কাপ্তাইয়ে সহিংসতায় ইউপি সদস্য নিহত
jugantor
দ্বিতীয় ধাপে ইউপি নির্বাচন
কাপ্তাইয়ে সহিংসতায় ইউপি সদস্য নিহত
প্রচারের প্রথম দিনে ব্যাপক হামলা-ভাঙচুর * মীরসরাইয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীর ভাইকে কুপিয়ে জখম * ধামরাইয়ে সংঘর্ষে শতাধিক আহত

  যুগান্তর ডেস্ক   

২৮ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে নির্বাচনি সহিংসতায় সজিবুর রহমান নামে এক ইউপি (ইউনিয়ন পরিষদ) সদস্য নিহত হয়েছেন। এছাড়া প্রচারণার প্রথম দিনে দেশের বিভিন্ন স্থানে হামলা, নির্বাচনি অফিস ভাঙচুর ও সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। কিছু ইউপিতে প্রার্থীদের হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। তবে সহিংসতার ঘটনা ঘটলেও নির্বাচনি প্রচারণা জমে উঠতে শুরু করেছে। দ্বিতীয় ধাপে আগামী ১১ নভেম্বর ৮৪৬ ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এসব ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৩ হাজার ৩১০ জন, সংরক্ষিত সদস্য পদে ৯ হাজার ১৬১ জন এবং সদস্য পদে ২৮ হাজার ৭৪৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এদিন প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। চট্টগ্রামের মীরসরাইয়ের ১২নং খৈয়াছরা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীর ভাইকে কুপিয়ে জখম ও নির্বাচনি কার্যালয় ভাঙচুর করা হয়েছে। ঢাকার ধামরাইয়ে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়ে প্রভাষক আওলাদ হোসেন নামের এক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নিখোঁজ হয়েছেন। এ উপজেলায় সংঘর্ষে শতাধিক আহত হয়েছেন। ব্যুরো, স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

রাঙামাটি : কাপ্তাই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্রে করে মঙ্গলবার রাতে কাপ্তাই নতুনবাজার এলাকায় আওয়ামী লীগের দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এতে মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে কাপ্তাই ইউপির ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান সদস্য সজিব মারা যান। সজিব কাপ্তাই ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবদুল লতিফের সমর্থক ছিলেন। সংঘর্ষে আরও তিনজন গুরুতর আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ১ জনকে আটক করেছে পুলিশ। কাপ্তাই ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল লতিফ এবারও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন। তার বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন, দল থেকে বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন পাটোয়ারি বাদল। এ দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকরা মঙ্গলবার রাতে কাপ্তাই নতুনবাজারের একটি চায়ের দোকানে মুখোমুখি হলে উভয়ের মধ্যে তুমুল বাগ্বিতণ্ডার একপর্যায়ে হাতাহাতি থেকে সংঘর্ষে রূপ নেয়। সংঘর্ষে ইউপি সদস্য সজিবসহ গুরুতর আহত চারজনকে কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে তার আগেই সজিবের মৃত্যু হয় বলে জানান কর্তব্যরত চিকিৎসক। কাপ্তাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. নাসির উদ্দিন বলেন, কাপ্তাই নতুনবাজারে চায়ের দোকানে মুখোমুখি হলে দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে।

মীরসরাই (চট্টগ্রাম) : মীরসরাই উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিশেষ করে উপজেলার ৯নং মীরসরাই ও ১২নং খৈয়াছরার বিদ্রোহী প্রার্থীদের ওপর মঙ্গলবার রাতে হামলার ঘটনা ঘটে।

উপজেলার ১২নং খৈয়াছরা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান জাহেদ ইকবাল চৌধুরী বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ায় মঙ্গলবার রাত ১০টায় তার ছোট ভাই আশেক ইকবাল চৌধুরী বাড়ি যাওয়ার পথে কতিপয় যুবক খৈয়াছরা স্কুলের পাশে রিকশা থামিয়ে লাঠিসোটা ও ছুরি দিয়ে জখম করে। তার ভগ্নিপতি মনজুর আলম বলেন, একপর্যায়ে আশপাশের লোকজন উদ্ধার করলে তাকে রাতেই প্রথমে বাড়িতে ও পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি ঘটলে রাতেই তাকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনার জন্য জাহেদ ইকবাল সরাসরি প্রতিপক্ষ নৌকার প্রার্থী মাহফুজুল হক জুনুকে দায়ী করেন। মাহফুজুল হক জুনু বলেন, এমন একটি হামলার কথা আমিও শুনেছি। তবে এ বিষয়ে আমাদের দলের কোনো নেতাকর্মী জড়িত নন। এদিকে আবার একই রাতে ৯নং মীরসরাই সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থীর বিপরীতে বিদ্রোহী প্রার্থী সাইফুল্লাহ দিদারের অফিস ভাঙচুর ও হামলার ঘটনা ঘটেছে।

যশোর : যশোরের চৌগাছার নারায়ণপুর ইউপির আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী ও তার ভাইকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্বতন্ত্র প্রার্থী (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী) আবু হেনা মোস্তফা কামাল বিদ্যুৎ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। আবু হেনা মোস্তফা কামাল বিদ্যুৎ লিখিত অভিযোগে বলেন, মঙ্গলবার ইউনিয়নের নারায়ণপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির নির্বাচন উপলক্ষ্যে প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্যদের বেলা ১১টায় বিদ্যালয়ে ডাকেন। আমি ও আমার ছোট ভাই তুহিন হাবিব সেখানে যাই। সেখানে গিয়ে সালাম বিনিময়ের ৫ মিনিট পরই পূর্বপরিকল্পিতভাবে ইউনিয়নের বাদেখানপুর গ্রামের রুবেল হোসেন (২৮), আমার ছোট ভাইকে গালাগাল করতে করতে টেনে-হিঁচড়ে কক্ষের বাইরে নেয়। সেখানে নারায়ণপুর গ্রামের মিঠু রহমানের (৪৫) নির্দেশে পেটভরা গ্রামের আমিনুর (৪৪) ও হাকিমপুর গ্রামের জব্বার আলীসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজন আমাকে নির্বাচন না করে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের হুমকি দেয়।

রংপুর ও পীরগঞ্জ : রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অর্থের বিনিময়ে অযোগ্য ব্যক্তিকে মনোনয়ন দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিত প্রার্থীরা। তাদের দাবি, প্রার্থী পরিবর্তন করা না হলে নির্বাচনে নৌকার ভরাডুবিসহ দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে। রংপুর প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে বুধবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এসব অভিযোগ করেন কাউনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডা. মাহফুজার রহমান। এ সময় প্রার্থী পরিবর্তনের দাবি জানিয়ে মনোনয়নবঞ্চিত কাউনিয়া আওয়ামী লীগের সদস্য আতাউর রহমান ও উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদিকা সঙ্গীতাও একই অভিযোগ করেন। এদিকে পীরগঞ্জের ১০টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, মেম্বার ও সংরক্ষিত মহিলা মেম্বারদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের রিটার্নিং অফিসাররা বুধবার ওই প্রতীক বরাদ্দ দেন।

ফরিদপুর : ফরিদপুরের নগরকান্দার তালমা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন সামনে রেখে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মাঝে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এর জের ধরে বুধবার বিকালে আওয়ামী লীগের সমর্থিত প্রার্থীর সমর্থকরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনি অফিসে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়েছে। এ ঘটনায় রইস ও আক্কাস নামের দুই যুবক আহত হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তালমা ইউনিয়নে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

হবিগঞ্জ : হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ১৬ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মাঝে প্রতিটি ইউনিয়নেই নৌকার গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছেন বিদ্রোহী প্রার্থীরা। অপরদিকে দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে নির্বাচনে লড়ছেন বিএনপিরও ২ প্রার্থী। আবার একটি ইউনিয়নে রয়েছেন জামায়াতপন্থি একজন প্রার্থী।

বরগুনা : সদর উপজেলায় এম বালিয়াতলী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনি প্রতীক বরাদ্দ করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। বুধবার সকাল ১০টায় আনুষ্ঠানিকভাবে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. নাজমুল হাচান প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছেন। নাজমুল ইসলাম নাসির (নৌকা) নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থী এমএ বারী বাদল (আনারস) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. গোলাম সরোয়ার শাহীন (ঘোড়া)।

মাদারীপুর : মাদারীপুরের কালকিনি ও ডাসার উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ২৯ জন প্রার্থী তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন। এতে ১১ নভেম্বর ১২ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে লড়বেন ৪৪ প্রার্থী।

শেরপুর : শেরপুর সদর উপজেলার ১৪ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্য ও সাধারণ সদস্য পদের প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

জয়পুরহাট : জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার রুকিন্দীপুর ইউনিয়ন পরিষদের দ্বিতীয় দফা ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী (বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান) আহসান কবির (অ্যাপ্লব) ও তিলকপুর ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য (মেম্বার) নুর মোহাম্মদ মণ্ডল প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

নেত্রকোনা : নেত্রকোনার সদর উপজেলার দক্ষিণ বিশিউড়া ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী প্রচারে গেলে তাকে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠে প্রতিপক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে। এ সময় তার ওপর হামলারও অভিযোগ উঠে। বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমার মাথায় আঘাত করা হলে দুপক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পালটাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। তবে নৌকার প্রার্থীর সমর্থকদের দাবি, আওয়ামী লীগদলীয় কার্যালয়ে হামলা করেন বিদ্রোহী প্রার্থী মো. আবুল কালাম আজাদের কর্মী-সমর্থকরা। ঘটনার পর আওয়ামী লীগের প্রার্থীর সমর্থক ও বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পালটাধাওয়া হয়। এতে উভয়পক্ষের প্রায় ১৫ জন আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ

ঘটনাস্থলে পৌঁছে। এদিকে, নেত্রকোনার তিনটি উপজেলায় ১২টি ইউনিয়নে বিএনপির অন্তত ১৫ জন চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। এসব প্রার্থী ইউনিয়ন ও উপজেলা বিএনপির-অঙ্গ সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ পদে রয়েছেন। এতে জেলা পর্যায়ের নেতাদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের তিন উপজেলার ২০ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ১২ বিদ্রোহী প্রার্থী ও বিএনপির ৬ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে অংশ নিয়েছেন।

নাটোর : নাটোর সদরের সাতটি ইউনিয়নের ছয়টিতেই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন বিএনপি নেতারা। একটিতে আওয়ামী লীগের দুজন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন।

দশমিনা ও দক্ষিণ (পটুয়াখালী) : পটুয়াখালীর দশমিনায় ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পুলিশের ধাওয়া খেলে লাঠিসোটা ফেলে পালিয়েছে নৌকার সমর্থকরা। উপজেলার বেতাগী-সানকিপুর ইউনিয়নের দশমিনা-পটুয়াখালী সড়কের বড়গোপালদী সংলগ্ন লিটু জোমাদ্দারের বাসার সামনে বুধবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে।

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে হুমকিস্বরূপ স্লোগান দেওয়াকে কেন্দ্র করে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকদের ওপর আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকরা হামলা চালিয়ে ককটেল বিস্ফোরণ ও ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে এলাকায় আতঙ্কের সৃষ্টি করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলায় আওয়ামী লীগ প্রার্থীর অন্তত ১০ সমর্থক আহত হয়েছে বলে তারা দাবি করেছেন। ঘটনাস্থল থেকে ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার রাত ৭টার দিকে উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের নাওড়া এলাকায় এসব ঘটনা ঘটে। সন্ধ্যায় নৌকা প্রতীকের পক্ষে জোৎস্নাআরা বেগম ও মোশারফ হোসেনসহ দলীয় সমর্থকরা নাওড়া এলাকায় আনন্দ মিছিল বের করেন। এ সময় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী পালটা মিছিল বের করেন। একপর্যায়ে নৌকা প্রতীকের সমর্থকদের ওপর অতর্কিত হামলা ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। এ সময় বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ও ফাঁকা গুলি বর্ষণ ঘটিয়ে আতঙ্কের সৃষ্টি করে। হামলায় ওয়াসিম, আমির হামজা, ফজলুল হক, দুলাল, ডাগুসহ অন্তত ১০ জন আহত হন। খবর পেয়ে থানা পুলিশ একটি ককটেল উদ্ধার করে। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ বিষয়ে আনারস প্রতীকের প্রার্থী মিজানুর রহমান মিজানের সঙ্গে তার সেলফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।
রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এএফএম সায়েদের সঙ্গে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। উপজেলা নির্বাচন অফিসার মাহাবুবুর রহমান বলেন, এ ধরনের ঘটনার সংবাদ আমরা পাইনি। তবে এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ব্যবস্থা নিবে। তারপরও আমরা খবর নিচ্ছি। কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে ৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ধামরাই (ঢাকা) : ঢাকার ধামরাইয়ে প্রতীক বরাদ্দের পর ১৫টি ইউনিয়নে ব্যাপক হামলা, ভাঙচুর, মারধর ও গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়ে প্রভাষক আওলাদ হোসেন নামে এক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নিখোঁজ হয়েছেন। এ সন্ত্রাসী তাণ্ডবে শতাধিক নেতাকর্মী ও সমর্থক আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ১১ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। নিখোঁজ প্রার্থী প্রভাষক আওলাদ হোসেনের চাচাতো ভাই মো. আব্দুল আহাদ বাবু বলেন, আমার ভাইয়ের ব্যাপক জনপ্রিয়তায় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আজাহার আলী ভয় পেয়েছেন। তাই আমার ভাই ও তার নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করেছে তার নেতাকর্মীরা। আমার ভাইকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তার মুঠোফোনও বন্ধ রয়েছে। হামলায় আহদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এছাড়া লক্ষ্মীপুরের রামগতি, ফরিদপুরের নগরকান্দা, মানিকগঞ্জের সিংগাইর, ঢাকার কেরানীগঞ্জ, ময়মনসিংহের ধোবাউড়া, পটুয়াখালীর দশমিনা ও দক্ষিণ, ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া, বরিশালের আগৈলঝাড়া, নাটোরের বড়াইগ্রাম, টাঙ্গাইলের মধুপুর, শরীয়তপুর ও ফেনী প্রতিনিধি এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন পাঠিয়েছেন।

দ্বিতীয় ধাপে ইউপি নির্বাচন

কাপ্তাইয়ে সহিংসতায় ইউপি সদস্য নিহত

প্রচারের প্রথম দিনে ব্যাপক হামলা-ভাঙচুর * মীরসরাইয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীর ভাইকে কুপিয়ে জখম * ধামরাইয়ে সংঘর্ষে শতাধিক আহত
 যুগান্তর ডেস্ক  
২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে নির্বাচনি সহিংসতায় সজিবুর রহমান নামে এক ইউপি (ইউনিয়ন পরিষদ) সদস্য নিহত হয়েছেন। এছাড়া প্রচারণার প্রথম দিনে দেশের বিভিন্ন স্থানে হামলা, নির্বাচনি অফিস ভাঙচুর ও সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। কিছু ইউপিতে প্রার্থীদের হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। তবে সহিংসতার ঘটনা ঘটলেও নির্বাচনি প্রচারণা জমে উঠতে শুরু করেছে। দ্বিতীয় ধাপে আগামী ১১ নভেম্বর ৮৪৬ ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এসব ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৩ হাজার ৩১০ জন, সংরক্ষিত সদস্য পদে ৯ হাজার ১৬১ জন এবং সদস্য পদে ২৮ হাজার ৭৪৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এদিন প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। চট্টগ্রামের মীরসরাইয়ের ১২নং খৈয়াছরা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীর ভাইকে কুপিয়ে জখম ও নির্বাচনি কার্যালয় ভাঙচুর করা হয়েছে। ঢাকার ধামরাইয়ে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়ে প্রভাষক আওলাদ হোসেন নামের এক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নিখোঁজ হয়েছেন। এ উপজেলায় সংঘর্ষে শতাধিক আহত হয়েছেন। ব্যুরো, স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

রাঙামাটি : কাপ্তাই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্রে করে মঙ্গলবার রাতে কাপ্তাই নতুনবাজার এলাকায় আওয়ামী লীগের দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এতে মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে কাপ্তাই ইউপির ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান সদস্য সজিব মারা যান। সজিব কাপ্তাই ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবদুল লতিফের সমর্থক ছিলেন। সংঘর্ষে আরও তিনজন গুরুতর আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ১ জনকে আটক করেছে পুলিশ। কাপ্তাই ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল লতিফ এবারও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন। তার বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন, দল থেকে বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন পাটোয়ারি বাদল। এ দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকরা মঙ্গলবার রাতে কাপ্তাই নতুনবাজারের একটি চায়ের দোকানে মুখোমুখি হলে উভয়ের মধ্যে তুমুল বাগ্বিতণ্ডার একপর্যায়ে হাতাহাতি থেকে সংঘর্ষে রূপ নেয়। সংঘর্ষে ইউপি সদস্য সজিবসহ গুরুতর আহত চারজনকে কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে তার আগেই সজিবের মৃত্যু হয় বলে জানান কর্তব্যরত চিকিৎসক। কাপ্তাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. নাসির উদ্দিন বলেন, কাপ্তাই নতুনবাজারে চায়ের দোকানে মুখোমুখি হলে দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে। 

মীরসরাই (চট্টগ্রাম) : মীরসরাই উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিশেষ করে উপজেলার ৯নং মীরসরাই ও ১২নং খৈয়াছরার বিদ্রোহী প্রার্থীদের ওপর মঙ্গলবার রাতে হামলার ঘটনা ঘটে।

উপজেলার ১২নং খৈয়াছরা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান জাহেদ ইকবাল চৌধুরী বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ায় মঙ্গলবার রাত ১০টায় তার ছোট ভাই আশেক ইকবাল চৌধুরী বাড়ি যাওয়ার পথে কতিপয় যুবক খৈয়াছরা স্কুলের পাশে রিকশা থামিয়ে লাঠিসোটা ও ছুরি দিয়ে জখম করে। তার ভগ্নিপতি মনজুর আলম বলেন, একপর্যায়ে আশপাশের লোকজন উদ্ধার করলে তাকে রাতেই প্রথমে বাড়িতে ও পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি ঘটলে রাতেই তাকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনার জন্য জাহেদ ইকবাল সরাসরি প্রতিপক্ষ নৌকার প্রার্থী মাহফুজুল হক জুনুকে দায়ী করেন। মাহফুজুল হক জুনু বলেন, এমন একটি হামলার কথা আমিও শুনেছি। তবে এ বিষয়ে আমাদের দলের কোনো নেতাকর্মী জড়িত নন। এদিকে আবার একই রাতে ৯নং মীরসরাই সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থীর বিপরীতে বিদ্রোহী প্রার্থী সাইফুল্লাহ দিদারের অফিস ভাঙচুর ও হামলার ঘটনা ঘটেছে। 

যশোর : যশোরের চৌগাছার নারায়ণপুর ইউপির আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী ও তার ভাইকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্বতন্ত্র প্রার্থী (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী) আবু হেনা মোস্তফা কামাল বিদ্যুৎ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। আবু হেনা মোস্তফা কামাল বিদ্যুৎ লিখিত অভিযোগে বলেন, মঙ্গলবার ইউনিয়নের নারায়ণপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির নির্বাচন উপলক্ষ্যে প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্যদের বেলা ১১টায় বিদ্যালয়ে ডাকেন। আমি ও আমার ছোট ভাই তুহিন হাবিব সেখানে যাই। সেখানে গিয়ে সালাম বিনিময়ের ৫ মিনিট পরই পূর্বপরিকল্পিতভাবে ইউনিয়নের বাদেখানপুর গ্রামের রুবেল হোসেন (২৮), আমার ছোট ভাইকে গালাগাল করতে করতে টেনে-হিঁচড়ে কক্ষের বাইরে নেয়। সেখানে নারায়ণপুর গ্রামের মিঠু রহমানের (৪৫) নির্দেশে পেটভরা গ্রামের আমিনুর (৪৪) ও হাকিমপুর গ্রামের জব্বার আলীসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজন আমাকে নির্বাচন না করে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের হুমকি দেয়। 

রংপুর ও পীরগঞ্জ : রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অর্থের বিনিময়ে অযোগ্য ব্যক্তিকে মনোনয়ন দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিত প্রার্থীরা। তাদের দাবি, প্রার্থী পরিবর্তন করা না হলে নির্বাচনে নৌকার ভরাডুবিসহ দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে। রংপুর প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে বুধবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এসব অভিযোগ করেন কাউনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডা. মাহফুজার রহমান। এ সময় প্রার্থী পরিবর্তনের দাবি জানিয়ে মনোনয়নবঞ্চিত কাউনিয়া আওয়ামী লীগের সদস্য আতাউর রহমান ও উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদিকা সঙ্গীতাও একই অভিযোগ করেন। এদিকে পীরগঞ্জের ১০টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, মেম্বার ও সংরক্ষিত মহিলা মেম্বারদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের রিটার্নিং অফিসাররা বুধবার ওই প্রতীক বরাদ্দ দেন।

ফরিদপুর : ফরিদপুরের নগরকান্দার তালমা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন সামনে রেখে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মাঝে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এর জের ধরে বুধবার বিকালে আওয়ামী লীগের সমর্থিত প্রার্থীর সমর্থকরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনি অফিসে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়েছে। এ ঘটনায় রইস ও আক্কাস নামের দুই যুবক আহত হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তালমা ইউনিয়নে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

হবিগঞ্জ : হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ১৬ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মাঝে প্রতিটি ইউনিয়নেই নৌকার গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছেন বিদ্রোহী প্রার্থীরা। অপরদিকে দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে নির্বাচনে লড়ছেন বিএনপিরও ২ প্রার্থী। আবার একটি ইউনিয়নে রয়েছেন জামায়াতপন্থি একজন প্রার্থী।

বরগুনা : সদর উপজেলায় এম বালিয়াতলী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনি প্রতীক বরাদ্দ করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। বুধবার সকাল ১০টায় আনুষ্ঠানিকভাবে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. নাজমুল হাচান প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছেন। নাজমুল ইসলাম নাসির (নৌকা) নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থী এমএ বারী বাদল (আনারস) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. গোলাম সরোয়ার শাহীন (ঘোড়া)। 

মাদারীপুর : মাদারীপুরের কালকিনি ও ডাসার উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ২৯ জন প্রার্থী তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন। এতে ১১ নভেম্বর ১২ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে লড়বেন ৪৪ প্রার্থী। 

শেরপুর : শেরপুর সদর উপজেলার ১৪ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্য ও সাধারণ সদস্য পদের প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। 

জয়পুরহাট : জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার রুকিন্দীপুর ইউনিয়ন পরিষদের দ্বিতীয় দফা ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী (বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান) আহসান কবির (অ্যাপ্লব) ও তিলকপুর ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য (মেম্বার) নুর মোহাম্মদ মণ্ডল প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। 

নেত্রকোনা : নেত্রকোনার সদর উপজেলার দক্ষিণ বিশিউড়া ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী প্রচারে গেলে তাকে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠে প্রতিপক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে। এ সময় তার ওপর হামলারও অভিযোগ উঠে। বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমার মাথায় আঘাত করা হলে দুপক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পালটাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। তবে নৌকার প্রার্থীর সমর্থকদের দাবি, আওয়ামী লীগদলীয় কার্যালয়ে হামলা করেন বিদ্রোহী প্রার্থী মো. আবুল কালাম আজাদের কর্মী-সমর্থকরা। ঘটনার পর আওয়ামী লীগের প্রার্থীর সমর্থক ও বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পালটাধাওয়া হয়। এতে উভয়পক্ষের প্রায় ১৫ জন আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ

ঘটনাস্থলে পৌঁছে। এদিকে, নেত্রকোনার তিনটি উপজেলায় ১২টি ইউনিয়নে বিএনপির অন্তত ১৫ জন চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। এসব প্রার্থী ইউনিয়ন ও উপজেলা বিএনপির-অঙ্গ সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ পদে রয়েছেন। এতে জেলা পর্যায়ের নেতাদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। 

টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের তিন উপজেলার ২০ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ১২ বিদ্রোহী প্রার্থী ও বিএনপির ৬ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে অংশ নিয়েছেন।

নাটোর : নাটোর সদরের সাতটি ইউনিয়নের ছয়টিতেই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন বিএনপি নেতারা। একটিতে আওয়ামী লীগের দুজন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। 

দশমিনা ও দক্ষিণ (পটুয়াখালী) : পটুয়াখালীর দশমিনায় ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পুলিশের ধাওয়া খেলে লাঠিসোটা ফেলে পালিয়েছে নৌকার সমর্থকরা। উপজেলার বেতাগী-সানকিপুর ইউনিয়নের দশমিনা-পটুয়াখালী সড়কের বড়গোপালদী সংলগ্ন লিটু জোমাদ্দারের বাসার সামনে বুধবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে। 

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে হুমকিস্বরূপ স্লোগান দেওয়াকে কেন্দ্র করে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকদের ওপর আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকরা হামলা চালিয়ে ককটেল বিস্ফোরণ ও ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে এলাকায় আতঙ্কের সৃষ্টি করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলায় আওয়ামী লীগ প্রার্থীর অন্তত ১০ সমর্থক আহত হয়েছে বলে তারা দাবি করেছেন। ঘটনাস্থল থেকে ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার রাত ৭টার দিকে উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের নাওড়া এলাকায় এসব ঘটনা ঘটে। সন্ধ্যায় নৌকা প্রতীকের পক্ষে জোৎস্নাআরা বেগম ও মোশারফ হোসেনসহ দলীয় সমর্থকরা নাওড়া এলাকায় আনন্দ মিছিল বের করেন। এ সময় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী পালটা মিছিল বের করেন। একপর্যায়ে নৌকা প্রতীকের সমর্থকদের ওপর অতর্কিত হামলা ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। এ সময় বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ও ফাঁকা গুলি বর্ষণ ঘটিয়ে আতঙ্কের সৃষ্টি করে। হামলায় ওয়াসিম, আমির হামজা, ফজলুল হক, দুলাল, ডাগুসহ অন্তত ১০ জন আহত হন। খবর পেয়ে থানা পুলিশ একটি ককটেল উদ্ধার করে। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ বিষয়ে আনারস প্রতীকের প্রার্থী মিজানুর রহমান মিজানের সঙ্গে তার সেলফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।
রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এএফএম সায়েদের সঙ্গে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। উপজেলা নির্বাচন অফিসার মাহাবুবুর রহমান বলেন, এ ধরনের ঘটনার সংবাদ আমরা পাইনি। তবে এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ব্যবস্থা নিবে। তারপরও আমরা খবর নিচ্ছি। কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে ৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ধামরাই (ঢাকা) : ঢাকার ধামরাইয়ে প্রতীক বরাদ্দের পর ১৫টি ইউনিয়নে ব্যাপক হামলা, ভাঙচুর, মারধর ও গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়ে প্রভাষক আওলাদ হোসেন নামে এক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নিখোঁজ হয়েছেন। এ সন্ত্রাসী তাণ্ডবে শতাধিক নেতাকর্মী ও সমর্থক আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ১১ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। নিখোঁজ প্রার্থী প্রভাষক আওলাদ হোসেনের চাচাতো ভাই মো. আব্দুল আহাদ বাবু বলেন, আমার ভাইয়ের ব্যাপক জনপ্রিয়তায় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আজাহার আলী ভয় পেয়েছেন। তাই আমার ভাই ও তার নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করেছে তার নেতাকর্মীরা। আমার ভাইকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তার মুঠোফোনও বন্ধ রয়েছে। হামলায় আহদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

এছাড়া লক্ষ্মীপুরের রামগতি, ফরিদপুরের নগরকান্দা, মানিকগঞ্জের সিংগাইর, ঢাকার কেরানীগঞ্জ, ময়মনসিংহের ধোবাউড়া, পটুয়াখালীর দশমিনা ও দক্ষিণ, ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া, বরিশালের আগৈলঝাড়া, নাটোরের বড়াইগ্রাম, টাঙ্গাইলের মধুপুর, শরীয়তপুর ও ফেনী প্রতিনিধি এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন পাঠিয়েছেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন