শেখ হাসিনাকে বাইডেনের আমন্ত্রণ জানাতে আজ আসছেন জন কেরি
jugantor
শেখ হাসিনাকে বাইডেনের আমন্ত্রণ জানাতে আজ আসছেন জন কেরি

  কূটনৈতিক প্রতিবেদক  

০৯ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জলবায়ু বিষয়ে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজন করতে যাচ্ছেন।

ভার্চুয়াল এই সম্মেলনে শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ জানানোর লক্ষ্যে আজ কয়েক ঘণ্টার সফরে আসছেন মার্কিন প্রেসিডেন্টের জলবায়ুবিষয়ক বিশেষ দূত জন কেরি।

২২ ও ২৩ এপ্রিল জলবায়ুবিষয়ক এ সম্মেলন আয়োজন করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ বিশ্বের ৪০ দেশের রাষ্ট্র কিংবা সরকারপ্রধানকে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে।

প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে ট্রাম্পের সরে আসার মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির সমস্যাকে কার্যত অস্বীকার করেছিল। বাইডেন ক্ষমতায় যাওয়ার পর প্রেসিডেন্টের নির্বাহী আদেশে ফের জলবায়ু চুক্তিতে যোগ দেয় যুক্তরাষ্ট্র। তারপর এই ইস্যুতে মহামারির মধ্যে সবচেয়ে বড় আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করতে যাচ্ছেন বাইডেন।

বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর অন্যতম। জন কেরি ভারত সফর শেষে ঢাকায় আসছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ ছাড়াও জন কেরি রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক বৈঠক করবেন। বাংলাদেশ ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের সভাপতি। প্রধানমন্ত্রী পদাধিকার বলে এই দায়িত্ব পালন করে থাকেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বৃহস্পতিবার যুগান্তরকে বলেন, ‘প্রধানত জলবায়ু সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ জানানোর লক্ষ্যে জন কেরি শুক্রবার সকালেই ঢাকায় পৌঁছবেন বলে আশা করি।’

জন কেরি আবুধাবি ও নয়াদিল্লি সফরের পর ঢাকায় আসছেন। ইন্দো-প্যাসিফিক স্ট্র্যাটেজিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান পার্টনার হলো ভারত, জাপান ও অস্ট্রেলিয়া। এশিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিপক্ষ চীন।

শেখ হাসিনাকে বাইডেনের আমন্ত্রণ জানাতে আজ আসছেন জন কেরি

 কূটনৈতিক প্রতিবেদক 
০৯ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জলবায়ু বিষয়ে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজন করতে যাচ্ছেন।

ভার্চুয়াল এই সম্মেলনে শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ জানানোর লক্ষ্যে আজ কয়েক ঘণ্টার সফরে আসছেন মার্কিন প্রেসিডেন্টের জলবায়ুবিষয়ক বিশেষ দূত জন কেরি।

২২ ও ২৩ এপ্রিল জলবায়ুবিষয়ক এ সম্মেলন আয়োজন করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ বিশ্বের ৪০ দেশের রাষ্ট্র কিংবা সরকারপ্রধানকে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে।

প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে ট্রাম্পের সরে আসার মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির সমস্যাকে কার্যত অস্বীকার করেছিল। বাইডেন ক্ষমতায় যাওয়ার পর প্রেসিডেন্টের নির্বাহী আদেশে ফের জলবায়ু চুক্তিতে যোগ দেয় যুক্তরাষ্ট্র। তারপর এই ইস্যুতে মহামারির মধ্যে সবচেয়ে বড় আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করতে যাচ্ছেন বাইডেন।

বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর অন্যতম। জন কেরি ভারত সফর শেষে ঢাকায় আসছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ ছাড়াও জন কেরি রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক বৈঠক করবেন। বাংলাদেশ ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের সভাপতি। প্রধানমন্ত্রী পদাধিকার বলে এই দায়িত্ব পালন করে থাকেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বৃহস্পতিবার যুগান্তরকে বলেন, ‘প্রধানত জলবায়ু সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ জানানোর লক্ষ্যে জন কেরি শুক্রবার সকালেই ঢাকায় পৌঁছবেন বলে আশা করি।’

জন কেরি আবুধাবি ও নয়াদিল্লি সফরের পর ঢাকায় আসছেন। ইন্দো-প্যাসিফিক স্ট্র্যাটেজিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান পার্টনার হলো ভারত, জাপান ও অস্ট্রেলিয়া। এশিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিপক্ষ চীন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন