অপশক্তির কবর রচনা করতে হবে: বাহাউদ্দিন নাছিম
jugantor
অপশক্তির কবর রচনা করতে হবে: বাহাউদ্দিন নাছিম

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২০ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেছেন, সাম্প্রদায়িক অপশক্তির হাত থেকে বাংলাদেশকে রক্ষা করার জন্য সব প্রগতিশীল রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সবার সম্মিলিত প্রয়াসের মধ্য দিয়েই এ অশুভ শক্তির কবর রচনা করতে হবে। এর মধ্য দিয়ে গড়তে হবে আমাদের সবার প্রত্যাশিত সম্প্রীতির বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার যুগান্তরের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক এবং ধর্মীয় সম্প্রীতির দেশ। এটা বাঙালির ঐতিহ্য। আমাদের সংস্কৃতির সঙ্গে এটা নিবিড়ভাবে সম্পর্কযুক্ত। তবে এটাও সত্য, সাম্প্রদায়িক অপশক্তি বারবার এটা বিনষ্ট করতে চেয়েছে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে। কারণ এই ভূখণ্ডে সম্প্রীতি থাকলে তাদের (সাম্প্রদায়িক অপশক্তি) উদ্দেশ্য সফল হবে না। তাই তারা বাংলাদেশের স্থিতিশীলতা নষ্ট করতে চায়। উন্নয়নকে বিনষ্ট করতে চায়। এরাই পাকিস্তানি আইএসআইয়ের নীল নকশা বাস্তবায়নকারী। এদের আবার একটা রাজনৈতিক পরিচয়ও আছে। এরা বিএনপি-জামায়াতে সক্রিয়। তিনি বলেন, এদের ওপর যেহেতু জনগণের আস্থার জায়গায় নেই, তাই সব ধর্মের মানুষের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান নষ্ট হলে, অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি হলে, এদের সুবিধা হয়। তাদের বাঁকা পথে ক্ষমতায় স্বপ্ন চওড়া হয়। এজন্য তারাই বারবার রাজনৈতিক শক্তিকে ব্যবহার করে সম্প্রীতি নষ্ট করে। তারা মনে করে-অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এ সরকারকে ব্যর্থ করতে পারলে বাঁকা পথে ক্ষমতায় যেতে পারবে। এজন্য এ সম্প্র্রীতি নষ্ট করার লক্ষ্যে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘর উপাসনালয়ে হামলা চালিয়েছে। এর পেছনে গভীর ষড়যন্ত্র আছে। আওয়ামী লীগ এ অপশক্তির বিরুদ্ধে সতর্ক রয়েছে। এই শক্তিকে উৎখাত না করা পর্যন্ত আওয়ামী লীগের সংগ্রাম চলতে থাকবে।

এ অশুভ শক্তিকে প্রতিহত করে কিভাবে সম্প্রীতির বাংলাদেশ গড়া যায়-এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, এ সাম্প্রদায়িক শক্তিকে প্রতিহত করতে হলে প্রথমে যারা ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করে বা ধর্মীয় রাজনীতির আড়ালে দানবীয় শক্তিতে আবির্ভূত হয় তাদের চিহ্নিত করতে হবে। সাম্প্রদায়িক শক্তির উত্থানে তারা যে অপপ্রচার চালায় সেটা বন্ধ করতে হবে। এদের জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন করতে হবে। তিনি বলেন, এরা আসলে বিষবৃক্ষে পরিণত হয়েছে। এই বিষবৃক্ষের হাত থেকে দেশকে বাঁচাতে হবে। দেশের উন্নয়ন অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। এজন্য এদের মূলোৎপাটন করতে হবে। কারণ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, অসাম্প্রদায়িক চেতনা, গণতান্ত্রিক চেতনা সবকিছুই এরা গিলে ফেলতে চায়। এরা দুষ্টচক্র, এরা অভিশপ্ত, এরা চক্রান্তকারী। এরা দেশবিরোধী শক্তি।

অপশক্তির কবর রচনা করতে হবে: বাহাউদ্দিন নাছিম

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২০ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেছেন, সাম্প্রদায়িক অপশক্তির হাত থেকে বাংলাদেশকে রক্ষা করার জন্য সব প্রগতিশীল রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সবার সম্মিলিত প্রয়াসের মধ্য দিয়েই এ অশুভ শক্তির কবর রচনা করতে হবে। এর মধ্য দিয়ে গড়তে হবে আমাদের সবার প্রত্যাশিত সম্প্রীতির বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার যুগান্তরের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক এবং ধর্মীয় সম্প্রীতির দেশ। এটা বাঙালির ঐতিহ্য। আমাদের সংস্কৃতির সঙ্গে এটা নিবিড়ভাবে সম্পর্কযুক্ত। তবে এটাও সত্য, সাম্প্রদায়িক অপশক্তি বারবার এটা বিনষ্ট করতে চেয়েছে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে। কারণ এই ভূখণ্ডে সম্প্রীতি থাকলে তাদের (সাম্প্রদায়িক অপশক্তি) উদ্দেশ্য সফল হবে না। তাই তারা বাংলাদেশের স্থিতিশীলতা নষ্ট করতে চায়। উন্নয়নকে বিনষ্ট করতে চায়। এরাই পাকিস্তানি আইএসআইয়ের নীল নকশা বাস্তবায়নকারী। এদের আবার একটা রাজনৈতিক পরিচয়ও আছে। এরা বিএনপি-জামায়াতে সক্রিয়। তিনি বলেন, এদের ওপর যেহেতু জনগণের আস্থার জায়গায় নেই, তাই সব ধর্মের মানুষের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান নষ্ট হলে, অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি হলে, এদের সুবিধা হয়। তাদের বাঁকা পথে ক্ষমতায় স্বপ্ন চওড়া হয়। এজন্য তারাই বারবার রাজনৈতিক শক্তিকে ব্যবহার করে সম্প্রীতি নষ্ট করে। তারা মনে করে-অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এ সরকারকে ব্যর্থ করতে পারলে বাঁকা পথে ক্ষমতায় যেতে পারবে। এজন্য এ সম্প্র্রীতি নষ্ট করার লক্ষ্যে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘর উপাসনালয়ে হামলা চালিয়েছে। এর পেছনে গভীর ষড়যন্ত্র আছে। আওয়ামী লীগ এ অপশক্তির বিরুদ্ধে সতর্ক রয়েছে। এই শক্তিকে উৎখাত না করা পর্যন্ত আওয়ামী লীগের সংগ্রাম চলতে থাকবে।

এ অশুভ শক্তিকে প্রতিহত করে কিভাবে সম্প্রীতির বাংলাদেশ গড়া যায়-এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, এ সাম্প্রদায়িক শক্তিকে প্রতিহত করতে হলে প্রথমে যারা ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করে বা ধর্মীয় রাজনীতির আড়ালে দানবীয় শক্তিতে আবির্ভূত হয় তাদের চিহ্নিত করতে হবে। সাম্প্রদায়িক শক্তির উত্থানে তারা যে অপপ্রচার চালায় সেটা বন্ধ করতে হবে। এদের জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন করতে হবে। তিনি বলেন, এরা আসলে বিষবৃক্ষে পরিণত হয়েছে। এই বিষবৃক্ষের হাত থেকে দেশকে বাঁচাতে হবে। দেশের উন্নয়ন অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। এজন্য এদের মূলোৎপাটন করতে হবে। কারণ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, অসাম্প্রদায়িক চেতনা, গণতান্ত্রিক চেতনা সবকিছুই এরা গিলে ফেলতে চায়। এরা দুষ্টচক্র, এরা অভিশপ্ত, এরা চক্রান্তকারী। এরা দেশবিরোধী শক্তি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন