করোনা থেকে সুস্থ ১০ জনে ৯ জন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভুগছেন
jugantor
দক্ষিণ কোরিয়ার গবেষণা
করোনা থেকে সুস্থ ১০ জনে ৯ জন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভুগছেন

  যুগান্তর ডেস্ক  

০১ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনা থেকে সেরে ওঠা ব্যক্তিদের প্রতি ১০ জনে ৯ জন নানা রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভুগছেন। বিশেষ করে তাদের মাঝে ক্লান্তি ও মানসিক অবসাদ দেখা দিয়েছে। অনেকের স্বাদ ও গন্ধ লোপ পাচ্ছে। দক্ষিণ কোরিয়ার গবেষকরা এমন তথ্য দিয়েছেন। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

মঙ্গলবার গবেষণাটির প্রাথমিক ফলাফল প্রকাশিত হয়, যখন বিশ্বে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১ মিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে, যা এ মহামারীর এক ভয়ংকর মাইলফলক। বিশ্ব অর্থনীতিকে বিধ্বস্ত করেছে এ ভাইরাস। স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকেও অতিরিক্ত বোঝা দিয়েছে এবং মানুষের জীবনযাত্রাকে বদলে দিয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংস্থার (কেডিসিএ) কর্মকর্তা কোন জুন উক এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, করোনা থেকে সুস্থ ব্যক্তিদের ওপর তারা একটি অনলাইন জরিপ চালিয়েছেন। এ গবেষণাটির নেতৃত্বে ছিলেন কিংপুক ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মেডিসিনের অধ্যাপক কিম শিন উ।

এতে দেখা যায়, প্রাণঘাতী এ ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা ৯৬৫ জনের মধ্যে ৮৭৯ জনই (৯১.১%) কমপক্ষে একটি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভুগছেন। কোন জুন জানান, এদের মধ্যে ২৬.২ ভাগ সুস্থ হওয়া লোকই ক্লান্তি অনুভব করেন। মনোযোগের অভাব দেখা দিয়েছে ২৪.৬ ভাগ রোগীর মধ্যে। অন্যদের স্বাদ ও গন্ধ লোপ পেয়েছে।

তিনি জানান, অধ্যাপক কিম শিন উ দক্ষিণ কোরিয়ার ৫ হাজার ৬২২ জন করোনা রোগীর কাছ থেকে মন্তব্য জানতে চেয়েছিলেন। যারা ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৬.৭ ভাগ মানুষ জরিপে অংশ নিয়েছেন। অনলাইনে এ গবেষণাটি পরিচালিত হলেও শীর্ষ গবেষক কিম শিগগিরই বিশদ বিশ্লেষণসহ গবেষণাটি প্রকাশ করবেন বলে জানান কোন জুন।

কেডিসিএ’র ওই কর্মকর্তা জানান, দক্ষিণ কোরিয়ার ১৬ মেডিকেল সংগঠনের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে আলাদা একটি গবেষণা চলছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার গবেষণা

করোনা থেকে সুস্থ ১০ জনে ৯ জন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভুগছেন

 যুগান্তর ডেস্ক 
০১ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনা থেকে সেরে ওঠা ব্যক্তিদের প্রতি ১০ জনে ৯ জন নানা রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভুগছেন। বিশেষ করে তাদের মাঝে ক্লান্তি ও মানসিক অবসাদ দেখা দিয়েছে। অনেকের স্বাদ ও গন্ধ লোপ পাচ্ছে। দক্ষিণ কোরিয়ার গবেষকরা এমন তথ্য দিয়েছেন। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

মঙ্গলবার গবেষণাটির প্রাথমিক ফলাফল প্রকাশিত হয়, যখন বিশ্বে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১ মিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে, যা এ মহামারীর এক ভয়ংকর মাইলফলক। বিশ্ব অর্থনীতিকে বিধ্বস্ত করেছে এ ভাইরাস। স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকেও অতিরিক্ত বোঝা দিয়েছে এবং মানুষের জীবনযাত্রাকে বদলে দিয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংস্থার (কেডিসিএ) কর্মকর্তা কোন জুন উক এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, করোনা থেকে সুস্থ ব্যক্তিদের ওপর তারা একটি অনলাইন জরিপ চালিয়েছেন। এ গবেষণাটির নেতৃত্বে ছিলেন কিংপুক ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মেডিসিনের অধ্যাপক কিম শিন উ।

এতে দেখা যায়, প্রাণঘাতী এ ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা ৯৬৫ জনের মধ্যে ৮৭৯ জনই (৯১.১%) কমপক্ষে একটি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভুগছেন। কোন জুন জানান, এদের মধ্যে ২৬.২ ভাগ সুস্থ হওয়া লোকই ক্লান্তি অনুভব করেন। মনোযোগের অভাব দেখা দিয়েছে ২৪.৬ ভাগ রোগীর মধ্যে। অন্যদের স্বাদ ও গন্ধ লোপ পেয়েছে।

তিনি জানান, অধ্যাপক কিম শিন উ দক্ষিণ কোরিয়ার ৫ হাজার ৬২২ জন করোনা রোগীর কাছ থেকে মন্তব্য জানতে চেয়েছিলেন। যারা ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৬.৭ ভাগ মানুষ জরিপে অংশ নিয়েছেন। অনলাইনে এ গবেষণাটি পরিচালিত হলেও শীর্ষ গবেষক কিম শিগগিরই বিশদ বিশ্লেষণসহ গবেষণাটি প্রকাশ করবেন বলে জানান কোন জুন।

কেডিসিএ’র ওই কর্মকর্তা জানান, দক্ষিণ কোরিয়ার ১৬ মেডিকেল সংগঠনের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে আলাদা একটি গবেষণা চলছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস