করোনায় আরও ৬৯ মৃত্যু, শনাক্ত ৬০২৮
jugantor
করোনায় আরও ৬৯ মৃত্যু, শনাক্ত ৬০২৮

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৪ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে করোনাভাইরাসে কমেছে মৃত্যু ও শনাক্ত। একদিনে নতুন করে আরও ৬৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। টানা তিনদিন দৈনিক ৭০ জনের বেশি মৃত্যুর পর মঙ্গলবার তা কমল। সোমবার রেকর্ড ৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এ নিয়ে দেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯ হাজার ৮৯১ জনে। ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৬ হাজার ২৮ জন। আগেরদিন শনাক্ত হয়েছিল সাত হাজার ২০১ জন। সবমিলিয়ে দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৯৭ হাজার ৯৮৫ জন। একদিনে ৪ হাজার ৮৫৩ জনসহ এ পর্যন্ত সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা ৫ লাখ ৮৫ হাজার ৯৬৬ জন। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত বছর ৮ মার্চ করোনা শনাক্তের ১০ দিন পর দেশে প্রথম মৃত্যুর খবর দেয় সরকার। এরপর গত বছরের শেষ দিকে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমতে থাকে। কিন্তু এ বছরের মার্চ থেকে ফের বাড়তে থাকে মৃত্যু। ৩১ মার্চ ৫২ জনের মৃত্যুর খবর দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এরপর থেকে দৈনিক মৃত্যু কখনই ৫০-এর নিচে নামেনি। সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে কয়েক দিন ধরে দিনে ৬ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়ে আসছিল। এর মধ্যে বুধবার রেকর্ড ৭ হাজার ৬২৬ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছিল।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ২৫৫টি ল্যাবে ৩২ হাজার ৯৫৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৫০ লাখ ৭০ হাজার ৭৮৮টি নমুনা। একদিনে নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ২৯ শতাংশ। আর সর্বমোট নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৭৬ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৩ দশমিক ৯৫ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪২ শতাংশ। একদিনে যারা মারা গেছেন, তাদের মধ্যে ৪৩ জন পুরুষ আর নারী ২৬ জন। তাদের মধ্যে পাঁচজন বাড়িতে, একজনকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে এবং অন্যরা হাসপাতালে মারা যান।

মৃতদের মধ্যে ৩৯ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি, ২০ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছর, সাতজনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছর এবং তিনজনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ছিল। মৃতদের মধ্যে ৪১ জন ঢাকা বিভাগের, ১৩ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, তিনজন রাজশাহী বিভাগের, তিনজন খুলনা বিভাগের, তিনজন বরিশাল বিভাগের, দুজন সিলেট বিভাগের, তিনজন রংপুর বিভাগের এবং একজন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন। দেশে এ পর্যন্ত মারা যাওয়া ৯ হাজার ৮৯১ জনের মধ্যে ৭ হাজার ৩৭৬ জনই পুরুষ এবং ২ হাজার ৫১৫ জন নারী।

করোনায় আরও ৬৯ মৃত্যু, শনাক্ত ৬০২৮

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৪ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে করোনাভাইরাসে কমেছে মৃত্যু ও শনাক্ত। একদিনে নতুন করে আরও ৬৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। টানা তিনদিন দৈনিক ৭০ জনের বেশি মৃত্যুর পর মঙ্গলবার তা কমল। সোমবার রেকর্ড ৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এ নিয়ে দেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯ হাজার ৮৯১ জনে। ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৬ হাজার ২৮ জন। আগেরদিন শনাক্ত হয়েছিল সাত হাজার ২০১ জন। সবমিলিয়ে দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৯৭ হাজার ৯৮৫ জন। একদিনে ৪ হাজার ৮৫৩ জনসহ এ পর্যন্ত সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা ৫ লাখ ৮৫ হাজার ৯৬৬ জন। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত বছর ৮ মার্চ করোনা শনাক্তের ১০ দিন পর দেশে প্রথম মৃত্যুর খবর দেয় সরকার। এরপর গত বছরের শেষ দিকে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমতে থাকে। কিন্তু এ বছরের মার্চ থেকে ফের বাড়তে থাকে মৃত্যু। ৩১ মার্চ ৫২ জনের মৃত্যুর খবর দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এরপর থেকে দৈনিক মৃত্যু কখনই ৫০-এর নিচে নামেনি। সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে কয়েক দিন ধরে দিনে ৬ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়ে আসছিল। এর মধ্যে বুধবার রেকর্ড ৭ হাজার ৬২৬ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছিল।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ২৫৫টি ল্যাবে ৩২ হাজার ৯৫৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৫০ লাখ ৭০ হাজার ৭৮৮টি নমুনা। একদিনে নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ২৯ শতাংশ। আর সর্বমোট নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৭৬ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৩ দশমিক ৯৫ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪২ শতাংশ। একদিনে যারা মারা গেছেন, তাদের মধ্যে ৪৩ জন পুরুষ আর নারী ২৬ জন। তাদের মধ্যে পাঁচজন বাড়িতে, একজনকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে এবং অন্যরা হাসপাতালে মারা যান।

মৃতদের মধ্যে ৩৯ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি, ২০ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছর, সাতজনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছর এবং তিনজনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ছিল। মৃতদের মধ্যে ৪১ জন ঢাকা বিভাগের, ১৩ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, তিনজন রাজশাহী বিভাগের, তিনজন খুলনা বিভাগের, তিনজন বরিশাল বিভাগের, দুজন সিলেট বিভাগের, তিনজন রংপুর বিভাগের এবং একজন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন। দেশে এ পর্যন্ত মারা যাওয়া ৯ হাজার ৮৯১ জনের মধ্যে ৭ হাজার ৩৭৬ জনই পুরুষ এবং ২ হাজার ৫১৫ জন নারী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন