ট্রাম্প ও বাইডেনের প্রথম বিতর্ক আজ
jugantor
যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন
ট্রাম্প ও বাইডেনের প্রথম বিতর্ক আজ

  হাসানুজ্জামান সাকী, ক্লিভল্যান্ড (ওহাইয়ো) থেকে  

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী রিপাবলিকান দলের প্রার্থী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী জো বাইডেনের মধ্যে প্রথম বিতর্ক আজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাত ৯টায় (বাংলাদেশ সময় বুধবার সকাল ৭টা) ওহাইয়ো অঙ্গরাজ্যের ক্লিভল্যান্ডে বিতর্ক অনুষ্ঠিত হবে। ট্রাম্পের আয়কর ফাঁকি নিয়ে নিউইয়র্ক টাইমসে প্রতিবেদন প্রকাশের একদিন পর এ বিতর্ক হতে যাচ্ছে।

ক্লিভল্যান্ডের কেইস ওয়েস্টার্ন রিজার্ভ ইউনিভার্সিটির হেলথ এডুকেশন ক্যাম্পাস ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকে দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর মধ্যে দ্বৈরথ অনুষ্ঠিত হবে। সোমবার ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকের ক্যাম্পাস ঘুরে দেখা যায়, সর্বত্রই উৎসবের আমেজ। পুরো ইউনিভার্সিটিতে নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। স্থানীয় পুলিশের পাশাপাশি ন্যাশনাল গার্ড আর্মি মোতায়েন করা হয়েছে।

বিভিন্ন সড়কে প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত করা হয়েছে। চলমান বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে ক্লিভল্যান্ডে ব্যাপক সহিংস ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কয়েক স্তরে নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

এছাড়া করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে বাড়তি স্বাস্থ্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিক। বিতর্কে অংশগ্রহণকারী প্রত্যেকের জন্য কোভিড-১৯ পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। দ্রুত পরীক্ষার ফলাফল পেতে স্থাপন করা হয়েছে বিশেষ বুথ। পরীক্ষার পর প্রত্যেকের হাতে ব্যান্ড পরিয়ে দেয়া হচ্ছে।

বিতর্কে নিরপেক্ষ কমিশন থেকে ছয়টি বিষয়ে প্রশ্ন করা হবে। প্রতিটি প্রশ্নের জন্য বরাদ্দ থাকবে ১৫ মিনিট। বিষয়গুলো হল সাফল্য ও ব্যর্থতার খতিয়ান, সুপ্রিমকোর্ট, করোনাভাইরাস মহামারী, অর্থনীতি, বর্ণবৈষম্য ও সহিংসতা এবং নির্বাচনের বিশুদ্ধতা। এর বাইরেও দুই প্রার্থীই আরও বেশ কিছু বিষয় স্বপ্রণোদিতভাবে উত্থাপন করবেন বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা।

যেখানে রাজনীতির মাঠে একে অন্যকে ব্যক্তিগত বিষয়াদি তুলে ধরে ঘায়েল করার চেষ্টা করবেন। বিতর্ক অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করবেন ফক্স টিভির সাংবাদিক ক্রিস ওয়ালেস। বিতর্ককে ঘিরে মূল ভেন্যু সংলগ্ন এলাকায় অস্থায়ী স্টুডিও স্থাপন করেছে যুক্তরাষ্ট্রের মূলধারার বিভিন্ন গণমাধ্যম। ক্যাম্পাসজুড়ে চলছে সাজ সাজ রব।

প্রতিবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে প্রার্থীদের মধ্যে বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়।

এর মধ্যে তিনটি প্রেসিডেনশিয়াল ডিবেট ও একটি ভাইস প্রেসিডেনশিয়াল ডিবেট। ওহাইয়োর ক্লিভল্যান্ড ছাড়াও ১৫ অক্টোবর ফ্লোরিডার মায়ামি ও ২২ অক্টোবর টেনেসির ন্যাশভিলে ট্রাম্প-বাইডেনের মধ্যে এবং ৭ অক্টোবর ইউটার সল্টলেক সিটিতে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে রিপাবলিকান প্রার্থী মাইক পেন্স ও ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী কমলা হ্যারিসের মধ্যে বিতর্ক অনুষ্ঠিত হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে বিতর্ক একটি অন্যতম অনুষঙ্গ এবং এটি নির্বাচনে বিশেষ গুরুত্ব বহন করে। মার্কিন রাজনীতিতে প্রেসিডেন্ট প্রার্থীদের দলীয় মনোনয়ন নিতে হলেও বিতর্ক প্রতিযোগিতার মুখোমুখি হতে হয়। বিতর্কের মাধ্যমে প্রার্থীদের জ্ঞান, মেধা, প্রজ্ঞা, তীক্ষ্ণতা, সহনশীলতাসহ অনেক কিছু সম্পর্কে সম্যক ধারণা পায় জনগণ।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বারবারই বলে আসছেন জো বাইডেন বয়সের ভারে ন্যুব্জ। ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন মাদকাসক্ত কিনা তা পরীক্ষারও দাবি জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

তিনি বলেছেন, বিতর্কের আগে ও পরে এই পরীক্ষা করা উচিত। চলতি বছরের শুরুর দিকে দলীয় রাজনৈতিক বিতর্কে তার প্রতিদ্বন্দ্বীর অসংলগ্ন অংশগ্রহণের কথা উল্লেখ করে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, মাদক সেবনের জন্য দায়ী হতে পারে। ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রায়ই বাইডেনের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। তবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়েও তার দলেরই অনেকের প্রশ্ন রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন

ট্রাম্প ও বাইডেনের প্রথম বিতর্ক আজ

 হাসানুজ্জামান সাকী, ক্লিভল্যান্ড (ওহাইয়ো) থেকে 
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী রিপাবলিকান দলের প্রার্থী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী জো বাইডেনের মধ্যে প্রথম বিতর্ক আজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাত ৯টায় (বাংলাদেশ সময় বুধবার সকাল ৭টা) ওহাইয়ো অঙ্গরাজ্যের ক্লিভল্যান্ডে বিতর্ক অনুষ্ঠিত হবে। ট্রাম্পের আয়কর ফাঁকি নিয়ে নিউইয়র্ক টাইমসে প্রতিবেদন প্রকাশের একদিন পর এ বিতর্ক হতে যাচ্ছে।

ক্লিভল্যান্ডের কেইস ওয়েস্টার্ন রিজার্ভ ইউনিভার্সিটির হেলথ এডুকেশন ক্যাম্পাস ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকে দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর মধ্যে দ্বৈরথ অনুষ্ঠিত হবে। সোমবার ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকের ক্যাম্পাস ঘুরে দেখা যায়, সর্বত্রই উৎসবের আমেজ। পুরো ইউনিভার্সিটিতে নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। স্থানীয় পুলিশের পাশাপাশি ন্যাশনাল গার্ড আর্মি মোতায়েন করা হয়েছে।

বিভিন্ন সড়কে প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত করা হয়েছে। চলমান বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে ক্লিভল্যান্ডে ব্যাপক সহিংস ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কয়েক স্তরে নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

এছাড়া করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে বাড়তি স্বাস্থ্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিক। বিতর্কে অংশগ্রহণকারী প্রত্যেকের জন্য কোভিড-১৯ পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। দ্রুত পরীক্ষার ফলাফল পেতে স্থাপন করা হয়েছে বিশেষ বুথ। পরীক্ষার পর প্রত্যেকের হাতে ব্যান্ড পরিয়ে দেয়া হচ্ছে।

বিতর্কে নিরপেক্ষ কমিশন থেকে ছয়টি বিষয়ে প্রশ্ন করা হবে। প্রতিটি প্রশ্নের জন্য বরাদ্দ থাকবে ১৫ মিনিট। বিষয়গুলো হল সাফল্য ও ব্যর্থতার খতিয়ান, সুপ্রিমকোর্ট, করোনাভাইরাস মহামারী, অর্থনীতি, বর্ণবৈষম্য ও সহিংসতা এবং নির্বাচনের বিশুদ্ধতা। এর বাইরেও দুই প্রার্থীই আরও বেশ কিছু বিষয় স্বপ্রণোদিতভাবে উত্থাপন করবেন বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা।

যেখানে রাজনীতির মাঠে একে অন্যকে ব্যক্তিগত বিষয়াদি তুলে ধরে ঘায়েল করার চেষ্টা করবেন। বিতর্ক অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করবেন ফক্স টিভির সাংবাদিক ক্রিস ওয়ালেস। বিতর্ককে ঘিরে মূল ভেন্যু সংলগ্ন এলাকায় অস্থায়ী স্টুডিও স্থাপন করেছে যুক্তরাষ্ট্রের মূলধারার বিভিন্ন গণমাধ্যম। ক্যাম্পাসজুড়ে চলছে সাজ সাজ রব।

প্রতিবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে প্রার্থীদের মধ্যে বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়।

এর মধ্যে তিনটি প্রেসিডেনশিয়াল ডিবেট ও একটি ভাইস প্রেসিডেনশিয়াল ডিবেট। ওহাইয়োর ক্লিভল্যান্ড ছাড়াও ১৫ অক্টোবর ফ্লোরিডার মায়ামি ও ২২ অক্টোবর টেনেসির ন্যাশভিলে ট্রাম্প-বাইডেনের মধ্যে এবং ৭ অক্টোবর ইউটার সল্টলেক সিটিতে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে রিপাবলিকান প্রার্থী মাইক পেন্স ও ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী কমলা হ্যারিসের মধ্যে বিতর্ক অনুষ্ঠিত হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে বিতর্ক একটি অন্যতম অনুষঙ্গ এবং এটি নির্বাচনে বিশেষ গুরুত্ব বহন করে। মার্কিন রাজনীতিতে প্রেসিডেন্ট প্রার্থীদের দলীয় মনোনয়ন নিতে হলেও বিতর্ক প্রতিযোগিতার মুখোমুখি হতে হয়। বিতর্কের মাধ্যমে প্রার্থীদের জ্ঞান, মেধা, প্রজ্ঞা, তীক্ষ্ণতা, সহনশীলতাসহ অনেক কিছু সম্পর্কে সম্যক ধারণা পায় জনগণ।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বারবারই বলে আসছেন জো বাইডেন বয়সের ভারে ন্যুব্জ। ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন মাদকাসক্ত কিনা তা পরীক্ষারও দাবি জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

তিনি বলেছেন, বিতর্কের আগে ও পরে এই পরীক্ষা করা উচিত। চলতি বছরের শুরুর দিকে দলীয় রাজনৈতিক বিতর্কে তার প্রতিদ্বন্দ্বীর অসংলগ্ন অংশগ্রহণের কথা উল্লেখ করে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, মাদক সেবনের জন্য দায়ী হতে পারে। ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রায়ই বাইডেনের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। তবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়েও তার দলেরই অনেকের প্রশ্ন রয়েছে।