করোনা শনাক্তের হার ১৩.২৫ শতাংশ
jugantor
২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৪০
করোনা শনাক্তের হার ১৩.২৫ শতাংশ

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১১ জুন ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে ফের ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে করোনা মহামারি। একদিনে শনাক্ত ও মৃত্যু দুটোই বেড়েছে। আর শনাক্তের হার ছাড়িয়েছে ১৩ শতাংশ। মোট মৃত্যু ১৩ হাজার ছুঁইছুঁই। ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ২৫৭৬ জনের দেহে নতুন করে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। আগের দিন শনাক্ত হয়েছিল ২৫৩৭ জন। এ নিয়ে দেশে করোনায় শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ লাখ ২০ হাজার ৩৯৫। এদিন আক্রান্তদের মধ্যে আরও ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে। আগের দিন মারা যান ৩৬ জন। সব মিলিয়ে দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৯৮৯। সরকারি হিসাবে আক্রান্তদের মধ্যে একদিনে আরও ২০৬১ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ৫৯ হাজার ৬৩০ জন। বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সারা দেশে ৫১০টি পরীক্ষাগারে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ হাজার ৪৪৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৬১ লাখ ২৬ হাজার ২৩৮টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৪৪ লাখ ৬৭ হাজার ৬৫৪টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ১৬ লাখ ৫৮ হাজার ৫৮৪টি। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ২৫ শতাংশ, আগের দিন শনাক্তের হার ছিল ১২ দশমিক ৩৩ শতাংশ। দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় রোগী শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৩৯ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯২ দশমিক ৫৯ শতাংশ আর মৃত্যুহার এক দশমিক ৫৮ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৪০ জনের মধ্যে পুরুষ ৩১ জন আর নারী নয়জন। দেশে এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেলেন ৯ হাজার ৩৫০ জন আর নারী ৩ হাজার ৬৩৯ জন। একদিনে মারা যাওয়াদের মধ্যে ষাটোর্ধ্ব ২২ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে আটজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে সাতজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে একজন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন আর শূন্য থেকে ১০ বছরের মধ্যে রয়েছে একজন। তাদের মধ্যে ঢাকা ও রাজশাহী বিভাগের আছেন আটজন করে, চট্টগ্রাম বিভাগে ১২ জন, খুলনা বিভাগের ছয়জন, সিলেট বিভাগের দুজন আর রংপুর বিভাগের রয়েছেন চারজন। তাদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ৩১ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ছয়জন আর বাড়িতে মারা গেছেন তিনজন।

এতে আরও জানানো হয়, ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ১ হাজার ১৫২ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৫২৪ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ১ লাখ ৪৩ হাজার ৭১৭ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ১ লাখ ২০ হাজার ৭৮১ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ২২ হাজার ৯৩৬ জন।

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৪০

করোনা শনাক্তের হার ১৩.২৫ শতাংশ

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১১ জুন ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে ফের ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে করোনা মহামারি। একদিনে শনাক্ত ও মৃত্যু দুটোই বেড়েছে। আর শনাক্তের হার ছাড়িয়েছে ১৩ শতাংশ। মোট মৃত্যু ১৩ হাজার ছুঁইছুঁই। ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ২৫৭৬ জনের দেহে নতুন করে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। আগের দিন শনাক্ত হয়েছিল ২৫৩৭ জন। এ নিয়ে দেশে করোনায় শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ লাখ ২০ হাজার ৩৯৫। এদিন আক্রান্তদের মধ্যে আরও ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে। আগের দিন মারা যান ৩৬ জন। সব মিলিয়ে দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৯৮৯। সরকারি হিসাবে আক্রান্তদের মধ্যে একদিনে আরও ২০৬১ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ৫৯ হাজার ৬৩০ জন। বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সারা দেশে ৫১০টি পরীক্ষাগারে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ হাজার ৪৪৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৬১ লাখ ২৬ হাজার ২৩৮টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৪৪ লাখ ৬৭ হাজার ৬৫৪টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ১৬ লাখ ৫৮ হাজার ৫৮৪টি। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ২৫ শতাংশ, আগের দিন শনাক্তের হার ছিল ১২ দশমিক ৩৩ শতাংশ। দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় রোগী শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৩৯ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯২ দশমিক ৫৯ শতাংশ আর মৃত্যুহার এক দশমিক ৫৮ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৪০ জনের মধ্যে পুরুষ ৩১ জন আর নারী নয়জন। দেশে এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেলেন ৯ হাজার ৩৫০ জন আর নারী ৩ হাজার ৬৩৯ জন। একদিনে মারা যাওয়াদের মধ্যে ষাটোর্ধ্ব ২২ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে আটজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে সাতজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে একজন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন আর শূন্য থেকে ১০ বছরের মধ্যে রয়েছে একজন। তাদের মধ্যে ঢাকা ও রাজশাহী বিভাগের আছেন আটজন করে, চট্টগ্রাম বিভাগে ১২ জন, খুলনা বিভাগের ছয়জন, সিলেট বিভাগের দুজন আর রংপুর বিভাগের রয়েছেন চারজন। তাদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ৩১ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ছয়জন আর বাড়িতে মারা গেছেন তিনজন।

এতে আরও জানানো হয়, ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ১ হাজার ১৫২ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৫২৪ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ১ লাখ ৪৩ হাজার ৭১৭ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ১ লাখ ২০ হাজার ৭৮১ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ২২ হাজার ৯৩৬ জন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন