পরিকল্পিতভাবে সরকারি ছুটি দেওয়া হয়নি
jugantor
পরিকল্পিতভাবে সরকারি ছুটি দেওয়া হয়নি
-ডা. শাহাদাত

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

২৫ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, ভোটাররা যাতে ভোটকেন্দ্রে যেতে না পারেন সেজন্য পরিকল্পিতভাবে সরকারি ছুটি দেয়া হয়নি। রোববার বিকালে নগরীর ৪০ নম্বর উত্তর পতেঙ্গা, ২০ নম্বর দেওয়ান বাজার, ৩৫ নম্বর বক্সিরহাট ওয়ার্ডে ধানের শীষে ভোট চেয়ে গণসংযোগকালে তিনি এ অভিযোগ করেন।

ডা. শাহাদাত বলেন, চট্টগ্রাম শিল্প ও ব্যবসাবান্ধব নগরী, এখানে হাজার হাজার কলকারখানায় লাখ লাখ শ্রমিক কাজ করছেন। ভোটের দিন ভোটাররা তাদের কর্মস্থলে না গিয়ে ভোটকেন্দ্রে কিভাবে যাবেন? এতে করে ভোটার উপস্থিতি কমে যাবে। এ সুযোগে সরকারি দল তাদের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে নগরীতে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের দিয়ে ভোটকেন্দ্র দখলের চেষ্টা চালাবে।

তিনি বলেন, আমরা শুনতে পাচ্ছি নগরীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেল, রেস্ট হাউজগুলোতে চট্টগ্রামের আশপাশের এলাকার বহিরাগতরা অবস্থান করছে। এমনিতে বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীনে যে কোনো নির্বাচনে ভোটারদের আস্থা নেই। ভোটাররা কেন্দ্রবিমুখ হয়ে পড়ছে। ভোটার উপস্থিতি বাড়ানোর জন্য সাধারণ ছুটি ঘোষণাসহ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখা প্রয়োজন। সেখানে সাধারণ ছুটি ঘোষণা না করে সরকার ভোটারদের কেন্দ্রবিমুখ করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে।

ডা. শাহাদাত নগরীর উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডের চড়ি হালদার মোড় থেকে গণসংযোগ শুরু করে ধুমপাড়া, কাঠগড় বাজার, জিএম কোম্পানি গেট হয়ে স্টিল মিল বাজারে শেষ করেন। দেওয়ান বাজার ওয়ার্ডের দিদার মার্কেট থেকে শুরু হয়ে খলিফা পট্টি, মাস্টারপোল, বলুয়ার দীঘিরপাড়ের মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। এরপর বক্সিরহাট ওয়ার্ডের ফুলের দোকান থেকে শুরু হয়ে পইলাপুল, মধ্য চাক্তাই রোড়, পুরান চাক্তাই রোড়, রেড়া মার্কেট, নতুন চাক্তাই, চাউলপট্টি, রাজাহাখালি, বিশ্বরোড, ফিশারি হয়ে সি-বিচ কলোনি গিয়ে গণসংযোগ শেষ করেন ডা. শাহাদাত।

এসময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এএম নাজিম উদ্দিন, মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মিয়া ভোলা, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, আব্দুল মান্নান, সদস্য হাজী মো. আলী, মহানগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দিপ্তী, গাজী সিরাজ উলাহ, বক্সির হাট ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী অ্যাডভোকেট তারিক আহমেদ, বিএনপি নেতা এমএ হাসেম রাজু, জসিম উদ্দিন মিন্টু, একেএম পিয়ারু, মাইন উদ্দিন মো শহীদ, মুজিবুল হক, মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, স্বেচ্ছাসেবক দলের সা. সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু, দেওয়ান বাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী লিয়াকত আলী, মহিলা কাউন্সির প্রার্থী অ্যাডভোকেট পারভীন আক্তার চৌধুরী, মনোয়ারা বেগম প্রমুখ।

শাহাদাতের নিরাপত্তায় চার পুলিশ : ডা. শাহাদাত হোসেনের নিরাপত্তায় চার পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। দেহরক্ষী হিসাবে এরা সার্বক্ষণিক তার সঙ্গে থাকবেন। শাহাদাত হোসেনের নির্বাচনি প্রচারণার সময় গাড়িতে হামলা ছাড়াও হুমকি-ধমকির কারণে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে লিখিতভাবে জানান রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর। এর পরিপ্রেক্ষিতে তার নিরাপত্তায় রোববার বিকাল থেকে পুলিশ দেওয়া হয়েছে। তারা ২৭ জানুয়ারি ভোটের দিন পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবেন।

এদিকে ডা. শাহাদাতের একান্ত সচিব মারুফুল হক চৌধুরী চার পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন শুরুর কথা নিশ্চিত করে রোববার রাতে যুগান্তরকে বলেন, নির্বাচন সামনে রেখে বিএনপির নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার শুরু হয়েছে। শনিবার রাতে ও রোববার মিলে নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে ২১ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গণগ্রেফতার বিষয়ে সোমবার (আজ) সকালে নাসিমন ভবনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন ডা. শাহাদাত।

পরিকল্পিতভাবে সরকারি ছুটি দেওয়া হয়নি

-ডা. শাহাদাত
 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, ভোটাররা যাতে ভোটকেন্দ্রে যেতে না পারেন সেজন্য পরিকল্পিতভাবে সরকারি ছুটি দেয়া হয়নি। রোববার বিকালে নগরীর ৪০ নম্বর উত্তর পতেঙ্গা, ২০ নম্বর দেওয়ান বাজার, ৩৫ নম্বর বক্সিরহাট ওয়ার্ডে ধানের শীষে ভোট চেয়ে গণসংযোগকালে তিনি এ অভিযোগ করেন।

ডা. শাহাদাত বলেন, চট্টগ্রাম শিল্প ও ব্যবসাবান্ধব নগরী, এখানে হাজার হাজার কলকারখানায় লাখ লাখ শ্রমিক কাজ করছেন। ভোটের দিন ভোটাররা তাদের কর্মস্থলে না গিয়ে ভোটকেন্দ্রে কিভাবে যাবেন? এতে করে ভোটার উপস্থিতি কমে যাবে। এ সুযোগে সরকারি দল তাদের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে নগরীতে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের দিয়ে ভোটকেন্দ্র দখলের চেষ্টা চালাবে।

তিনি বলেন, আমরা শুনতে পাচ্ছি নগরীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেল, রেস্ট হাউজগুলোতে চট্টগ্রামের আশপাশের এলাকার বহিরাগতরা অবস্থান করছে। এমনিতে বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীনে যে কোনো নির্বাচনে ভোটারদের আস্থা নেই। ভোটাররা কেন্দ্রবিমুখ হয়ে পড়ছে। ভোটার উপস্থিতি বাড়ানোর জন্য সাধারণ ছুটি ঘোষণাসহ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখা প্রয়োজন। সেখানে সাধারণ ছুটি ঘোষণা না করে সরকার ভোটারদের কেন্দ্রবিমুখ করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে।

ডা. শাহাদাত নগরীর উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডের চড়ি হালদার মোড় থেকে গণসংযোগ শুরু করে ধুমপাড়া, কাঠগড় বাজার, জিএম কোম্পানি গেট হয়ে স্টিল মিল বাজারে শেষ করেন। দেওয়ান বাজার ওয়ার্ডের দিদার মার্কেট থেকে শুরু হয়ে খলিফা পট্টি, মাস্টারপোল, বলুয়ার দীঘিরপাড়ের মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। এরপর বক্সিরহাট ওয়ার্ডের ফুলের দোকান থেকে শুরু হয়ে পইলাপুল, মধ্য চাক্তাই রোড়, পুরান চাক্তাই রোড়, রেড়া মার্কেট, নতুন চাক্তাই, চাউলপট্টি, রাজাহাখালি, বিশ্বরোড, ফিশারি হয়ে সি-বিচ কলোনি গিয়ে গণসংযোগ শেষ করেন ডা. শাহাদাত।

এসময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এএম নাজিম উদ্দিন, মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মিয়া ভোলা, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, আব্দুল মান্নান, সদস্য হাজী মো. আলী, মহানগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দিপ্তী, গাজী সিরাজ উলাহ, বক্সির হাট ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী অ্যাডভোকেট তারিক আহমেদ, বিএনপি নেতা এমএ হাসেম রাজু, জসিম উদ্দিন মিন্টু, একেএম পিয়ারু, মাইন উদ্দিন মো শহীদ, মুজিবুল হক, মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, স্বেচ্ছাসেবক দলের সা. সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু, দেওয়ান বাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী লিয়াকত আলী, মহিলা কাউন্সির প্রার্থী অ্যাডভোকেট পারভীন আক্তার চৌধুরী, মনোয়ারা বেগম প্রমুখ।

শাহাদাতের নিরাপত্তায় চার পুলিশ : ডা. শাহাদাত হোসেনের নিরাপত্তায় চার পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। দেহরক্ষী হিসাবে এরা সার্বক্ষণিক তার সঙ্গে থাকবেন। শাহাদাত হোসেনের নির্বাচনি প্রচারণার সময় গাড়িতে হামলা ছাড়াও হুমকি-ধমকির কারণে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে লিখিতভাবে জানান রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর। এর পরিপ্রেক্ষিতে তার নিরাপত্তায় রোববার বিকাল থেকে পুলিশ দেওয়া হয়েছে। তারা ২৭ জানুয়ারি ভোটের দিন পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবেন।

এদিকে ডা. শাহাদাতের একান্ত সচিব মারুফুল হক চৌধুরী চার পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন শুরুর কথা নিশ্চিত করে রোববার রাতে যুগান্তরকে বলেন, নির্বাচন সামনে রেখে বিএনপির নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার শুরু হয়েছে। শনিবার রাতে ও রোববার মিলে নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে ২১ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গণগ্রেফতার বিষয়ে সোমবার (আজ) সকালে নাসিমন ভবনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন ডা. শাহাদাত।