করোনায় মৃত্যুর অর্ধেকই ঢাকায়
jugantor
করোনায় মৃত্যুর অর্ধেকই ঢাকায়

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৮ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে করোনায় মোট মৃত্যুর অর্ধেকই হয়েছে ঢাকায়। রাজধানীর বাসিন্দাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে চিকিৎসা নিতে এসে তাদের মৃত্যু হয়। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত আরও ২০ জন মারা গেছেন।

একই সময়ে শনাক্ত হয়েছেন ১৩৩৫ জন। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ১৩৩৫সহ মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে চার লাখ ১৫৮৬। মৃতের সংখ্যা পাঁচ হাজার ৮৩৮তে দাঁড়িয়েছে।

এই সময়ে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও এক হাজার ৫২৩ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। মোট সুস্থ হয়েছেন তিন লাখ ১৮ হাজার ১২৩ জন।

মৃতের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ৫১ দশমিক ৭৬ শতাংশ ঢাকায় মারা গেছেন, ১৯ দশমিক ৮৫ শতাংশ চট্টগ্রামে, ৬ দশমিক ৩৪ শতাংশ রাজশাহীতে, ৭ দশমিক ৯৭ শতাংশ খুলনায়, ৩ দশমিক ৩৯ শতাংশ বরিশালে, ৪ দশমিক ১৫ শতাংশ সিলেটে, ৪ দশমিক ৪৭ শতাংশ রংপুরে এবং ২ দশমিক ০৭ শতাংশ ময়মনসিংহে। এ পর্যন্ত চার হাজার ৪৯৪ জন পুরুষ এবং এক হাজার ৩৪৪ জন নারীর মৃত্যু হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে পুরুষ ১৪ ও নারী ছয়জন। তাদের সবাই হাসপাতালে মারা গেছেন।

তাদের মধ্যে ১২ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি, তিন জনের ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্য, দু’জনের ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে এবং একজন করে তিনজনের বয়স ৩১ থেকে ৪০, ২১ থেকে ৩০ ও ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ছিল।

১৭ জন ঢাকা বিভাগের, দু’জন চট্টগ্রাম বিভাগের এবং একজন খুলনা বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১১১টি ল্যাবে ১২ হাজার ৬১৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ২২ লাখ ৮৩ হাজার ৯৬৪টি নমুনা।

২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১০ দশমিক ৫৮ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৫৮ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৯ দশমিক ২২ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

করোনার লড়াইয়ে হাল না ছাড়ার ডাক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার : দ্বিতীয় দফায় সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে হাল ছেড়ে না দিতে বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

লকডাউন এড়াতে মাস্ক পরা, শারীরিক দূরত্ব মেনে চলা ও অন্য পদক্ষেপের ওপর জোর দিয়েছে সংস্থাটি। ব্রিটেনে এক সপ্তাহের মধ্যেই অক্সফোর্ডের করোনার টিকার সাধারণ মানুষের ওপর প্রয়োগ করা হতে পারে।

সে জন্য লন্ডনের প্রথম সারির একটি হাসপাতালকে তৈরি থাকতে বলা হয়েছে। বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা চার কোটি ৩৭ লাখ ছাড়িয়েছে।

বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৮টায় আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারস এ তথ্য জানিয়েছে। ‘ভ্যাকসিন জাতীয়তাবাদ’ নিয়ে জার্মান প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্ক ভাল্টার স্টাইনমায়ার সতর্কবাণী দিয়েছেন।

ইতালির নেপোলিতে করোনাজনিত বিধি-নিষেধের বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারী জনগণের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। বেলজিয়ামের লিজ শহরে করোনায় আক্রান্ত চিকিৎসকদের চিকিৎসাসেবা চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মানুষের মস্তিষ্কে করোনাভাইরাসের জীবাণু ১০ বছর টিকে থাকতে পারে বলে যুক্তরাজ্যের একটি গবেষণায় উঠে এসেছে। বিবিসি, সিএনএন, এপি, এএফপি, আল-জাজিরা, রয়টার্স ও আনন্দবাজার।

ডব্লিউএইচও’র প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রেইয়েসুস অনলাইন সম্মেলনে বলেছেন, তিনি মহামারীর অবসাদ বুঝতে পেরেছেন, যা কিছু মানুষ অনুভব করছেন।

তবে কোনো ভ্যাকসিন অথবা ওষুধ এখন পর্যন্ত না আসায় এ ভাইরাস মোকাবেলায় প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দিয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, বাসায় থেকে কাজ, স্কুলের শিশুদের দূর থেকে পাঠদান, পরিবার অথবা স্বজনদের সঙ্গে কোনো মাইলফলক উদযাপন অথবা প্রিয়জনের বিদায়ে শোক জানাতে না পারাটা অত্যন্ত কঠিন ও এ অবসাদ বাস্তব।

এদিকে, ব্রিটেনের ওই হাসপাতালের নাম বা কতজনকে টিকা দেয়া হবে, সে সব বিষয় এখনও স্পষ্ট নয়। তবে বিজ্ঞানী-বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনা অতিমারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এ টিকাই হতে পারে ‘গেম চেঞ্জার’।

লন্ডনের ওই হাসপাতালকে ২ নভেম্বর তারিখ উল্লেখ করে যাবতীয় বন্দোবস্ত করে রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারস ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, এ পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা চার কোটি ৩৭ লাখ ৭৬ হাজার ৫৮৬। এর মধ্যে ১১ লাখ ৬৪ হাজার ৫১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছে তিন কোটি ২১ লাখ ৭৯ হাজার ৬৫২ জন। ওয়ার্ল্ডোমিটারস-এর তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে।

সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৮৯ লাখ ৬২ হাজার ৭৮৩। মৃত্যু হয়েছে দুই লাখ ৩১ হাজার ৪৫ জনের। আক্রান্তের হিসাবে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৯ লাখ ৪৫ হাজার ৮৮৮।

এর মধ্যে এক লাখ ১৯ হাজার ৫৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। জার্মানির প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্ক ভাল্টার স্টাইনমায়ার বিশ্বের সব দেশকে ভ্যাকসিন নিয়ে স্বার্থপরতা পরিহার করতে বলেছেন। বার্লিনে অনুষ্ঠানরত ডাব্লিউএইচও’র সম্মেলনে এ আহ্বান জানান তিনি।

ব্রিটেনের লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের ওই গবেষণায় বিজ্ঞানীরা প্রমাণ পেয়েছেন, প্রাণঘাতী এ ভাইরাস মানুষের মস্তিষ্কের কার্যকারিতা ৮ দশমিক ৫ শতাংশ ধ্বংস করে দেয়। নানা ধরনের মানসিক সমস্যা সৃষ্টি করে।

৮৪ হাজার ২৮৫ জনের ওপর সমীক্ষা চালিয়েছে ওই গবেষক দল। এতে দেখা গেছে, করোনা থেকে কয়েক সপ্তাহ বা মাস পর মুক্তি পেলেও এর প্রভাব রয়ে যায় রোগীর দেহে।

বেলজিয়ামের এক চতুর্থাংশ মেডিকেল স্টাফ বর্তমানে কোভিড-১৯ সংক্রমণে ভুগছেন। এতে ১০টি হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ তাদের স্টাফদের কাজ চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

করোনায় আক্রান্ত যেসব স্টাফের দেহে করোনার লক্ষণ দেখা যায়নি তাদের চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে। ইতালিতে শুক্রবার রাতে কারফিউ উপেক্ষা করে রাস্তায় নামলে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

সম্প্রতি কাম্পানিয়া অঞ্চলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা আবারও বেড়েছে। এতে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়।

করোনায় মৃত্যুর অর্ধেকই ঢাকায়

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে করোনায় মোট মৃত্যুর অর্ধেকই হয়েছে ঢাকায়। রাজধানীর বাসিন্দাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে চিকিৎসা নিতে এসে তাদের মৃত্যু হয়। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত আরও ২০ জন মারা গেছেন।

একই সময়ে শনাক্ত হয়েছেন ১৩৩৫ জন। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ১৩৩৫সহ মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে চার লাখ ১৫৮৬। মৃতের সংখ্যা পাঁচ হাজার ৮৩৮তে দাঁড়িয়েছে।

এই সময়ে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও এক হাজার ৫২৩ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। মোট সুস্থ হয়েছেন তিন লাখ ১৮ হাজার ১২৩ জন।

মৃতের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ৫১ দশমিক ৭৬ শতাংশ ঢাকায় মারা গেছেন, ১৯ দশমিক ৮৫ শতাংশ চট্টগ্রামে, ৬ দশমিক ৩৪ শতাংশ রাজশাহীতে, ৭ দশমিক ৯৭ শতাংশ খুলনায়, ৩ দশমিক ৩৯ শতাংশ বরিশালে, ৪ দশমিক ১৫ শতাংশ সিলেটে, ৪ দশমিক ৪৭ শতাংশ রংপুরে এবং ২ দশমিক ০৭ শতাংশ ময়মনসিংহে। এ পর্যন্ত চার হাজার ৪৯৪ জন পুরুষ এবং এক হাজার ৩৪৪ জন নারীর মৃত্যু হয়েছে। 

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে পুরুষ ১৪ ও নারী ছয়জন। তাদের সবাই হাসপাতালে মারা গেছেন।

তাদের মধ্যে ১২ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি, তিন জনের ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্য, দু’জনের ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে এবং একজন করে তিনজনের বয়স ৩১ থেকে ৪০, ২১ থেকে ৩০ ও ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ছিল।

১৭ জন ঢাকা বিভাগের, দু’জন চট্টগ্রাম বিভাগের এবং একজন খুলনা বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন। 

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১১১টি ল্যাবে ১২ হাজার ৬১৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ২২ লাখ ৮৩ হাজার ৯৬৪টি নমুনা।

২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১০ দশমিক ৫৮ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৫৮ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৯ দশমিক ২২ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

করোনার লড়াইয়ে হাল না ছাড়ার ডাক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার : দ্বিতীয় দফায় সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে হাল ছেড়ে না দিতে বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

লকডাউন এড়াতে মাস্ক পরা, শারীরিক দূরত্ব মেনে চলা ও অন্য পদক্ষেপের ওপর জোর দিয়েছে সংস্থাটি। ব্রিটেনে এক সপ্তাহের মধ্যেই অক্সফোর্ডের করোনার টিকার সাধারণ মানুষের ওপর প্রয়োগ করা হতে পারে।

সে জন্য লন্ডনের প্রথম সারির একটি হাসপাতালকে তৈরি থাকতে বলা হয়েছে। বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা চার কোটি ৩৭ লাখ ছাড়িয়েছে।

বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৮টায় আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারস এ তথ্য জানিয়েছে। ‘ভ্যাকসিন জাতীয়তাবাদ’ নিয়ে জার্মান প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্ক ভাল্টার স্টাইনমায়ার সতর্কবাণী দিয়েছেন।

ইতালির নেপোলিতে করোনাজনিত বিধি-নিষেধের বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারী জনগণের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। বেলজিয়ামের লিজ শহরে করোনায় আক্রান্ত চিকিৎসকদের চিকিৎসাসেবা চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মানুষের মস্তিষ্কে করোনাভাইরাসের জীবাণু ১০ বছর টিকে থাকতে পারে বলে যুক্তরাজ্যের একটি গবেষণায় উঠে এসেছে। বিবিসি, সিএনএন, এপি, এএফপি, আল-জাজিরা, রয়টার্স ও আনন্দবাজার। 

ডব্লিউএইচও’র প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রেইয়েসুস অনলাইন সম্মেলনে বলেছেন, তিনি মহামারীর অবসাদ বুঝতে পেরেছেন, যা কিছু মানুষ অনুভব করছেন।

তবে কোনো ভ্যাকসিন অথবা ওষুধ এখন পর্যন্ত না আসায় এ ভাইরাস মোকাবেলায় প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দিয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, বাসায় থেকে কাজ, স্কুলের শিশুদের দূর থেকে পাঠদান, পরিবার অথবা স্বজনদের সঙ্গে কোনো মাইলফলক উদযাপন অথবা প্রিয়জনের বিদায়ে শোক জানাতে না পারাটা অত্যন্ত কঠিন ও এ অবসাদ বাস্তব।

এদিকে, ব্রিটেনের ওই হাসপাতালের নাম বা কতজনকে টিকা দেয়া হবে, সে সব বিষয় এখনও স্পষ্ট নয়। তবে বিজ্ঞানী-বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনা অতিমারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এ টিকাই হতে পারে ‘গেম চেঞ্জার’।

লন্ডনের ওই হাসপাতালকে ২ নভেম্বর তারিখ উল্লেখ করে যাবতীয় বন্দোবস্ত করে রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। 

ওয়ার্ল্ডোমিটারস ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, এ পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা চার কোটি ৩৭ লাখ ৭৬ হাজার ৫৮৬। এর মধ্যে ১১ লাখ ৬৪ হাজার ৫১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছে তিন কোটি ২১ লাখ ৭৯ হাজার ৬৫২ জন। ওয়ার্ল্ডোমিটারস-এর তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে।

সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৮৯ লাখ ৬২ হাজার ৭৮৩। মৃত্যু হয়েছে দুই লাখ ৩১ হাজার ৪৫ জনের। আক্রান্তের হিসাবে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৯ লাখ ৪৫ হাজার ৮৮৮।

এর মধ্যে এক লাখ ১৯ হাজার ৫৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। জার্মানির প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্ক ভাল্টার স্টাইনমায়ার বিশ্বের সব দেশকে ভ্যাকসিন নিয়ে স্বার্থপরতা পরিহার করতে বলেছেন। বার্লিনে অনুষ্ঠানরত ডাব্লিউএইচও’র সম্মেলনে এ আহ্বান জানান তিনি। 

ব্রিটেনের লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের ওই গবেষণায় বিজ্ঞানীরা প্রমাণ পেয়েছেন, প্রাণঘাতী এ ভাইরাস মানুষের মস্তিষ্কের কার্যকারিতা ৮ দশমিক ৫ শতাংশ ধ্বংস করে দেয়। নানা ধরনের মানসিক সমস্যা সৃষ্টি করে।

৮৪ হাজার ২৮৫ জনের ওপর সমীক্ষা চালিয়েছে ওই গবেষক দল। এতে দেখা গেছে, করোনা থেকে কয়েক সপ্তাহ বা মাস পর মুক্তি পেলেও এর প্রভাব রয়ে যায় রোগীর দেহে।

বেলজিয়ামের এক চতুর্থাংশ মেডিকেল স্টাফ বর্তমানে কোভিড-১৯ সংক্রমণে ভুগছেন। এতে ১০টি হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ তাদের স্টাফদের কাজ চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

করোনায় আক্রান্ত যেসব স্টাফের দেহে করোনার লক্ষণ দেখা যায়নি তাদের চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে। ইতালিতে শুক্রবার রাতে কারফিউ উপেক্ষা করে রাস্তায় নামলে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

সম্প্রতি কাম্পানিয়া অঞ্চলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা আবারও বেড়েছে। এতে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়।