মেয়র-কাউন্সিলর পদে ১৩৫১ প্রার্থী
jugantor
পৌরসভা নির্বাচনের প্রথম ধাপ
মেয়র-কাউন্সিলর পদে ১৩৫১ প্রার্থী
১২ পৌরসভায় আ’লীগ-বিএনপির ২৪ বিদ্রোহী * মেয়র পদে ১১২, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৯৫৬ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ২৮৩ প্রার্থী

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

প্রথম ধাপের ২৫টি পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন ১ হাজার ৩৫১ জন। এর মধ্যে মেয়র পদে ১১২ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। সবকটি পৌরসভায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থী রয়েছেন।

এসব পৌরসভায় সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৯৫৬ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ২৮৩ জন প্রার্থী হয়েছেন। ২৫টি পৌরসভার মধ্যে ১২টিতে আওয়ামী লীগ অথবা বিএনপির ২৪ জন বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৫ জন সরকারি দলের ও বাকি ৯ জন বিএনপির।

মঙ্গলবার প্রথম ধাপের ২৫টি পৌরসভা মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় শেষ হয়েছে। কাল বৃহস্পতিবার এসব মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হবে। আগামী ১০ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ নির্ধারিত রয়েছে। এরপরই মূলত প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করা হবে। আগামী ২৮ ডিসেম্বর এসব পৌরসভায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

দেশের ২৫ পৌরসভায় মঙ্গলবার উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন প্রার্থীরা। অনেক প্রার্থী স্বাস্থ্যবিধি ও নির্বাচনী আচরণবিধি উপেক্ষা করে বিশাল শোডাউন করে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বাইরে জাতীয় পার্টি, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামসহ কয়েকটি দলের প্রার্থী অংশ নিয়েছে। গফরগাঁও পৌরসভায় তিনজন কাউন্সিলর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করেন। মেয়র পদে ১১২ জন প্রার্থীর মধ্যে ২৫ জন আওয়ামী লীগের, ২৫ জন বিএনপির, ২২ জন স্বতন্ত্র, ২৪ জন দুই দলের বিদ্রোহী ও বাকিরা অন্যান্য দলের পক্ষে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

শায়েস্তাগঞ্জ : হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৮ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. মাসুদউজ্জামান মাসুক ও বিএনপি মনোনীত এমএফ আহমেদ অলি ছাড়াও সরকারি দলের চারজন বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রার্থী হয়েছেন। বাকি দু’জন স্বতন্ত্র প্রার্থী।

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা হচ্ছেন- বর্তমান মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ছালেক মিয়া, হবিগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি আতাউর রহমান মাসুক, উপজেলা যুবলীগ আহ্বায়ক ফজল উদ্দিন তালুকদার ও আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কাশেম শিবলু। স্বতন্ত্র প্রার্থী দু’জন হলেন- সারোয়ার আলম শাকিল ও এমদাদুল ইসলাম শীতল।

গফরগাঁও : ময়মনসিংহের গফরগাঁও পৌরসভায় মেয়র পদে বড় দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৫ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৫ জন প্রার্থী হয়েছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- বর্তমান মেয়র ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এসএম ইকবাল হোসেন (সুমন) ও বিএনপি মনোনীত শাহ আবদুল্লাহ আল-মামুন।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তিনজন কাউন্সিলর নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। তারা হলেন সংরক্ষিত ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে পারভীন আক্তার, সাধারণ ৭ নম্বর ওয়ার্ডে মো. শাজাহান সাজু ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মো. বাবুল হোসেন। প্রার্থীরা সবাই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত।

বড়লেখা : মৌলভীবাজারের বড়লেখা পৌরসভায় মেয়র পদে ৩ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৪ জন ও নারী কাউন্সিলর পদে ১১ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- বর্তমান মেয়র ও আওয়ামী লীগ মনোনীত আবুল ইমাম মো. কামরান চৌধুরী, বিএনপি মনোনীত আনোয়ারুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র মো. সাইদুল ইসলাম।

দিরাই : সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই পৌরসভায় মেয়র পদে ৮ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪০ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১৩ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এ পৌরসভায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বিশ্বজিৎ রায় ছাড়াও এ দলের বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান মেয়র মোশাররফ মিয়াও প্রার্থী হয়েছেন।

অপরদিকে বিএনপির মো. ইকবাল হোসেন চৌধুরী, একই দলের আরেক নেতা ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার আবদুল কাইয়ুম, জাতীয় পার্টির অনন্ত মল্লিক, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের হাফিজ লোকমান আহমেদ এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুল ইসলাম শফিক ও রশিদ মিয়া মেয়র পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

শ্রীপুর : গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভায় মেয়র পদে ৩ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৯ জন ও নারী কাউন্সিলর পদে ১১ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- বর্তমান মেয়র ও আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আনিছুর রহমান, বিএনপির মো. শহিদুল্লাহ শহিদ ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের ফাহাদ আহমেদ মোমতাজী।

মদন : নেত্রকোনার মদন পৌরসভায় মেয়র, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে মোট ৪৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে মেয়র পদে ৬ জন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৪ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহসম্পাদক সাইফুল ইসলাম সাইফ, বিএনপি মনোনীত জেলা যুবদলের সদস্য মো. এনামুল হক, জাতীয় পার্টির ক্ষুদিরাম চন্দ্র দাস, বিএনপি থেকে বিদ্রোহী প্রার্থী মাশরিকুর রহমান বাচ্চু এবং স্বতন্ত্র হিসেবে সাবেক পৌর মেয়র দেওয়ান মোদাচ্ছের হোসেন শফিক ও আবদুর রউফ।

মানিকগঞ্জ : মানিকগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে চারজন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৫০ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১৫ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীদের চারজনের মধ্যে দু’জনই বিএনপির বিদ্রোহী হয়ে মাঠে নেমেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. রমজান আলী, বিএনপি মনোনীত মো. আতাউর রহমান আতা এবং বিএনপি বিদ্রোহী ফারজানা জোবাইদি সিমকি ও নাসির উদ্দিন যাদু।

মানিকগঞ্জ পৌরসভার বর্তমান মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা গাজী কামরুল হুদা সেলিম এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন না। তিনি দলীয় প্রার্থী মো. রমজান আলীকে সমর্থন দিয়েছেন।

সীতাকুণ্ড : চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড পৌরসভায় মেয়র পদে তিনজন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৭১ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের বদিউল আলম, বিএনপির মো. আবুল মুনছুর ও স্বতন্ত্র জহিরুল ইসলাম।

পঞ্চগড় : পঞ্চগড় সদর পৌরসভায় মোট তিনজন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকিয়া খাতুন, বিএনপি মনোনীত প্রার্র্থী ও বর্তমান মেয়র মো. তৌহিদুল ইসলাম এবং জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপা’র শাহরিয়ার বিপ্লব। এই পৌরসভায় আওয়ামী লীগ এবং বিএনপি কোনো দলেরই বিদ্রোহী প্রার্থী নেই। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৫৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ৩৮ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ১৬ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিল প্রার্থী রয়েছেন।

পীরগঞ্জ : ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দু’জন করে এবং জাতীয় পার্টি-জাপা ও ইসলামী আন্দোলনের একজন করে মোট ৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র কশিরুল আলম মনোনয়ন দাখিল করেছেন। তার সঙ্গে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি একরামুল হক। অন্যদিকে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রেজাউল করিম রেজার সঙ্গেও একজন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। তিনি হলেন- সাবেক কাউন্সিলর ও বিএনপি নেতা জয়নাল আবেদীন। অন্যদিকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী প্রফেসর তৈয়ব আলী এবং ইসলামী আন্দোলনের হাফিজুর রহমান মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৪৫ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ৩৩ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ১৩ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিল প্রার্থী রয়েছেন।

ফুলবাড়ী : দিনাজপুরের ফুলবাড়ী পৌরসভায় মেয়র পদে ৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. খাজা মঈন উদ্দিন চিশতি, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শাহাদত হোসেন সাহাজুল, স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র মুরতুজা সরকার মানিক এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী বিশিষ্ট শিল্পপতি মাহমুদ আলম লিটন। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৪২ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ৩২ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ১০ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন।

বদরগঞ্জ : রংপুরের বদরগঞ্জে মেয়র পদে মোট ৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. আহসানুল হক চৌধুরী, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মো. ফিরোজ শাহ, ইসলামী আন্দোলনের মো. সাদ্দাম হোসেন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আজিজুল হক। এই পৌরসভাতেও আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী নেই। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৪৩ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ৩০ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ১৩ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন।

শাহজাদপুর : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর পৌরসভা নির্বাচনের মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিনে মেয়র পদে ৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মনির আক্তার খান তরু লোদী, বিএনপির প্রার্থী মাহমুদুল হাসান সজল, জাতীয় পাটি-জাপার মোক্তার হোসেন, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের খন্দকার ইমরান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলাম। এই পৌরসভাতেও আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী নেই। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৪৪ জন, ৩টি সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডে ১৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সবচেয়ে বেশি প্রার্থী হয়েছেন ৫নং ওয়ার্ডে ১০ জন।

কাটাখালী : রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভায় মেয়র পদে মোট ৭ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত ও বর্তমান মেয়র আব্বাস আলী, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম মনোনয়ন দাখিল করেছেন। এছাড়া অধ্যাপক মাজেদুর রহমান, খোকনুজ্জামান মাসুদ, আবু সামা, আবদুল মোতালেব ও আবদুল হাইও মেয়র পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তাদের মধ্যে সাবেক মেয়র অধ্যাপক মাজেদুর রহমান জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমীর। অন্যদিকে মনোনয়নপত্র দাখিল করা আবু সামা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী। তিনি পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৪৯ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে সংরক্ষিত নারী আসনে ১০ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৯ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

পুঠিয়া : রাজশাহীর পুঠিয়ার পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে চারজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র রবিউল ইসলাম রবি, বিএনপি মনোনীত আল মামুন খান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম আজম নয়ন ও শরিফুল ইসলাম টিপু। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৩৮ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ৩০ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ৮ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন।

কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রাম পৌরসভা নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষদিনে দলীয় প্রার্থী ছাড়াও বিদ্রোহী প্রার্থীসহ মেয়র পদে মোট ৬ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। শেষদিনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কাজিউল ইসলামের সঙ্গে আরও দু’জন আওয়ামী লীগ নেতা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাফিজার রহমান সাজু ও আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত নেতা সাইদুল হাসান দুলাল। এছাড়া বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম বেবু ছাড়াও সাবেক মেয়র ও জেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আবু বকর সিদ্দিকও মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

অপরদিকে বাংলাদেশ ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মজিদ। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৬৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে সংরক্ষিত নারী আসনে ১৩ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৫১ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

চাটমোহর : পাবনার চাটমোহর পৌরসভায় মেয়র পদে ৫ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৯ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১২ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে দু’জন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও একজন বিএনপির বিদ্রোহী। প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন সাখো, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও বর্তমান মেয়র মির্জা রেজাউল করীম দুলাল, বিএনপির আসাদুজ্জামান আরশেদ, একই দলের বিদ্রোহী সাবেক মেয়র অধ্যাপক আবদুল মান্নান।

খোকসা : কুষ্টিয়ার খোকসা পৌরসভায় মেয়র পদে ২ জন, কাউন্সিলর পদে ৩৪ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১০ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের তারিকুল ইসলাম তারিক ও বিএনপির নাফিজ আহম্মেদ খান রাজু।

চুয়াডাঙ্গা : চুয়াডাঙ্গা পৌরসভায় মেয়র পদে ৮ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৬৬ জন ও নারী কাউন্সিলর পদে ১৩ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে বড় দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ছাড়াও দুই দলের একজন করে বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। এছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের একজন ও স্বতন্ত্র তিনজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মেয়র প্রার্থীরা হলেন- জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন (আওয়ামী লীগ), শরীফ হোসেন দুদু (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী), সিরাজুল ইসলাম মনি (বিএনপি), মজিবুল হক মালিক মজু (বিএনপি বিদ্রোহী), তুষার ইমরান সরকার (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ) এবং তানভীর আহম্মেদ (স্বতন্ত্র), অ্যাডভোকেট সৈয়দ ফারুকউদ্দিন আহম্মেদ (স্বতন্ত্র) ও অ্যাডভোকেট মনিবুল হাসান পলাশ (স্বতন্ত্র)।

চালনা : খুলনার চালনা পৌরসভায় মেয়র পদে চারজন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৩ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১০ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের সনদ কুমার বিশ্বাস, বিএনপির আবুল খায়ের খান এবং স্বতন্ত্র ড. অচিন্ত কুমার মণ্ডল ও গৌতম কুমার রায়।

বেতাগী : বরগুনার বেতাগী পৌরসভায় মেয়র পদে তিনজন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৭ জন ও নারী কাউন্সিলর পদে ৯ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের এবিএম গোলাম কবীর, বিএনপির মো. হুমায়ুন কবীর ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান মহসীন।

কুয়াকাটা : পটুয়াখালীর কুয়াকাটা পৌরসভায় মেয়র পদে ৪ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৩ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৮ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আবদুল বারেক মোল্লা (আওয়ামী লীগ), আবদুল আজিজ মুন্সী (বিএনপি), মো. নুরুল ইসলাম (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ) ও মো. আনোয়ার হাওলাদার (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী)।

উজিরপুর : বরিশালের উজিরপুর পৌরসভায় মেয়র পদে ৩ জন, কাউন্সিলর পদে ২৪ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৯ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত গিয়াজউদ্দিন বেপারী, বিএনপি মনোনীত শহিদুল ইসলাম ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. কাজী শহিদুল ইসলাম।

বাকেরগঞ্জ : বরিশালের বাকেরগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে তিনজন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৯ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. লোকমান হোসেন ডাকুয়া, বিএনপি মনোনীত এসএম মনিরুজ্জামান ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মাওলানা খলিলুর রহমান।

পৌরসভা নির্বাচনের প্রথম ধাপ

মেয়র-কাউন্সিলর পদে ১৩৫১ প্রার্থী

১২ পৌরসভায় আ’লীগ-বিএনপির ২৪ বিদ্রোহী * মেয়র পদে ১১২, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৯৫৬ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ২৮৩ প্রার্থী
 যুগান্তর রিপোর্ট 
০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

প্রথম ধাপের ২৫টি পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন ১ হাজার ৩৫১ জন। এর মধ্যে মেয়র পদে ১১২ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। সবকটি পৌরসভায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থী রয়েছেন।

এসব পৌরসভায় সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৯৫৬ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ২৮৩ জন প্রার্থী হয়েছেন। ২৫টি পৌরসভার মধ্যে ১২টিতে আওয়ামী লীগ অথবা বিএনপির ২৪ জন বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৫ জন সরকারি দলের ও বাকি ৯ জন বিএনপির।

মঙ্গলবার প্রথম ধাপের ২৫টি পৌরসভা মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় শেষ হয়েছে। কাল বৃহস্পতিবার এসব মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হবে। আগামী ১০ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ নির্ধারিত রয়েছে। এরপরই মূলত প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করা হবে। আগামী ২৮ ডিসেম্বর এসব পৌরসভায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

দেশের ২৫ পৌরসভায় মঙ্গলবার উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন প্রার্থীরা। অনেক প্রার্থী স্বাস্থ্যবিধি ও নির্বাচনী আচরণবিধি উপেক্ষা করে বিশাল শোডাউন করে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বাইরে জাতীয় পার্টি, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামসহ কয়েকটি দলের প্রার্থী অংশ নিয়েছে। গফরগাঁও পৌরসভায় তিনজন কাউন্সিলর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করেন। মেয়র পদে ১১২ জন প্রার্থীর মধ্যে ২৫ জন আওয়ামী লীগের, ২৫ জন বিএনপির, ২২ জন স্বতন্ত্র, ২৪ জন দুই দলের বিদ্রোহী ও বাকিরা অন্যান্য দলের পক্ষে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

শায়েস্তাগঞ্জ : হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৮ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. মাসুদউজ্জামান মাসুক ও বিএনপি মনোনীত এমএফ আহমেদ অলি ছাড়াও সরকারি দলের চারজন বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রার্থী হয়েছেন। বাকি দু’জন স্বতন্ত্র প্রার্থী।

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা হচ্ছেন- বর্তমান মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ছালেক মিয়া, হবিগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি আতাউর রহমান মাসুক, উপজেলা যুবলীগ আহ্বায়ক ফজল উদ্দিন তালুকদার ও আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কাশেম শিবলু। স্বতন্ত্র প্রার্থী দু’জন হলেন- সারোয়ার আলম শাকিল ও এমদাদুল ইসলাম শীতল।

গফরগাঁও : ময়মনসিংহের গফরগাঁও পৌরসভায় মেয়র পদে বড় দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৫ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৫ জন প্রার্থী হয়েছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- বর্তমান মেয়র ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এসএম ইকবাল হোসেন (সুমন) ও বিএনপি মনোনীত শাহ আবদুল্লাহ আল-মামুন।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তিনজন কাউন্সিলর নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। তারা হলেন সংরক্ষিত ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে পারভীন আক্তার, সাধারণ ৭ নম্বর ওয়ার্ডে মো. শাজাহান সাজু ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মো. বাবুল হোসেন। প্রার্থীরা সবাই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত।

বড়লেখা : মৌলভীবাজারের বড়লেখা পৌরসভায় মেয়র পদে ৩ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৪ জন ও নারী কাউন্সিলর পদে ১১ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- বর্তমান মেয়র ও আওয়ামী লীগ মনোনীত আবুল ইমাম মো. কামরান চৌধুরী, বিএনপি মনোনীত আনোয়ারুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র মো. সাইদুল ইসলাম।

দিরাই : সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই পৌরসভায় মেয়র পদে ৮ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪০ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১৩ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এ পৌরসভায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বিশ্বজিৎ রায় ছাড়াও এ দলের বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান মেয়র মোশাররফ মিয়াও প্রার্থী হয়েছেন।

অপরদিকে বিএনপির মো. ইকবাল হোসেন চৌধুরী, একই দলের আরেক নেতা ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার আবদুল কাইয়ুম, জাতীয় পার্টির অনন্ত মল্লিক, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের হাফিজ লোকমান আহমেদ এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুল ইসলাম শফিক ও রশিদ মিয়া মেয়র পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

শ্রীপুর : গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভায় মেয়র পদে ৩ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৯ জন ও নারী কাউন্সিলর পদে ১১ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- বর্তমান মেয়র ও আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আনিছুর রহমান, বিএনপির মো. শহিদুল্লাহ শহিদ ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের ফাহাদ আহমেদ মোমতাজী।

মদন : নেত্রকোনার মদন পৌরসভায় মেয়র, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে মোট ৪৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে মেয়র পদে ৬ জন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৪ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহসম্পাদক সাইফুল ইসলাম সাইফ, বিএনপি মনোনীত জেলা যুবদলের সদস্য মো. এনামুল হক, জাতীয় পার্টির ক্ষুদিরাম চন্দ্র দাস, বিএনপি থেকে বিদ্রোহী প্রার্থী মাশরিকুর রহমান বাচ্চু এবং স্বতন্ত্র হিসেবে সাবেক পৌর মেয়র দেওয়ান মোদাচ্ছের হোসেন শফিক ও আবদুর রউফ।

মানিকগঞ্জ : মানিকগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে চারজন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৫০ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১৫ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীদের চারজনের মধ্যে দু’জনই বিএনপির বিদ্রোহী হয়ে মাঠে নেমেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. রমজান আলী, বিএনপি মনোনীত মো. আতাউর রহমান আতা এবং বিএনপি বিদ্রোহী ফারজানা জোবাইদি সিমকি ও নাসির উদ্দিন যাদু।

মানিকগঞ্জ পৌরসভার বর্তমান মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা গাজী কামরুল হুদা সেলিম এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন না। তিনি দলীয় প্রার্থী মো. রমজান আলীকে সমর্থন দিয়েছেন।

সীতাকুণ্ড : চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড পৌরসভায় মেয়র পদে তিনজন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৭১ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের বদিউল আলম, বিএনপির মো. আবুল মুনছুর ও স্বতন্ত্র জহিরুল ইসলাম।

পঞ্চগড় : পঞ্চগড় সদর পৌরসভায় মোট তিনজন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকিয়া খাতুন, বিএনপি মনোনীত প্রার্র্থী ও বর্তমান মেয়র মো. তৌহিদুল ইসলাম এবং জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপা’র শাহরিয়ার বিপ্লব। এই পৌরসভায় আওয়ামী লীগ এবং বিএনপি কোনো দলেরই বিদ্রোহী প্রার্থী নেই। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৫৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ৩৮ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ১৬ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিল প্রার্থী রয়েছেন।

পীরগঞ্জ : ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দু’জন করে এবং জাতীয় পার্টি-জাপা ও ইসলামী আন্দোলনের একজন করে মোট ৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র কশিরুল আলম মনোনয়ন দাখিল করেছেন। তার সঙ্গে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি একরামুল হক। অন্যদিকে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রেজাউল করিম রেজার সঙ্গেও একজন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। তিনি হলেন- সাবেক কাউন্সিলর ও বিএনপি নেতা জয়নাল আবেদীন। অন্যদিকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী প্রফেসর তৈয়ব আলী এবং ইসলামী আন্দোলনের হাফিজুর রহমান মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৪৫ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ৩৩ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ১৩ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিল প্রার্থী রয়েছেন।

ফুলবাড়ী : দিনাজপুরের ফুলবাড়ী পৌরসভায় মেয়র পদে ৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. খাজা মঈন উদ্দিন চিশতি, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শাহাদত হোসেন সাহাজুল, স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র মুরতুজা সরকার মানিক এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী বিশিষ্ট শিল্পপতি মাহমুদ আলম লিটন। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৪২ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ৩২ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ১০ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন।

বদরগঞ্জ : রংপুরের বদরগঞ্জে মেয়র পদে মোট ৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. আহসানুল হক চৌধুরী, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মো. ফিরোজ শাহ, ইসলামী আন্দোলনের মো. সাদ্দাম হোসেন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আজিজুল হক। এই পৌরসভাতেও আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী নেই। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৪৩ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ৩০ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ১৩ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন।

শাহজাদপুর : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর পৌরসভা নির্বাচনের মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিনে মেয়র পদে ৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মনির আক্তার খান তরু লোদী, বিএনপির প্রার্থী মাহমুদুল হাসান সজল, জাতীয় পাটি-জাপার মোক্তার হোসেন, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের খন্দকার ইমরান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলাম। এই পৌরসভাতেও আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী নেই। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৪৪ জন, ৩টি সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডে ১৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সবচেয়ে বেশি প্রার্থী হয়েছেন ৫নং ওয়ার্ডে ১০ জন।

কাটাখালী : রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভায় মেয়র পদে মোট ৭ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত ও বর্তমান মেয়র আব্বাস আলী, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম মনোনয়ন দাখিল করেছেন। এছাড়া অধ্যাপক মাজেদুর রহমান, খোকনুজ্জামান মাসুদ, আবু সামা, আবদুল মোতালেব ও আবদুল হাইও মেয়র পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তাদের মধ্যে সাবেক মেয়র অধ্যাপক মাজেদুর রহমান জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমীর। অন্যদিকে মনোনয়নপত্র দাখিল করা আবু সামা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী। তিনি পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৪৯ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে সংরক্ষিত নারী আসনে ১০ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৯ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

পুঠিয়া : রাজশাহীর পুঠিয়ার পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে চারজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র রবিউল ইসলাম রবি, বিএনপি মনোনীত আল মামুন খান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম আজম নয়ন ও শরিফুল ইসলাম টিপু। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৩৮ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ৩০ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ৮ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন।

কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রাম পৌরসভা নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষদিনে দলীয় প্রার্থী ছাড়াও বিদ্রোহী প্রার্থীসহ মেয়র পদে মোট ৬ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। শেষদিনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কাজিউল ইসলামের সঙ্গে আরও দু’জন আওয়ামী লীগ নেতা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাফিজার রহমান সাজু ও আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত নেতা সাইদুল হাসান দুলাল। এছাড়া বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম বেবু ছাড়াও সাবেক মেয়র ও জেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আবু বকর সিদ্দিকও মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

অপরদিকে বাংলাদেশ ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মজিদ। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ও ৩ সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট ৬৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে সংরক্ষিত নারী আসনে ১৩ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৫১ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

চাটমোহর : পাবনার চাটমোহর পৌরসভায় মেয়র পদে ৫ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৯ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১২ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে দু’জন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও একজন বিএনপির বিদ্রোহী। প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন সাখো, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও বর্তমান মেয়র মির্জা রেজাউল করীম দুলাল, বিএনপির আসাদুজ্জামান আরশেদ, একই দলের বিদ্রোহী সাবেক মেয়র অধ্যাপক আবদুল মান্নান।

খোকসা : কুষ্টিয়ার খোকসা পৌরসভায় মেয়র পদে ২ জন, কাউন্সিলর পদে ৩৪ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১০ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের তারিকুল ইসলাম তারিক ও বিএনপির নাফিজ আহম্মেদ খান রাজু।

চুয়াডাঙ্গা : চুয়াডাঙ্গা পৌরসভায় মেয়র পদে ৮ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৬৬ জন ও নারী কাউন্সিলর পদে ১৩ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে বড় দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ছাড়াও দুই দলের একজন করে বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। এছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের একজন ও স্বতন্ত্র তিনজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মেয়র প্রার্থীরা হলেন- জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন (আওয়ামী লীগ), শরীফ হোসেন দুদু (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী), সিরাজুল ইসলাম মনি (বিএনপি), মজিবুল হক মালিক মজু (বিএনপি বিদ্রোহী), তুষার ইমরান সরকার (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ) এবং তানভীর আহম্মেদ (স্বতন্ত্র), অ্যাডভোকেট সৈয়দ ফারুকউদ্দিন আহম্মেদ (স্বতন্ত্র) ও অ্যাডভোকেট মনিবুল হাসান পলাশ (স্বতন্ত্র)।

চালনা : খুলনার চালনা পৌরসভায় মেয়র পদে চারজন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৩ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১০ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের সনদ কুমার বিশ্বাস, বিএনপির আবুল খায়ের খান এবং স্বতন্ত্র ড. অচিন্ত কুমার মণ্ডল ও গৌতম কুমার রায়।

বেতাগী : বরগুনার বেতাগী পৌরসভায় মেয়র পদে তিনজন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৭ জন ও নারী কাউন্সিলর পদে ৯ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের এবিএম গোলাম কবীর, বিএনপির মো. হুমায়ুন কবীর ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান মহসীন।

কুয়াকাটা : পটুয়াখালীর কুয়াকাটা পৌরসভায় মেয়র পদে ৪ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৩ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৮ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আবদুল বারেক মোল্লা (আওয়ামী লীগ), আবদুল আজিজ মুন্সী (বিএনপি), মো. নুরুল ইসলাম (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ) ও মো. আনোয়ার হাওলাদার (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী)।

উজিরপুর : বরিশালের উজিরপুর পৌরসভায় মেয়র পদে ৩ জন, কাউন্সিলর পদে ২৪ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৯ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত গিয়াজউদ্দিন বেপারী, বিএনপি মনোনীত শহিদুল ইসলাম ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. কাজী শহিদুল ইসলাম।

বাকেরগঞ্জ : বরিশালের বাকেরগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে তিনজন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৯ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. লোকমান হোসেন ডাকুয়া, বিএনপি মনোনীত এসএম মনিরুজ্জামান ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মাওলানা খলিলুর রহমান।