করোনায় মৃত্যু আরও ৩৮ শনাক্ত ২১৯৮
jugantor
করোনায় মৃত্যু আরও ৩৮ শনাক্ত ২১৯৮

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একদিনে আরও ৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন ২ হাজার ১৯৮ জন। এতে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৭১৩ জনে। এ পর্যন্ত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৬৯ হাজার ৪২৩ জন।

বুধবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনা সংক্রান্ত সমন্বিত নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, এ সময়ে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ২ হাজার ৫৬২ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন। এতে সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৮৫ হাজার ৭৮৬ জন।

২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১১৮টি ল্যাবে ১৫ হাজার ৯৭২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ২৮ লাখ ৪ হাজার ১৭৪টি নমুনা। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৭৬ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৭৪ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮২ দশমিক ১৮ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৩ শতাংশ। দেশের জনসংখ্যার ভিত্তিতে প্রতি দশ লাখে কোভিড-১৯ রোগী শনাক্তের সংখ্যা ২৭৫৬ দশমিক ৩৪ জন। প্রতি দশ লাখে শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার সংখ্যা ২২৬৫ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং মৃত্যু ৩৯ দশমিক ৪২ শতাংশ।

শেষ ২৪ ঘণ্টায় যাদের মৃত্যু হয়েছে তাদের মধ্যে ২৫ জন পুরুষ এবং ১৩ জন নারী। তাদের মধ্যে ৩৭ জন হাসপাতালে এবং ১ জনের মৃত্যু হয়েছে বাড়িতে। তাদের মধ্যে ২৫ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি, ৪ জন করে ৮ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ এবং ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ৩ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছর এবং ১ জন করে ২ জনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ও ১০ বছরের কম ছিল। মৃতদের মধ্যে ৩০ জন ঢাকা বিভাগের, ৪ জন চট্টগ্রাম এবং ১ জন করে ২ জন রাজশাহী ও খুলনার এবং ২ জন রংপুর বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন। দেশে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৭১৩ জনের।

এর মধ্যে ৫ হাজার ১৪১ জনই পুরুষ এবং ১ হাজার ৫৭২ জন নারী। তাদের মধ্যে ৩ হাজার ৫৭৫ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। এছাড়াও ১ হাজার ৭৪৭ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছর, ৮০৭ জনের ৪১ থেকে ৫০ বছর, ৩৪৭ জনের ৩১ থেকে ৪০ বছর, ১৫০ জনের ২১ থেকে ৩০ বছর, ৫৪ জনের ১১ থেকে ২০ এবং ৩৩ জনের ছিল ১০ বছরের কম। মৃতদের মধ্যে ৩ হাজার ৬১৮ জন ঢাকা বিভাগের, ১ হাজার ২৬৬ জন চট্টগ্রামের, ৪০৮ জন রাজশাহীর, ৪৯৯ জন খুলনার, ২১৯ জন বরিশালের, ২৬৬ জন সিলেটের, ৩০৩ জন রংপুরের এবং ১৩৪ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।

করোনায় মৃত্যু আরও ৩৮ শনাক্ত ২১৯৮

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একদিনে আরও ৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন ২ হাজার ১৯৮ জন। এতে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৭১৩ জনে। এ পর্যন্ত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৬৯ হাজার ৪২৩ জন।

বুধবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনা সংক্রান্ত সমন্বিত নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, এ সময়ে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ২ হাজার ৫৬২ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন। এতে সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৮৫ হাজার ৭৮৬ জন।

২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১১৮টি ল্যাবে ১৫ হাজার ৯৭২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ২৮ লাখ ৪ হাজার ১৭৪টি নমুনা। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৭৬ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৭৪ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮২ দশমিক ১৮ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৩ শতাংশ। দেশের জনসংখ্যার ভিত্তিতে প্রতি দশ লাখে কোভিড-১৯ রোগী শনাক্তের সংখ্যা ২৭৫৬ দশমিক ৩৪ জন। প্রতি দশ লাখে শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার সংখ্যা ২২৬৫ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং মৃত্যু ৩৯ দশমিক ৪২ শতাংশ।

শেষ ২৪ ঘণ্টায় যাদের মৃত্যু হয়েছে তাদের মধ্যে ২৫ জন পুরুষ এবং ১৩ জন নারী। তাদের মধ্যে ৩৭ জন হাসপাতালে এবং ১ জনের মৃত্যু হয়েছে বাড়িতে। তাদের মধ্যে ২৫ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি, ৪ জন করে ৮ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ এবং ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ৩ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছর এবং ১ জন করে ২ জনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ও ১০ বছরের কম ছিল। মৃতদের মধ্যে ৩০ জন ঢাকা বিভাগের, ৪ জন চট্টগ্রাম এবং ১ জন করে ২ জন রাজশাহী ও খুলনার এবং ২ জন রংপুর বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন। দেশে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৭১৩ জনের।

এর মধ্যে ৫ হাজার ১৪১ জনই পুরুষ এবং ১ হাজার ৫৭২ জন নারী। তাদের মধ্যে ৩ হাজার ৫৭৫ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। এছাড়াও ১ হাজার ৭৪৭ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছর, ৮০৭ জনের ৪১ থেকে ৫০ বছর, ৩৪৭ জনের ৩১ থেকে ৪০ বছর, ১৫০ জনের ২১ থেকে ৩০ বছর, ৫৪ জনের ১১ থেকে ২০ এবং ৩৩ জনের ছিল ১০ বছরের কম। মৃতদের মধ্যে ৩ হাজার ৬১৮ জন ঢাকা বিভাগের, ১ হাজার ২৬৬ জন চট্টগ্রামের, ৪০৮ জন রাজশাহীর, ৪৯৯ জন খুলনার, ২১৯ জন বরিশালের, ২৬৬ জন সিলেটের, ৩০৩ জন রংপুরের এবং ১৩৪ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস