চৌদ্দটি ট্রাক নিয়ে পাটুরিয়ায় ফেরিডুবি
jugantor
চৌদ্দটি ট্রাক নিয়ে পাটুরিয়ায় ফেরিডুবি

  যুগান্তর প্রতিবেদন, মানিকগঞ্জ  

২৮ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ফেরিডুবি

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়ায় ১৪টি ট্রাক ও ১৫টি মোটরসাইকেল নিয়ে রো রো ফেরি আমানত শাহ ডুবে গেছে। বুধবার সকালে দৌলতদিয়া থেকে আসার পর পাটুরিয়া ৫নং ঘাটের কাছে এ ঘটনা ঘটে। তবে এতে কোনো যাত্রী বা পরিবহণ শ্রমিক নিখোঁজের খবর পাওয়া যায়নি। ঘটনার পরপরই ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি ইউনিট উদ্ধার কাজ শুরু করে। সন্ধ্যা পর্যন্ত ডুবে যাওয়া ১০টি ট্রাক ও দুটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনায় নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয় অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) সুলতান আব্দুল হামিদকে প্রধান করে সাত সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। এছাড়া মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে চার সদস্যের একটি পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক আব্দুল লতিফ জানান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে প্রধান করে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ফেরির যাত্রী আবদুর রাজ্জাক জানান, ডুবে যাওয়া ফেরি আমানত শাহ-এ পানি উঠতে শুরু করে মাঝ নদী থেকেই। রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ফেরিটি যখন মাঝ নদীতে পৌঁছায়, তখনই সামনের দিকে ডান পাশে থাকা একটি ছিদ্র দিয়ে পানি উঠতে শুরু করে। মুহূর্তের মধ্যে ফেরির ভেতর পানি জমে যায়। এ সময় পণ্যবাহী ট্রাক, কাভার্ড ভ্যানসহ ১৭টি গাড়ি ও বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল ছিল ফেরিতে।

তিনি বলেন, ফেরিতে পানি উঠতে দেখে স্টাফসহ যানবাহনের চালক ও যাত্রীরা চিৎকার শুরু করেন। তখন ফেরির মাস্টার ইঞ্জিনের গতি বাড়িয়ে দেন। অল্প সময়ের মধ্যে ফেরিটি পাটুরিয়ার ৫ নম্বর ঘাটে পৌঁছায়। পন্টুনের সঙ্গে রশি না বাঁধতেই ফেরির ডালা নামিয়ে দেওয়া হয়। এ সময় দুটি ট্রাক ফেরি থেকে নেমে যায়। আরেকটি ট্রাক অর্ধেকটা নামার পরইপরই ফেরি কাত হয়ে যায়। এ সময় ট্রাকটি পন্টুন থেকে নদীতে পড়ে যায়।

বেনাপোল থেকে আসা আফজাল পার্সেলের কেমিক্যালবাহী কাভার্ডভ্যানের চালক সেলিম হোসেন জানান, তার গাড়িটি ফেরি থেকে আনলোড করার মুহূর্তে ফেরিটি ডুবে যায়। গাড়ির দুটি চাকা ছিল পন্টুনে আর দুটি ছিল ফেরিতে। ওই সময় ফেরি ডুবতে থাকলে তার ট্রাকটিও নদীতে পড়ে যায়। কোনোমতে রক্ষা পান তিনি। ট্রাকচালক সুশান্ত বলেন, তার গাড়িটিও ফেরির সঙ্গে ডুবে গেছে। বেনাপোল থেকে নিউজপ্রিন্ট নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার কথা ছিল তার।

আরেক ট্রাকচালক আমির হোসেন জানান, তিনি সারা রাত গাড়ি চালিয়ে ক্লান্ত ছিলেন। গাড়ি ফেরিতে তোলার পরই তিনি ঘুমিয়ে পড়েন। তার গাড়ি যখন পদ্মায় ডুবে যায় তখনই আচমকা জেগে উঠেন তিনি। পরে নদীতে থাকা একটি ট্রলারের সহায়তায় তীরে ওঠেন।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহণ করপোরেশন আরিচা শাখার উপমহাব্যবস্থাপক মো. জিল্লুর রহমান জানান, দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ১৭টি ট্রাক ও ১০-১৫টি মোটরসাইকেল নিয়ে পাটুরিয়া ঘাটের ৫নং ঘাটে নোঙর করে ফেরিটি। তিনটি যানবাহন নামার পরপরই ফেরিটি ডুবে যায়।

দৌলতদিয়া থেকে আসা উদ্ধারকারী জাহাজ হামজার কমান্ডার এসএম ছানোয়ার হোসেন বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ফেরির পাটাতন ফেটে পানি ওঠায় এটি ডুবে গেছে। সন্ধ্যা পর্যন্ত ১০টি ট্রাক ও দুটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ঢাকা অঞ্চলের উপ-পরিচালক দিনমনি শর্মা জানান, ফায়ার সার্ভিসের সাতটি টিম কাজ করছে। এছাড়া কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনীর সদস্যরাও উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছেন।

দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন সাবেক নৌপরিবহণমন্ত্রী শাজাহান খান, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান সৈয়দ তাজুল ইসলাম, বিআইডব্লিউটিএর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নুরুল আলম, পরিচালক (বাণিজ্য) আশিকুজ্জামান, মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসক আব্দুল লতিফ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান, নৌপুলিশের ফরিদপুর জোনের পুলিশ সুপার জসিম উদদীন, বিআইডব্লিউটিসির ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের সভাপতি ও জাতীয় শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি মহসিন ভূঁইয়া প্রমুখ।

উদ্ধারকারী জাহাজ হামজার সক্ষমতা : ডুবে যাওয়া ফেরিটি উদ্ধারে বিআইডব্লিউটিএর উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা উদ্ধার তৎপরতায় নামবে বলে জানা গেছে। তবে ফেরি আমানত শাহর যে ওজন তাতে হামজা কোনো কূলকিনারা পাবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। জানা গেছে, আমানত শাহর ওজন ১ হাজার টন। সেক্ষেত্রে উদ্ধারকারী জাহাজ হামজার উদ্ধারে সক্ষমতা মাত্র ৬০ টন। এদিকে আরেকটি উদ্ধারকারী জাহাজ রয়েছে প্রত্যয়- যার উদ্ধারের সক্ষমতা ২৫০ টন।

৪২ বছরের পুরোনো ফেরি : ডুবে যাওয়া ফেরি আমানত শাহ ১৯৭৯ সালে আরিচা ফেরি সেক্টরে যোগ হয়। ফেরির মাস্টার শরিফুল ইসলাম লিটন জানান, ৪ মাস আগে ফেরিটি নারায়ণগঞ্জ থেকে ভারি মেরামত শেষে পাটুরিয়া সার্ভিসে আসে। তবে স¤‹্রতি ফেরিটির তলদেশে একটি ফুটো হয়। সেটি মেরামত করার কথা ছিল। সেই ফুটো দিয়েই ফেরির ভেতরে পানি প্রবেশ করে বলে দাবি ট্রাক চালকদের। বিআইডব্লিউটিসির এজিএম (মেরিন) আব্দুস সাত্তার জানান, ফেরিটি দীর্ঘদিন ধরে ফিটনেসবিহীনভাবে চলছিল। এ বিষয়ে নবায়নের জন্য আবেদন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

চৌদ্দটি ট্রাক নিয়ে পাটুরিয়ায় ফেরিডুবি

 যুগান্তর প্রতিবেদন, মানিকগঞ্জ 
২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
ফেরিডুবি
মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাটে বুধবার পদ্মা নদীতে কাত হয়ে যাওয়া শাহ আমানত ফেরি উদ্ধারে কর্মীরা -যুগান্তর

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়ায় ১৪টি ট্রাক ও ১৫টি মোটরসাইকেল নিয়ে রো রো ফেরি আমানত শাহ ডুবে গেছে। বুধবার সকালে দৌলতদিয়া থেকে আসার পর পাটুরিয়া ৫নং ঘাটের কাছে এ ঘটনা ঘটে। তবে এতে কোনো যাত্রী বা পরিবহণ শ্রমিক নিখোঁজের খবর পাওয়া যায়নি। ঘটনার পরপরই ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি ইউনিট উদ্ধার কাজ শুরু করে। সন্ধ্যা পর্যন্ত ডুবে যাওয়া ১০টি ট্রাক ও দুটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনায় নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয় অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) সুলতান আব্দুল হামিদকে প্রধান করে সাত সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। এছাড়া মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে চার সদস্যের একটি পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক আব্দুল লতিফ জানান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে প্রধান করে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ফেরির যাত্রী আবদুর রাজ্জাক জানান, ডুবে যাওয়া ফেরি আমানত শাহ-এ পানি উঠতে শুরু করে মাঝ নদী থেকেই। রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ফেরিটি যখন মাঝ নদীতে পৌঁছায়, তখনই সামনের দিকে ডান পাশে থাকা একটি ছিদ্র দিয়ে পানি উঠতে শুরু করে। মুহূর্তের মধ্যে ফেরির ভেতর পানি জমে যায়। এ সময় পণ্যবাহী ট্রাক, কাভার্ড ভ্যানসহ ১৭টি গাড়ি ও বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল ছিল ফেরিতে।

তিনি বলেন, ফেরিতে পানি উঠতে দেখে স্টাফসহ যানবাহনের চালক ও যাত্রীরা চিৎকার শুরু করেন। তখন ফেরির মাস্টার ইঞ্জিনের গতি বাড়িয়ে দেন। অল্প সময়ের মধ্যে ফেরিটি পাটুরিয়ার ৫ নম্বর ঘাটে পৌঁছায়। পন্টুনের সঙ্গে রশি না বাঁধতেই ফেরির ডালা নামিয়ে দেওয়া হয়। এ সময় দুটি ট্রাক ফেরি থেকে নেমে যায়। আরেকটি ট্রাক অর্ধেকটা নামার পরইপরই ফেরি কাত হয়ে যায়। এ সময় ট্রাকটি পন্টুন থেকে নদীতে পড়ে যায়।

বেনাপোল থেকে আসা আফজাল পার্সেলের কেমিক্যালবাহী কাভার্ডভ্যানের চালক সেলিম হোসেন জানান, তার গাড়িটি ফেরি থেকে আনলোড করার মুহূর্তে ফেরিটি ডুবে যায়। গাড়ির দুটি চাকা ছিল পন্টুনে আর দুটি ছিল ফেরিতে। ওই সময় ফেরি ডুবতে থাকলে তার ট্রাকটিও নদীতে পড়ে যায়। কোনোমতে রক্ষা পান তিনি। ট্রাকচালক সুশান্ত বলেন, তার গাড়িটিও ফেরির সঙ্গে ডুবে গেছে। বেনাপোল থেকে নিউজপ্রিন্ট নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার কথা ছিল তার।

আরেক ট্রাকচালক আমির হোসেন জানান, তিনি সারা রাত গাড়ি চালিয়ে ক্লান্ত ছিলেন। গাড়ি ফেরিতে তোলার পরই তিনি ঘুমিয়ে পড়েন। তার গাড়ি যখন পদ্মায় ডুবে যায় তখনই আচমকা জেগে উঠেন তিনি। পরে নদীতে থাকা একটি ট্রলারের সহায়তায় তীরে ওঠেন।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহণ করপোরেশন আরিচা শাখার উপমহাব্যবস্থাপক মো. জিল্লুর রহমান জানান, দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ১৭টি ট্রাক ও ১০-১৫টি মোটরসাইকেল নিয়ে পাটুরিয়া ঘাটের ৫নং ঘাটে নোঙর করে ফেরিটি। তিনটি যানবাহন নামার পরপরই ফেরিটি ডুবে যায়।

দৌলতদিয়া থেকে আসা উদ্ধারকারী জাহাজ হামজার কমান্ডার এসএম ছানোয়ার হোসেন বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ফেরির পাটাতন ফেটে পানি ওঠায় এটি ডুবে গেছে। সন্ধ্যা পর্যন্ত ১০টি ট্রাক ও দুটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ঢাকা অঞ্চলের উপ-পরিচালক দিনমনি শর্মা জানান, ফায়ার সার্ভিসের সাতটি টিম কাজ করছে। এছাড়া কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনীর সদস্যরাও উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছেন।

দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন সাবেক নৌপরিবহণমন্ত্রী শাজাহান খান, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান সৈয়দ তাজুল ইসলাম, বিআইডব্লিউটিএর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নুরুল আলম, পরিচালক (বাণিজ্য) আশিকুজ্জামান, মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসক আব্দুল লতিফ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান, নৌপুলিশের ফরিদপুর জোনের পুলিশ সুপার জসিম উদদীন, বিআইডব্লিউটিসির ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের সভাপতি ও জাতীয় শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি মহসিন ভূঁইয়া প্রমুখ।

উদ্ধারকারী জাহাজ হামজার সক্ষমতা : ডুবে যাওয়া ফেরিটি উদ্ধারে বিআইডব্লিউটিএর উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা উদ্ধার তৎপরতায় নামবে বলে জানা গেছে। তবে ফেরি আমানত শাহর যে ওজন তাতে হামজা কোনো কূলকিনারা পাবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। জানা গেছে, আমানত শাহর ওজন ১ হাজার টন। সেক্ষেত্রে উদ্ধারকারী জাহাজ হামজার উদ্ধারে সক্ষমতা মাত্র ৬০ টন। এদিকে আরেকটি উদ্ধারকারী জাহাজ রয়েছে প্রত্যয়- যার উদ্ধারের সক্ষমতা ২৫০ টন।

৪২ বছরের পুরোনো ফেরি : ডুবে যাওয়া ফেরি আমানত শাহ ১৯৭৯ সালে আরিচা ফেরি সেক্টরে যোগ হয়। ফেরির মাস্টার শরিফুল ইসলাম লিটন জানান, ৪ মাস আগে ফেরিটি নারায়ণগঞ্জ থেকে ভারি মেরামত শেষে পাটুরিয়া সার্ভিসে আসে। তবে স¤‹্রতি ফেরিটির তলদেশে একটি ফুটো হয়। সেটি মেরামত করার কথা ছিল। সেই ফুটো দিয়েই ফেরির ভেতরে পানি প্রবেশ করে বলে দাবি ট্রাক চালকদের। বিআইডব্লিউটিসির এজিএম (মেরিন) আব্দুস সাত্তার জানান, ফেরিটি দীর্ঘদিন ধরে ফিটনেসবিহীনভাবে চলছিল। এ বিষয়ে নবায়নের জন্য আবেদন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন