রফতানি ঋণের সুদহার কমল
jugantor
বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলার
রফতানি ঋণের সুদহার কমল

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৯ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশ ব্যাংকের রফতানি উন্নয়ন তহবিলের (ইডিএফ) ঋণের সুদহার আরও এক দফা কমানো হয়েছে। এই দফায় সুদহার শূন্য দশমিক ২৫ শতাংশ কমিয়ে গ্রাহক পর্যায়ে ১ দশমিক ৭৫ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে। আগে এ হার ছিল ২ শতাংশ।

এ বিষয়ে বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সার্কুলার জারি করে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে। এ নিয়ে দ্বিতীয় দফায় এর সুদহার কমানো হল। এর আগে গত এপ্রিলে এর সুদহার কমানো হয়েছিল। করোনার প্রভাবে রফতানি বাণিজ্য ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় উদ্যোক্তাদের সহায়তা করতে ইডিএফ ঋণের সুদহার কমানো হয়েছে।

সার্কুলারটি বুধবার ব্যাংকিং সময়ের পর জারি হওয়ায় এটি আজ থেকে কার্যকর হবে। নতুন সুদহার আগামী বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত বহাল থাকবে। এরপর এর মেয়াদ আর না বাড়লে সুদহার আবার ২ শতাংশে ফিরে যাবে। ঋণের অন্যান্য শর্তাবলি অপরিবর্তিত থাকবে।

ওই তহবিল থেকে ঋণ নিয়ে রফতানিমুখী শিল্পের কাঁচামাল আমদানি করে তা দিয়ে পণ্য তৈরির পর রফতানি করা হয়। রফতানির বিল দেশে এলে ঋণ সমন্বয় করে বাড়তি অর্থ উদ্যোক্তারা নিয়ে অন্যান্য খাতে খরচ করেন। এ প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হতে ৩-৪ মাস সময় লাগে।

এ কারণে ওই তহবিল থেকে উদ্যোক্তাদের সাধারণত ৩-৬ মাসের জন্য ঋণ দেয়া হয়। এভাবে প্রতিটি ব্যাক-টু-ব্যাক এলসির বিপরীতে উদ্যোক্তারা এ তহবিল থেকে ঋণ নিতে পারেন। এদিকে রফতানি বিল দেশে আনার মেয়াদও বাড়ানো হয়েছে। এ সুবিধাও আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত পাওয়া যাবে।

করোনার প্রভাব মোকাবেলায় উদ্যোক্তাদের এ তহবিল থেকে বেশি পরিমাণে ঋণের জোগান দিতে ৭ এপ্রিল বাংলাদেশ ব্যাংক এর আকার ১৫০ কোটি ডলার বাড়িয়েছে। আগে এর আকার ছিল ৩৫০ কোটি ডলার। এখন তা ৫০০ কোটি ডলার। এপ্রিলের আগে সুদহার ছিল পৌনে ৩ থেকে সোয়া ৩ শতাংশ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলার

রফতানি ঋণের সুদহার কমল

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৯ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশ ব্যাংকের রফতানি উন্নয়ন তহবিলের (ইডিএফ) ঋণের সুদহার আরও এক দফা কমানো হয়েছে। এই দফায় সুদহার শূন্য দশমিক ২৫ শতাংশ কমিয়ে গ্রাহক পর্যায়ে ১ দশমিক ৭৫ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে। আগে এ হার ছিল ২ শতাংশ।

এ বিষয়ে বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সার্কুলার জারি করে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে। এ নিয়ে দ্বিতীয় দফায় এর সুদহার কমানো হল। এর আগে গত এপ্রিলে এর সুদহার কমানো হয়েছিল। করোনার প্রভাবে রফতানি বাণিজ্য ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় উদ্যোক্তাদের সহায়তা করতে ইডিএফ ঋণের সুদহার কমানো হয়েছে।

সার্কুলারটি বুধবার ব্যাংকিং সময়ের পর জারি হওয়ায় এটি আজ থেকে কার্যকর হবে। নতুন সুদহার আগামী বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত বহাল থাকবে। এরপর এর মেয়াদ আর না বাড়লে সুদহার আবার ২ শতাংশে ফিরে যাবে। ঋণের অন্যান্য শর্তাবলি অপরিবর্তিত থাকবে।

ওই তহবিল থেকে ঋণ নিয়ে রফতানিমুখী শিল্পের কাঁচামাল আমদানি করে তা দিয়ে পণ্য তৈরির পর রফতানি করা হয়। রফতানির বিল দেশে এলে ঋণ সমন্বয় করে বাড়তি অর্থ উদ্যোক্তারা নিয়ে অন্যান্য খাতে খরচ করেন। এ প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হতে ৩-৪ মাস সময় লাগে।

এ কারণে ওই তহবিল থেকে উদ্যোক্তাদের সাধারণত ৩-৬ মাসের জন্য ঋণ দেয়া হয়। এভাবে প্রতিটি ব্যাক-টু-ব্যাক এলসির বিপরীতে উদ্যোক্তারা এ তহবিল থেকে ঋণ নিতে পারেন। এদিকে রফতানি বিল দেশে আনার মেয়াদও বাড়ানো হয়েছে। এ সুবিধাও আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত পাওয়া যাবে।

করোনার প্রভাব মোকাবেলায় উদ্যোক্তাদের এ তহবিল থেকে বেশি পরিমাণে ঋণের জোগান দিতে ৭ এপ্রিল বাংলাদেশ ব্যাংক এর আকার ১৫০ কোটি ডলার বাড়িয়েছে। আগে এর আকার ছিল ৩৫০ কোটি ডলার। এখন তা ৫০০ কোটি ডলার। এপ্রিলের আগে সুদহার ছিল পৌনে ৩ থেকে সোয়া ৩ শতাংশ।