চট্টগ্রামে কবরস্থান দখল নিয়ে দুই পক্ষে সংঘর্ষ
jugantor
চট্টগ্রামে কবরস্থান দখল নিয়ে দুই পক্ষে সংঘর্ষ
৪ জন গুলিবিদ্ধসহ আহত ১৫

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

১২ জুন ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে কবরস্থানের দখল নিতে দুপক্ষের সংঘর্ষ ও গোলাগুলিতে চারজন গুলিবিদ্ধসহ ১৫ জন আহত হয়েছেন। বাকলিয়া থানার আবদুল লতিফ হাটের বড় মৌলভি কবরস্থান এলাকায় শুক্রবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

গুলিবিদ্ধ চারজন হলেন- আবদুল্লাহ কাইছার, মাসুদ, মুরাদ ও ফয়সাল। তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা জানান, বাকলিয়া থেকে গুলিবিদ্ধসহ আহতদের চমেক হাসপাতালে আনা হয়। তাদের কারও অবস্থাই সংকটাপন্ন নয়।

বাকলিয়া থানা পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন ধরে বড় মৌলভি কবরস্থান নিয়ে চাকসুর সাবেক ভিপি মো. ইব্রাহিমের পরিবারের সঙ্গে ইয়াকুব আলী নামের একজনের বিরোধ চলছিল। শুক্রবার সকালে কবরস্থানে নতুন সাইনবোর্ড তুলতে গেলে ইয়াকুবের পক্ষের লোকজন গোলাগুলি করে ও কিরিচ দিয়ে অপর পক্ষের লোকজনকে কোপায়। এ সময় ইব্রাহিমের লোকজনও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ইব্রাহিমের পরিবারের সদস্য আহমেদুল হক যুগান্তরকে জানান, এটি আমাদের পরিবারিক কবরস্থান। দীর্ঘদিন ধরে একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ এটি দখল করার চেষ্টা করছে। দখলের অংশ হিসাবে কবরস্থানের নামও বদল করে ফেলার চেষ্টা করছিল। শুক্রবার সাইনবোর্ড লাগাতে গেলে সন্ত্রাসীরা গুলি করে। এছাড়াও কিরিচ দিয়ে কয়েকজনকে জখম করে। এখন মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

বাকলিয়া থানার ওসি মো. রুহুল আমিন যুগান্তরকে জানান, সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

চট্টগ্রামে কবরস্থান দখল নিয়ে দুই পক্ষে সংঘর্ষ

৪ জন গুলিবিদ্ধসহ আহত ১৫
 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
১২ জুন ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে কবরস্থানের দখল নিতে দুপক্ষের সংঘর্ষ ও গোলাগুলিতে চারজন গুলিবিদ্ধসহ ১৫ জন আহত হয়েছেন। বাকলিয়া থানার আবদুল লতিফ হাটের বড় মৌলভি কবরস্থান এলাকায় শুক্রবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

গুলিবিদ্ধ চারজন হলেন- আবদুল্লাহ কাইছার, মাসুদ, মুরাদ ও ফয়সাল। তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা জানান, বাকলিয়া থেকে গুলিবিদ্ধসহ আহতদের চমেক হাসপাতালে আনা হয়। তাদের কারও অবস্থাই সংকটাপন্ন নয়।

বাকলিয়া থানা পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন ধরে বড় মৌলভি কবরস্থান নিয়ে চাকসুর সাবেক ভিপি মো. ইব্রাহিমের পরিবারের সঙ্গে ইয়াকুব আলী নামের একজনের বিরোধ চলছিল। শুক্রবার সকালে কবরস্থানে নতুন সাইনবোর্ড তুলতে গেলে ইয়াকুবের পক্ষের লোকজন গোলাগুলি করে ও কিরিচ দিয়ে অপর পক্ষের লোকজনকে কোপায়। এ সময় ইব্রাহিমের লোকজনও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ইব্রাহিমের পরিবারের সদস্য আহমেদুল হক যুগান্তরকে জানান, এটি আমাদের পরিবারিক কবরস্থান। দীর্ঘদিন ধরে একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ এটি দখল করার চেষ্টা করছে। দখলের অংশ হিসাবে কবরস্থানের নামও বদল করে ফেলার চেষ্টা করছিল। শুক্রবার সাইনবোর্ড লাগাতে গেলে সন্ত্রাসীরা গুলি করে। এছাড়াও কিরিচ দিয়ে কয়েকজনকে জখম করে। এখন মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

বাকলিয়া থানার ওসি মো. রুহুল আমিন যুগান্তরকে জানান, সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন