করোনায় রেকর্ড শনাক্তের দিনে মৃত্যু ৫৩
jugantor
আরও ৭০৮৭ রোগী চিহ্নিত
করোনায় রেকর্ড শনাক্তের দিনে মৃত্যু ৫৩

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৫ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনায় রেকর্ড শনাক্তের দিনে মৃত্যু ৫৩

দেশে করোনাভাইরাসের ভয়াবহতা থামছেই না। লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। থেমে নেই মৃত্যুর মিছিলও। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির ধারায় শনাক্ত রোগীর সংখ্যায় নতুন রেকর্ড হয়েছে। রোববার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৭ হাজার ৮৭ জনের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এক দিনে শনাক্ত রোগীর এই সংখ্যা দেশে মহামারি শুরুর পর থেকে সর্বোচ্চ। সব মিলিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৬ লাখ ৩৭ হাজার ৩৬৪ জনে। সর্বোচ্চ শনাক্তের দিনে মৃত্যু হয়েছে আরও ৫৩ জনের। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে হলো ৯ হাজার ২৬৬ জন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ২ হাজার ৭০৭ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন গত এক দিনে। এ পর্যন্ত সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ৫ লাখ ৫২ হাজার ৪৮২ জন হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, দেশে ২২৭টি ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ৩১ হাজার ৪৯৩টি এবং পরীক্ষা করা হয়েছে ৩০ হাজার ৭২৪টি। দেশে এখন পর্যন্ত মোট পরীক্ষা করা হয়েছে ৪৭ লাখ ৮৩ হাজার ৩৮৫টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ৩৬ লাখ চার হাজার ৫২০টি এবং বেসরকারি ব্যবস্থানায় ১১ লাখ ৭৮ হাজার ৮৬৫টি। ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ২৩ দশমিক শূন্য সাত শতাংশ, এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৩২ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৬ দশমিক ৬৮ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার এক দশমিক ৪৫ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৫৩ জনের মধ্যে পুরুষ ৪৫ জন এবং নারী আটজন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেছেন ছয় হাজার ৯৭০ জন এবং নারী দুই হাজার ২৯৬ জন।

এতে আরও বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে ষাটোর্ধ্ব ৩৪ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে পাঁচজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুজন এবং ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে আছেন একজন। তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ৩৭ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ৯ জন, রাজশাহী বিভাগের একজন এবং রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগের আছেন তিনজন করে মোট ছয়জন। তাদের মধ্যে হাসপাতালে মারা গেছেন ৫২ জন এবং বাড়িতে একজন। ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন এক হাজার ৭০৫ জন, ছাড় পেয়েছেন ৯৮২ জন। এখন পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন ছয় লাখ ৫৬ হাজার ৬২০ জন, ছাড় পেয়েছেন ছয় লাখ ১৬ হাজার ৩৪৮ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন ৪০ হাজার ২৭২ জন। একদিনে নতুন করে আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ৩৮১ জন, ছাড় পেয়েছেন ২৪৯ জন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন এক লাখ ছয় হাজার ৬৩৬ জন, ছাড় পেয়েছেন ৯৩ হাজার ৭৬৬ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১২ হাজার ৮৭০ জন।

আরও ৭০৮৭ রোগী চিহ্নিত

করোনায় রেকর্ড শনাক্তের দিনে মৃত্যু ৫৩

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৫ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
করোনায় রেকর্ড শনাক্তের দিনে মৃত্যু ৫৩
ফাইল ছবি

দেশে করোনাভাইরাসের ভয়াবহতা থামছেই না। লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। থেমে নেই মৃত্যুর মিছিলও। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির ধারায় শনাক্ত রোগীর সংখ্যায় নতুন রেকর্ড হয়েছে। রোববার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৭ হাজার ৮৭ জনের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এক দিনে শনাক্ত রোগীর এই সংখ্যা দেশে মহামারি শুরুর পর থেকে সর্বোচ্চ। সব মিলিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৬ লাখ ৩৭ হাজার ৩৬৪ জনে। সর্বোচ্চ শনাক্তের দিনে মৃত্যু হয়েছে আরও ৫৩ জনের। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে হলো ৯ হাজার ২৬৬ জন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ২ হাজার ৭০৭ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন গত এক দিনে। এ পর্যন্ত সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ৫ লাখ ৫২ হাজার ৪৮২ জন হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, দেশে ২২৭টি ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ৩১ হাজার ৪৯৩টি এবং পরীক্ষা করা হয়েছে ৩০ হাজার ৭২৪টি। দেশে এখন পর্যন্ত মোট পরীক্ষা করা হয়েছে ৪৭ লাখ ৮৩ হাজার ৩৮৫টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ৩৬ লাখ চার হাজার ৫২০টি এবং বেসরকারি ব্যবস্থানায় ১১ লাখ ৭৮ হাজার ৮৬৫টি। ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ২৩ দশমিক শূন্য সাত শতাংশ, এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৩২ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৬ দশমিক ৬৮ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার এক দশমিক ৪৫ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৫৩ জনের মধ্যে পুরুষ ৪৫ জন এবং নারী আটজন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেছেন ছয় হাজার ৯৭০ জন এবং নারী দুই হাজার ২৯৬ জন।

এতে আরও বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে ষাটোর্ধ্ব ৩৪ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে পাঁচজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুজন এবং ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে আছেন একজন। তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ৩৭ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ৯ জন, রাজশাহী বিভাগের একজন এবং রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগের আছেন তিনজন করে মোট ছয়জন। তাদের মধ্যে হাসপাতালে মারা গেছেন ৫২ জন এবং বাড়িতে একজন। ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন এক হাজার ৭০৫ জন, ছাড় পেয়েছেন ৯৮২ জন। এখন পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন ছয় লাখ ৫৬ হাজার ৬২০ জন, ছাড় পেয়েছেন ছয় লাখ ১৬ হাজার ৩৪৮ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন ৪০ হাজার ২৭২ জন। একদিনে নতুন করে আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ৩৮১ জন, ছাড় পেয়েছেন ২৪৯ জন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন এক লাখ ছয় হাজার ৬৩৬ জন, ছাড় পেয়েছেন ৯৩ হাজার ৭৬৬ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১২ হাজার ৮৭০ জন।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন