন জায়গায় এই দুই ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হবে। প্রতিটির জন্য প্রায় হাজার জন করে স্বেচ্ছাসেবক বেছে নেয়া হয়েছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস