চট্টগ্রাম ও চৌমুহনীতে সংঘর্ষ থমথমে কুমিল্লা
jugantor
চট্টগ্রাম ও চৌমুহনীতে সংঘর্ষ থমথমে কুমিল্লা
পুলিশসহ আহত ৬৩, আটক ৫০ * চট্টগ্রামে আজ আধাবেলা হরতালের ডাক ঐক্য পরিষদের * হাজীগঞ্জে তিন মামলায় আসামি ২ হাজার

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৬ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপের ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার নোয়াখালীর চৌমুহনী ও চট্টগ্রামে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় চৌমুহনীতে একজনের মৃত্যু এবং পুলিশসহ ৪৩ জন আহত হয়েছেন। চট্টগ্রামে আহত হন ২০ জন। সেখানে অন্তত ৫০ জনকে আটক করা হয়েছে। এদিকে চট্টগ্রাম নগরীর জেএম সেন হলের পূজামণ্ডপে ঢিল ছোড়া এবং পূজার ব্যানার ছেঁড়ার প্রতিবাদে আজ জেলায় আধাবেলা হরতালের ডাক দিয়েছে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। এদিন কুমিল্লার পরিস্থিতি ছিল থমথমে। নগরীতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক তৎপরতা দেখা যায়। বিজিবির পাশাপাশি সাঁজোয়া যান নিয়ে টহল দেয় পুলিশ। এ ছাড়া সাদা পোশাকে পুলিশের গোয়েন্দা ইউনিট নজরদারি করে। বিশেষ করে জুমার নামাজের পর যেন কোনো প্রকার উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয় সেদিকেই কঠোর নজর ছিল পুলিশের।

দুপুরে কুমিল্লা নগরীর সেই পূজামণ্ডপ পরিদর্শনে এসে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, পূজামণ্ডপের ঘটনা সরকারের চরম ব্যর্থতা। এর দায় নিয়ে সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষের ঘটনায় তিনটি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় ২ হাজার জনকে আসামি করা হয়েছে। ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

নোয়াখালী : জুমার নামাজের পর বেগমগঞ্জের চৌমুহনীতে মুসল্লিরা বিক্ষোভ শুরু করে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকেও খণ্ড খণ্ড মিছিল চৌমুহনী আসছিল। এ সময় একটি মিছিল চৌমুহনী কলেজ রোডে ইসকন মন্দিরের সামনে এলে বিক্ষোভকারীরা মন্দির লক্ষ করে ইটপাটকেল ছোড়ে। মন্দিরে থাকা স্বেচ্ছাসেবকরা প্রতিরোধে এগিয়ে এলে উভয়পক্ষে উত্তেজনা তৈরি হয়। এ সময় ইসকন ভক্ত যতন শাহা মাটিতে লুটিয়ে পড়লে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে পুলিশ জানায়, তার শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। কী কারণে তিনি মারা গেছেন তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। এদিকে এ ঘটনার পর স্থানীয় জিও মন্দির, রাম ঠাকুরের আশ্রম, বিজয়া, মঙ্গলা, রাধা মন্দিরে হামলা হয়। এ সময় বাধা দিলে বিজিবি ও র‌্যাব-পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ারগ্যাস ছোড়ে। এ সময় বেগমগঞ্জ থানার ওসি কামরুজ্জামান শিকদারসহ ৪৩ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে তিনজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম : জুমার নামাজের পর নগরীর আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন একদল মুসল্লি। এ সময় পুলিশ নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে মিছিলকারীদের আটকে দেওয়ার চেষ্টা করে। বন্ধ করে দেওয়া হয় জেএমসেন হলে যাওয়ার পথও। বিক্ষুব্ধ মুসল্লিরা পুলিশের ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করলে পুলিশ টিয়ারশেল ও ফাঁকা গুলি ছুড়ে মিছিলকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় পাঁচ পুলিশসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়। মিছিলকারীরাদের একটি অংশ পালিয়ে যাওয়ার সময় জেএমসেন হলের সামনে পূজার ব্যানার ও তোরণের ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে। মন্দিরে ঢিল ছুড়ে মারে। এ সময় অন্তত ৫০ জনকে আটক করে পুলিশ। এ ঘটনার প্রতিবাদে আজ ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত চট্টগ্রামে আধাবেলা হরতালের ডাক দিয়েছে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত হরতালের ডাক দেন। এদিকে মণ্ডপে হামলার অভিযোগে শুক্রবার প্রায় সাড়ে ৩ ঘণ্টা নগরীর ২৭৬টি পূজামণ্ডপে প্রতিমা বিসর্জন স্থগিত রাখা হয়। পরে প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ প্রতিমা বিসর্জনে নিরাপত্তা নিশ্চিতের বিষয়ে আশ্বস্ত করার পর প্রতিমা বিসর্জনের সিদ্ধান্ত নেন পূজা উদযাপন পরিষদের নেতারা।

কুমিল্লা : দুপুরে নগরীর নানুয়ার দীঘিরপাড় এলাকার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। পরে নগরীর টাউন হলে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, এটা চরমভাবে সরকারের ব্যর্থতা, এ ব্যর্থতার দায় নিয়ে সরকারকে পদত্যাগ করে জাতীয় সরকার গঠন করতে হবে। ইসলামের কোথাও অন্য ধর্মাবলম্বীদের গায়ে হাত তোলা, পূজামণ্ডপ ভাঙার অধিকার নেই। হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, আমরা সবাই ভাই ভাই। তিনি বলেন, সরকারের পায়ের নিচে এখন মাটি নেই, তাই সরকার এ ঘটনাকে পুঁজি করে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে একটা ধরপাকড় শুরু করেছে। এসব করে কোনো লাভ নেই। সরকারকে এ ব্যর্থতার দায় নিতে হবে এবং এ ধরনের ঘটনা যেন আর না ঘটে সেই গ্যারান্টি দিতে হবে। এ সময় গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জুনায়েদ সাকি বলেন, সহিংসতা সৃষ্টির লক্ষ্যেই পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। আর এ সুযোগে রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে সরকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা নাঈম জাহাঙ্গীর, জুলকার নাঈন ইমন প্রমুখ।

নগরীতে নাশকতাবিরোধী মিছিল বের করেছে মহানগর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠন। নাশকতা প্রতিরোধে সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের সমর্থকরা পুলিশের পাশাপাশি নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নিতে দেখা গেছে। এদিকে কুমিল্লায় ফেসবুক ও ইউটিউবে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গোলাম মাওলা নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। তিনি জেলার বুড়িচং উপজেলার কালিকাপুর গ্রামের মৃত তাজুল ইসলামের ছেলে।

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) : হাজীগঞ্জ উপজেলায় বুধবার রাতে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষের ঘটনায় তিনটি মামলায় ২ হাজার জনকে আসামি করা হয়েছে। হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ হারুনুর রশীদ জানান, উপজেলায় মোট ১২টি পূজামণ্ডপ ভাঙচুর হয়েছে। পুলিশ বাদী হয়ে দুটি ও মন্দির ভাঙার দায়ে মন্দির কর্তৃপক্ষ একটি মামলা করে। এ পর্যন্ত সাত জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদিকে বুধবার রাতে হাজীগঞ্জ বাজারে পুলিশ জনতার সংঘর্ষে নিহত বাবলু, আল আমিন, শামীম ও হৃদয়ের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলায় ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে। শুক্রবার কড়া নিরাপত্তায় হাজীগঞ্জ বড় মসজিদসহ শহরের সব মসজিদে জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাজারে বিজিবি ও অতিরিক্ত পুলিশ টহল দিতে দেখা গেছে।

সোনাইমুড়ী (নোয়াখালী) : সোনাইমুড়ীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুরের ঘটনায় দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে সোনাইমুড়ীর বারগাঁও ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এর হলো রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত বিসমিল্লা মিয়ার ছেলে আউয়াল ও কাশিপুর গ্রামের আব্দুল মতিনে ছেলে জুয়েল।

সিলেট : কুমিল্লার ঘটনার জের ধরে জকিগঞ্জের কালিগঞ্জে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমী আক্তার, জকিগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকির হোসেন ও জকিগঞ্জ থানার ওসি আবুল কাসেমের গাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় নিন্দা জানানো হয়েছে। বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ অ্যাসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির সভাপতি সিলেট সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক ছাতক উপজেলা চেয়ারম্যান মো. ফজলুর রহমান, সিলেট জেলা কমিটির সভাপতি বালাগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মফুর ও সাধারণ সম্পাদক জৈন্তাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. কামাল আহমদ এক যুক্ত বিবৃতিতে এ নিন্দা জানান।

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) : গোমস্তাপুরে এক মদ্যপ ব্যক্তির হামলায় গ্রামপুলিশসহ ৩ জন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে উপজেলার পার্বতীপুর ইউনিয়নের জিনারপুর আদিবাসী দুর্গামন্দির চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। ইউপি চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী খান জানান, ইউনিয়নের বড়দাদপুর গ্রামের মনিরুল ইসলামের ছেলে হেলাল মদ্যপ অবস্থায় ছুরি নিয়ে হামলা চালায়। পুলিশ তাকে আটক করেছে। গুরুতর আহত গ্রামপুলিশ মোক্তারকে রামেক হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম ও চৌমুহনীতে সংঘর্ষ থমথমে কুমিল্লা

পুলিশসহ আহত ৬৩, আটক ৫০ * চট্টগ্রামে আজ আধাবেলা হরতালের ডাক ঐক্য পরিষদের * হাজীগঞ্জে তিন মামলায় আসামি ২ হাজার
 যুগান্তর ডেস্ক 
১৬ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপের ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার নোয়াখালীর চৌমুহনী ও চট্টগ্রামে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় চৌমুহনীতে একজনের মৃত্যু এবং পুলিশসহ ৪৩ জন আহত হয়েছেন। চট্টগ্রামে আহত হন ২০ জন। সেখানে অন্তত ৫০ জনকে আটক করা হয়েছে। এদিকে চট্টগ্রাম নগরীর জেএম সেন হলের পূজামণ্ডপে ঢিল ছোড়া এবং পূজার ব্যানার ছেঁড়ার প্রতিবাদে আজ জেলায় আধাবেলা হরতালের ডাক দিয়েছে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। এদিন কুমিল্লার পরিস্থিতি ছিল থমথমে। নগরীতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক তৎপরতা দেখা যায়। বিজিবির পাশাপাশি সাঁজোয়া যান নিয়ে টহল দেয় পুলিশ। এ ছাড়া সাদা পোশাকে পুলিশের গোয়েন্দা ইউনিট নজরদারি করে। বিশেষ করে জুমার নামাজের পর যেন কোনো প্রকার উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয় সেদিকেই কঠোর নজর ছিল পুলিশের।

দুপুরে কুমিল্লা নগরীর সেই পূজামণ্ডপ পরিদর্শনে এসে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, পূজামণ্ডপের ঘটনা সরকারের চরম ব্যর্থতা। এর দায় নিয়ে সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষের ঘটনায় তিনটি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় ২ হাজার জনকে আসামি করা হয়েছে। ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

নোয়াখালী : জুমার নামাজের পর বেগমগঞ্জের চৌমুহনীতে মুসল্লিরা বিক্ষোভ শুরু করে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকেও খণ্ড খণ্ড মিছিল চৌমুহনী আসছিল। এ সময় একটি মিছিল চৌমুহনী কলেজ রোডে ইসকন মন্দিরের সামনে এলে বিক্ষোভকারীরা মন্দির লক্ষ করে ইটপাটকেল ছোড়ে। মন্দিরে থাকা স্বেচ্ছাসেবকরা প্রতিরোধে এগিয়ে এলে উভয়পক্ষে উত্তেজনা তৈরি হয়। এ সময় ইসকন ভক্ত যতন শাহা মাটিতে লুটিয়ে পড়লে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে পুলিশ জানায়, তার শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। কী কারণে তিনি মারা গেছেন তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। এদিকে এ ঘটনার পর স্থানীয় জিও মন্দির, রাম ঠাকুরের আশ্রম, বিজয়া, মঙ্গলা, রাধা মন্দিরে হামলা হয়। এ সময় বাধা দিলে বিজিবি ও র‌্যাব-পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ারগ্যাস ছোড়ে। এ সময় বেগমগঞ্জ থানার ওসি কামরুজ্জামান শিকদারসহ ৪৩ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে তিনজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম : জুমার নামাজের পর নগরীর আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন একদল মুসল্লি। এ সময় পুলিশ নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে মিছিলকারীদের আটকে দেওয়ার চেষ্টা করে। বন্ধ করে দেওয়া হয় জেএমসেন হলে যাওয়ার পথও। বিক্ষুব্ধ মুসল্লিরা পুলিশের ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করলে পুলিশ টিয়ারশেল ও ফাঁকা গুলি ছুড়ে মিছিলকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় পাঁচ পুলিশসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়। মিছিলকারীরাদের একটি অংশ পালিয়ে যাওয়ার সময় জেএমসেন হলের সামনে পূজার ব্যানার ও তোরণের ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে। মন্দিরে ঢিল ছুড়ে মারে। এ সময় অন্তত ৫০ জনকে আটক করে পুলিশ। এ ঘটনার প্রতিবাদে আজ ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত চট্টগ্রামে আধাবেলা হরতালের ডাক দিয়েছে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত হরতালের ডাক দেন। এদিকে মণ্ডপে হামলার অভিযোগে শুক্রবার প্রায় সাড়ে ৩ ঘণ্টা নগরীর ২৭৬টি পূজামণ্ডপে প্রতিমা বিসর্জন স্থগিত রাখা হয়। পরে প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ প্রতিমা বিসর্জনে নিরাপত্তা নিশ্চিতের বিষয়ে আশ্বস্ত করার পর প্রতিমা বিসর্জনের সিদ্ধান্ত নেন পূজা উদযাপন পরিষদের নেতারা।

কুমিল্লা : দুপুরে নগরীর নানুয়ার দীঘিরপাড় এলাকার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। পরে নগরীর টাউন হলে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, এটা চরমভাবে সরকারের ব্যর্থতা, এ ব্যর্থতার দায় নিয়ে সরকারকে পদত্যাগ করে জাতীয় সরকার গঠন করতে হবে। ইসলামের কোথাও অন্য ধর্মাবলম্বীদের গায়ে হাত তোলা, পূজামণ্ডপ ভাঙার অধিকার নেই। হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, আমরা সবাই ভাই ভাই। তিনি বলেন, সরকারের পায়ের নিচে এখন মাটি নেই, তাই সরকার এ ঘটনাকে পুঁজি করে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে একটা ধরপাকড় শুরু করেছে। এসব করে কোনো লাভ নেই। সরকারকে এ ব্যর্থতার দায় নিতে হবে এবং এ ধরনের ঘটনা যেন আর না ঘটে সেই গ্যারান্টি দিতে হবে। এ সময় গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জুনায়েদ সাকি বলেন, সহিংসতা সৃষ্টির লক্ষ্যেই পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। আর এ সুযোগে রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে সরকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা নাঈম জাহাঙ্গীর, জুলকার নাঈন ইমন প্রমুখ।

নগরীতে নাশকতাবিরোধী মিছিল বের করেছে মহানগর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠন। নাশকতা প্রতিরোধে সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের সমর্থকরা পুলিশের পাশাপাশি নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নিতে দেখা গেছে। এদিকে কুমিল্লায় ফেসবুক ও ইউটিউবে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গোলাম মাওলা নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। তিনি জেলার বুড়িচং উপজেলার কালিকাপুর গ্রামের মৃত তাজুল ইসলামের ছেলে।

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) : হাজীগঞ্জ উপজেলায় বুধবার রাতে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষের ঘটনায় তিনটি মামলায় ২ হাজার জনকে আসামি করা হয়েছে। হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ হারুনুর রশীদ জানান, উপজেলায় মোট ১২টি পূজামণ্ডপ ভাঙচুর হয়েছে। পুলিশ বাদী হয়ে দুটি ও মন্দির ভাঙার দায়ে মন্দির কর্তৃপক্ষ একটি মামলা করে। এ পর্যন্ত সাত জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদিকে বুধবার রাতে হাজীগঞ্জ বাজারে পুলিশ জনতার সংঘর্ষে নিহত বাবলু, আল আমিন, শামীম ও হৃদয়ের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলায় ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে। শুক্রবার কড়া নিরাপত্তায় হাজীগঞ্জ বড় মসজিদসহ শহরের সব মসজিদে জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাজারে বিজিবি ও অতিরিক্ত পুলিশ টহল দিতে দেখা গেছে।

সোনাইমুড়ী (নোয়াখালী) : সোনাইমুড়ীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুরের ঘটনায় দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে সোনাইমুড়ীর বারগাঁও ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এর হলো রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত বিসমিল্লা মিয়ার ছেলে আউয়াল ও কাশিপুর গ্রামের আব্দুল মতিনে ছেলে জুয়েল।

সিলেট : কুমিল্লার ঘটনার জের ধরে জকিগঞ্জের কালিগঞ্জে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমী আক্তার, জকিগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকির হোসেন ও জকিগঞ্জ থানার ওসি আবুল কাসেমের গাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় নিন্দা জানানো হয়েছে। বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ অ্যাসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির সভাপতি সিলেট সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক ছাতক উপজেলা চেয়ারম্যান মো. ফজলুর রহমান, সিলেট জেলা কমিটির সভাপতি বালাগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মফুর ও সাধারণ সম্পাদক জৈন্তাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. কামাল আহমদ এক যুক্ত বিবৃতিতে এ নিন্দা জানান।

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) : গোমস্তাপুরে এক মদ্যপ ব্যক্তির হামলায় গ্রামপুলিশসহ ৩ জন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে উপজেলার পার্বতীপুর ইউনিয়নের জিনারপুর আদিবাসী দুর্গামন্দির চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। ইউপি চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী খান জানান, ইউনিয়নের বড়দাদপুর গ্রামের মনিরুল ইসলামের ছেলে হেলাল মদ্যপ অবস্থায় ছুরি নিয়ে হামলা চালায়। পুলিশ তাকে আটক করেছে। গুরুতর আহত গ্রামপুলিশ মোক্তারকে রামেক হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন