ফোনে কথা বলতে বলতে ট্রেনের নিচে ছাত্রের মৃত্যু
jugantor
ফোনে কথা বলতে বলতে ট্রেনের নিচে ছাত্রের মৃত্যু

  বুড়িচং (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লায় মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে ট্রেনে কাটা পড়ে জসিম উদ্দিন (২৬) নামের এক কলেজছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথে শিমড়া ও বানাসুয়ার মাঝামাঝি স্থানে আমড়াতলী এলাকায় শুক্রবার রাত ১১টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। জসিম বুড়িচং উপজেলার পূর্ণমতি গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন কুমিল্লা রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মো. ইসমাইল হোসেন।

স্থানীয় কয়েকজন কৃষক ও ব্যবসায়ী এমরান হোসেন রানা জানান, রাতে আমড়াতলী এলাকায় এক যুবক মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে রেললাইন দিয়ে হেঁটে দক্ষিণ দিকে যাচ্ছিল। এমন সময় ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী কর্ণফুলী ট্রেন অনেকবার হর্ন দিচ্ছিল। ট্রেনটি যাওয়ার পর দেখি তার লাশ পড়ে আছে।

জসিমের বড় ভাই গিয়াস উদ্দিন জানান, জসিম কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের মাস্টার্স (প্রিলিমিনারি) ১৮-১৯ সেশনের প্রথমবষের্র ছাত্র ও ওষুধ কোম্পানি অক্সিনিন ফার্মাতে কর্মরত ছিলেন। তিনি আরও বলেন, আমার ভাই (জসিম) দুপুরে খাওয়া-দাওয়া করে বাসা থেকে বের হয়। সন্ধ্যায় কয়েকজন লোকের কাছে শুনতে পাই রেললাইনে লাশ পড়ে আছে।

এসআই ইসমাইল হোসেন বলেন, লাশের সঙ্গে একটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, একই স্থানে বুধবার মৌলভীনগরের মো. হারুন মিয়া নামের এক ব্যক্তি ট্রেনে কাটা পড়ে আহত হন। তিনি এখন কুমিল্লা গোমতি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

ফোনে কথা বলতে বলতে ট্রেনের নিচে ছাত্রের মৃত্যু

 বুড়িচং (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লায় মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে ট্রেনে কাটা পড়ে জসিম উদ্দিন (২৬) নামের এক কলেজছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথে শিমড়া ও বানাসুয়ার মাঝামাঝি স্থানে আমড়াতলী এলাকায় শুক্রবার রাত ১১টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। জসিম বুড়িচং উপজেলার পূর্ণমতি গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন কুমিল্লা রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মো. ইসমাইল হোসেন।

স্থানীয় কয়েকজন কৃষক ও ব্যবসায়ী এমরান হোসেন রানা জানান, রাতে আমড়াতলী এলাকায় এক যুবক মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে রেললাইন দিয়ে হেঁটে দক্ষিণ দিকে যাচ্ছিল। এমন সময় ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী কর্ণফুলী ট্রেন অনেকবার হর্ন দিচ্ছিল। ট্রেনটি যাওয়ার পর দেখি তার লাশ পড়ে আছে।

জসিমের বড় ভাই গিয়াস উদ্দিন জানান, জসিম কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের মাস্টার্স (প্রিলিমিনারি) ১৮-১৯ সেশনের প্রথমবষের্র ছাত্র ও ওষুধ কোম্পানি অক্সিনিন ফার্মাতে কর্মরত ছিলেন। তিনি আরও বলেন, আমার ভাই (জসিম) দুপুরে খাওয়া-দাওয়া করে বাসা থেকে বের হয়। সন্ধ্যায় কয়েকজন লোকের কাছে শুনতে পাই রেললাইনে লাশ পড়ে আছে।

এসআই ইসমাইল হোসেন বলেন, লাশের সঙ্গে একটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, একই স্থানে বুধবার মৌলভীনগরের মো. হারুন মিয়া নামের এক ব্যক্তি ট্রেনে কাটা পড়ে আহত হন। তিনি এখন কুমিল্লা গোমতি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন